‘মার্কেট বোঝা অনেক মুশকিল, এজন্য তথ্যের দরকার’

3
4197

শেয়ার লেনদেন সম্পর্কিত ‘কনটেস্ট’ প্রতিযোগীতায় বিজয়ী হয়েছেন হাসান মোহাম্মদ ফেরদৌস। সেপ্টেম্বর মাসের ৮১ জন অনলাইন প্রতিযোগীর মধ্যে তিনি বিজয়ী হন তিনি। স্টক বাংলাদেশ- এর মূল অফিসে তার সঙ্গে আলাপ চারিতায় উঠে আসে নানা প্রসঙ্গ। তুলে ধরা হলো চুম্বক কিছু অংশ। সাক্ষাতকার গ্রহণ করেছেন- শাহীনুর ইসলাম

স্টক বাংলাদেশ : বুদ্ধিবৃত্তিক চর্চার প্রতিযোগীতায় কেন এলেন?

হাসান মোহাম্মদ ফেরদৌস : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আমি ছাত্র ছিলাম। ২০১২ সালে আমি স্নাতকত্তোর সম্পন্ন করে বের হই। ছাত্রজীবনে শিক্ষার জন্যই হোক আর শিক্ষকদের উৎসাহেই হোক ২০১২ সাল পর্যন্ত আমি এর মধ্যেই ছিলাম। এরপরে ২০১২ সালে যখন বিশ্বববিদ্যালয় থেকে বের হই তখন রেস এ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট নামে একটি প্রতিষ্ঠানে চাকরি নেই। সেখানে শেয়ার রিসার্চ করার একটা পার্ট ছিল। এর আগে প্রথম যখন রেস এ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট নামের ওই প্রতিষ্ঠানে চাকরির  জন্য সাক্ষাতকার প্রদানে যাই, সেদিন আমি প্রথম চমকে যাই।

সেদিনের অভিজ্ঞতা আরো মজার। প্রতিষ্ঠানের প্রধান ছিলেন- ড. হাসান ইমাম। তিনি আমাকে পুঁজিবাজার নিয়েই ঘুরে ফিরে প্রশ্ন করছিলেন। আমদের আলোচনার নানা প্রসঙ্গ থাকলেও বারবার ফিরে আসছে এ্যনালাইসিস। তাতে আমি বেশ মজা পাচ্ছিলাম। কেননা ছাত্রজীবনের সেই অভিজ্ঞতা আমার বেশ কাজে দেয়। সাক্ষাতকার অনুষ্ঠানে পুঁজিবাজার সম্পর্কিত আলোচনায় আমরা একে অপরের মধ্যে হৃদ্যতা অনুভব করি। সেখানে আমার চাকরি হলো এবং বলা যায় এরপর থেকেই আমার আরেক দফা চর্চার ক্ষেত্রও প্রসারিত হলো।

চাকরি গ্রহণের পর তার প্রতিষ্ঠানে প্রতিদিনের ট্রেডিং এবং পুঁজিবাজারের বাইরে যেসব কোম্পানি আছে, সে কোম্পানিগুলোরও রিসার্চ করা হয়। পুঁজিবাজারে ননলিস্টেড যে কোম্পানি বা আগামীতে যেগুলো আসবে বা তালিকাভুক্ত হবে, এমন কোম্পানিগুলো নিয়েও তারা রিসার্চ করতন। সেখানে আমার বিশাল একটি দায়িত্ব ছিল। ওই দায়িত্ব আমাকে আরো গতিশীল এবং বুদ্ধিবৃত্তিক চর্চার ক্ষেত্র তৈরিতে সহায়তা করে।

স্টক বাংলাদেশ : এখন কোথায় কি করছেন?

হাসান মোহাম্মদ ফেরদৌস : পরে আমি যমুনা ব্যাংকে ফাস্ট এক্সিকিউটিভ অফিসার হিসেবে যোগদান করি। ঢাকার ধামরাইয়ের কালামপুরে কর্মরত আছি। তবে এখনো পুঁজিবাজারেরে সঙ্গে আছি।

স্টক বাংলাদেশ : মার্কেট সাকসেসে আপনার পরামর্শ কি?

হাসান মোহাম্মদ ফেরদৌস : সাকসেসে শুধু এনালাইসিস করে সফল হওয়া যায় না। মনে রাখতে হবে- মার্কেট কি চায়? আপনি যে আইডিয়া ছাড়বেন- তখন মনে করতে হবে তা বাজারের সঙ্গে কতোটা ম্যাচ করে। যখন ম্যাচ করবে না তখন তা কারেকশনে আনতে হবে। তা করতে পারলেই মার্কেটের সঙ্গে মানিয়ে নিতে পারবেন- এটাই আসল কথা।

