মুনাফা বৃদ্ধির শীর্ষে ৭টি ব্যাংক

1
1982

সিনিয়র রিপোর্টার : খেলাপি ঋণ বাড়লেও চলতি অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কর-পরবর্তী মুনাফা বেড়েছে অধিকাংশ ব্যাংকের। শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ৩০টি ব্যাংকের মধ্যে জানুয়ারি-মার্চ প্রান্তিকে ১৭টির নিট মুনাফা বেড়েছে।

অন্যদিকে একই সময়ের ব্যবধানে নিট মুনাফা কমেছে ১১টি ব্যাংকের, লোকসান বেড়েছে ১টির এবং নতুন করে লোকসানে পড়েছে ১টি ব্যাংক।

তালিকাভুক্ত ব্যাংকগুলোর সর্বশেষ প্রকাশিত অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনায় দেখা যায়, চলতি হিসাব বছরের প্রথম (জানুয়ারি-মার্চ) প্রান্তিকে নিট মুনাফা প্রবৃদ্ধিতে সবচেয়ে এগিয়ে ছিল যথাক্রমে বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংক- যমুনা, প্রিমিয়ার, ওয়ান, পূবালী ও ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড।

নিট মুনাফা প্রবৃদ্ধির তালিকায় সবার ওপরে রয়েছে- যমুনা ব্যাংক। জানুয়ারি-মার্চ সময়ে ব্যাংকটির নিট মুনাফা আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় ২৯০ শতাংশ বেড়েছে। চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে যমুনা ব্যাংকের কর-পরবর্তী মুনাফা হয়েছে ২৪ কোটি ১৭ লাখ টাকা, আগের বছর একই সময়ে যা ছিল ৬ কোটি ৪২ লাখ টাকা।

প্রথম প্রান্তিকে নিট মুনাফায় ১৯১ দশমিক ৮৯ শতাংশ প্রবৃদ্ধি নিয়ে তালিকার দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে প্রিমিয়ার ব্যাংক। জানুয়ারি-মার্চ সময়ে তাদের কর-পরবর্তী মুনাফা হয় ২৯ কোটি ১৬ লাখ টাকা, আগের বছরের একই সময়ে যা ছিল ৯ কোটি ৯৯ লাখ টাকা। এ সময়ে ব্যাংকটির পরিচালন মুনাফা ১৪৮ কোটি টাকা থেকে ১৮৭ টাকায় উন্নীত হয়েছে।

প্রবৃদ্ধি টেবিলে তৃতীয় স্থানে উঠে আসা ওয়ান ব্যাংকের মুনাফা বেড়েছে ১১৮ দশমিক ২৪ শতাংশ। চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে এর নিট মুনাফা হয়েছে ৮৯ কোটি টাকা, আগের বছর একই সময়ে যা ছিল ৪১ কোটি ১৭ কোটি টাকা। চতুর্থ স্থানে উঠে আসা পুবালী ব্যাংকের মুনাফায় প্রবৃদ্ধি ১০৬ দশমিক ১২ শতাংশ। আলোচ্য সময়ে ব্যাংকটির নিট মুনাফা ৩২ কোটি ৫৩ লাখ টাকা থেকে বেড়ে ৬৭ কোটি ৫ লাখ টাকায় উন্নীত হয়।

পঞ্চম স্থানে উঠে আসা ব্র্যাক ব্যাংকের মুনাফা প্রবৃদ্ধি ১০৩ দশমিক ৬৬ শতাংশ। চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে এর নিট মুনাফা হয়েছে ১২৬ কোটি টাকা, আগের বছর একই সময়ে যা ছিল ৬২ কোটি ২৩ লাখ টাকা।

জানুয়ারি-মার্চ প্রান্তিকে আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কর-পরবর্তী মুনাফায় ভালো প্রবৃদ্ধিতে থাকা অন্য ব্যাংকের মধ্যে ব্যাংক এশিয়ার নিট মুনাফা ৯৩ দশমিক ৪৮ শতাংশ, মার্কেন্টাইল ব্যাংকের নিট মুনাফা বেড়েছে ৮২ দশমিক ৭৮ শতাংশ, রূপালী ব্যাংকের ৬৮ শতাংশ প্রবৃদ্ধি রয়েছে।

মুনাফা বেড়েছে ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক, আইএফআইসি ব্যাংক, ঢাকা ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক, এনসিসি ব্যাংক, প্রাইম ব্যাংক, ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক, ট্রাস্ট ব্যাংক, সাউথইস্ট ব্যাংকসহ মোট ১৭টি ব্যাংকের।

খাতসংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, মূলত নিম্নমুখী সুদহার, পুঁজিবাজার থেকে আয় ও রিটার্ন বৃদ্ধি, সার্ভিস চার্জ, কমিশনের মতো বিষয়গুলোই সিংহভাগ ব্যাংকের মুনাফা বাড়াতে সহায়ক হয়েছে।

অন্যদিকে প্রথম প্রান্তিকে আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় পিছিয়ে যাওয়া ব্যাংকগুলোর মধ্যে সবার আগে আসবে এক্সিম ব্যাংকের নাম। আগের বছরের প্রথম প্রান্তিকে ৮৬ কোটি ৭৭ লাখ টাকা কর-পরবর্তী মুনাফায় থাকা ব্যাংকটি গেল প্রান্তিকে লোকসানে পড়েছে।

জানুয়ারি-মার্চ সময়ে ৭৫ কোটি ৪৫ লাখ টাকা লোকসান দেখিয়েছে এক্সিম ব্যাংক। যদিও চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে তাদের পরিচালনা মুনাফা আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় প্রায় ৮ শতাংশ বেড়েছে। ২০১৭ সালের প্রথম প্রান্তিকে ২০২ কোটি ৯৮ লাখ টাকার পরিচালন মুনাফা করেছে এক্সিম ব্যাংক, আগের বছরের একই সময়ে যা ছিল ১৮৮ কোটি ৫৮ লাখ টাকা। মূলত ঋণ ও পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ-সংক্রান্ত ক্ষতির বিপরীতে সঞ্চিতির কারণেই প্রথম প্রান্তিকে লোকসানে পড়েছে ব্যাংকটি।

একই কারণে পরিচালন আয় বৃদ্ধির পরও নিট মুনাফায় পিছিয়েছে আরো কয়েকটি ব্যাংক। এর মধ্যে ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের মুনাফা প্রায় তিন-চতুর্থাংশ কমেছে। ২০১৬ সালের জানুয়ারি-মার্চ প্রান্তিকে ব্যাংকটির নিট মুনাফা ছিল ৪৪ কোটি ৩ লাখ টাকা। গেল প্রান্তিকে তা ১০ কোটি ৬৮ লাখ টাকায় নেমে এসেছে। এছাড়া একই সময়ের ব্যবধানে এবি ব্যাংকের নিট মুনাফা ৬৯ কোটি টাকা থেকে ২৪ কোটিতে নেমে এসেছে।

এ সময় মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের নিট মুনাফা হয় ২৯ কোটি ১৫ লাখ, আগের বছর একই সময়ে যা ছিল ৩২ কোটি ৪৭ লাখ টাকা। ২০১৬ সালের প্রথম প্রান্তিকে ৩৭৯ কোটি টাকার পরিচালন আয়ের বিপরীতে ৬৬ কোটি টাকার নিট মুনাফা হয় ডাচ-বাংলা ব্যাংকের। চলতি হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকে ৪১৯ কোটি টাকার পরিচালন আয়ের বিপরীতে ৫৮ কোটি টাকার নিট মুনাফা দেখায় ব্যাংকটি। পরিচালন আয় বাড়লেও মুনাফা কমেছে আল আরাফাহ্ ইসলামী, শাহজালাল ইসলামী, সোস্যাল ইসলামী ও উত্তরা ব্যাংকের।

এদিকে পরিচালন আয় ও নিট মুনাফা দুটোই কমার তালিকায় সবার ওপরে রয়েছে ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেড। চলতি হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকে ব্যাংকটির পরিচালন আয় ৯ দশমিক ৪২ শতাংশ কমেছে। অন্যদিকে নিট মুনাফা কমেছে ২৬ দশমিক ২৩ শতাংশ। ২০১৬ সালের প্রথম প্রান্তিকে কর-পরবর্তী ৮৩ কোটি ৮৩ লাখ টাকার নিট মুনাফা ছিল ইস্টার্ন ব্যাংকের, চলতি বছর যা ৬৬ কোটি ৪১ লাখ টাকায় নেমে আসে।

প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় চলতি বছর দি সিটি ব্যাংকের নিট মুনাফা ১৭ দশমিক শূন্য ৫ ও স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের ৫ দশমিক শূন্য ১ শতাংশ কমেছে। এদিকে আগের বছরের একই সময়ে শেয়ারপ্রতি ১১ পয়সা লোকসান দেখালেও গেল প্রান্তিকে তা আরো ১ পয়সা বেড়ে ১২ পয়সায় উন্নীত হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরেই লোকসানে রয়েছে ব্যাংকটি।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here