তবে মর্কেটের ন্যাচার বিভিন্ন সময় বদলায়। বাজেটের আগে এক- পরে এক। মনে করেন, বাংলাদেশ ব্যাংক কোন গাইডলাইন দিলো তার ফল এক রকম, গাইড লাইন দেয়ার আগে ছিলো অন্যরকম। এরমধ্যে এখনে পলিটিক্যাল ইস্যু একটা বড়ো বিষয়। পলিটিক্যাল বিষয়টাকে আঁচ করে নিতে পারলে তবে পুঁজি অনেকটা সেভ করতে পারবেন। তবে সত্যি বলতে কি- আমাদের মার্কেট বোঝা অনেক মুশকিল। এজন্য অনেক তথ্যের দরকার।

স্টক বাংলাদেশ : পুঁজিবাজারে ব্যাসায় প্রথম কোন বিষয়টিকে গুরত্ত্ব দেয়া দরকার

হাসান মোহাম্মদ ফেরদৌস : প্রথমে চাই তথ্য। তথ্য অনুযায়ী দু-একটি কোম্পানির শেয়ার পছন্দ করেন, এরপরে তাদের সম্পর্কে জানেন। জেনে বুঝে শেয়ার কেনেন। তারা আসলে কোন প্রকৃতির। কেননা- স্কয়ার ফার্মা এক ধরণের বিক্সিমকো আরেক ধরণের। তাদের ধরণ অনুযায়ী তথ্য নিয়ে আপানার এ্যানালাইসিস কতোটা ধারণা দিচ্ছে সে অনুযায়ী এগিয়ে যান। ইনফরমেশনের ওপর কিছু নাই। তবে রাস্তার পান দোকানীর জন্য এ ব্যবসা নয়। বুঝে নেবেন- রাস্তার  পান দোকানি যখন এ ব্যবসায় এসেছে- তখন আপনার চলে যাওয়ার সময় হয়েছে। চলে যাওয়ার এগুলো হচ্ছে ইন্টিগেশন।

তবে সব শেয়ারে আপনি লাভবান হবেন তা নয়। সময়ে ডিসিশন পরিবর্তন করতে হয়। অনেক সময় দেখা গেছে, তথ্য সঠিক। কোম্পানির শেয়ার দর বাড়তে গিয়ে থেমে গেছে, আর বাড়ছে না। অন্যদিকে কমতে শুরু করেছে বা নতুন তথ্য অমুক কোম্পানি ভলো করবে। এজন্য বিলম্ব না করে তাৎক্ষণিক ছেড়ে দেয়াই ভালো।

স্টক বাংলদেশ: শেয়ার কনটেস্ট নিয়ে কিছু বলুন

হাসান মোহাম্মদ ফেরদৌস : প্রতিযোগিতা খুব ভালো। ব্যবসা শুরুর আগে একজন মানুষ তার ডিসিশন মেক করতে সুযোগ পায়। তবে কনটেস্টে বিজয়ী অন্য দুজনকেও সম্মান করা দরকার বলে মনে করি। আত্মবিশ্বাস নিয়ে এগিয়ে গেলে কতো সফল হওয়া যায় তার প্রথম পরীক্ষা এটা। অনেকটা বলা যায়- এটা পরীক্ষার আগে পরীক্ষা।

স্টক বাংলদেশ : স্টক বাংলাদেশের জন্য কোন পরামর্শ বা অভিযোগ

হাসান মোহাম্মদ ফেরদৌস : আয়োজক স্টক বাংলাদেশের কাছে পরামর্শ নয় অনুরোধ থাকবে দৈনিক স্টক বাংলাদেশ -কে আবারো কাগজে আনার জন্য। তবে অভিযোগ নেই।

স্টক বাংলদেশ : সময় দেয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

হাসান মোহাম্মদ ফেরদৌস : আপনাকেও। স্টক বাংলাদেশ -এর সকল পাঠক ও শুভাকাঙ্খির কাছে আমার সালাম ও শুভেচ্ছা রইল।

পেছনের খবর : শেয়ার লেনদেন নিয়ে ‘কনটেস্ট’

আরো খবর : শেয়ার ‘কনটেস্ট’ প্রতিযোগীতায় বিজয়ী মেহেদী আরাফাত

আরো খবর : ‘শেয়ার কনটেস্টের মাধ্যমে নিজেকে আত্মবিশ্বাসী করা যায়’

আরো খবর : শেয়ার ‘কনটেস্ট’ প্রতিযোগীতায় বিজয়ী ফেরদৌস

3 COMMENTS

  1. ভাই আমি একটা ব্যাপার বুজতে পারতাসি না যেই শাহাজিবাজার পাওয়ার নিয়া এত মাতামাতি করলেন সেই শেয়ার এখন কিভাবে এতদিন অসসাবাবিক বেড়ে যাছে? এখন কি DSE, SEC দেখে না? নাকি DSE এর কোন কর্মকর্তার অনেক শেয়ার কিনা আসে তাই এই পরিকল্পনা?? হাইরে শেয়ার বাজার?????

  2. Market behavior is no where close to any theoretical study or analysis. Financial reports are often found faulty. How would u detect the exact status of any company. Sorry, your adviice and logic does not match or support us in any manner in our investment procedure. Hundreds of analysts have similar reading with lots of ifs and buts, finally we found those are all personal displays nothing else.

Sarwarjamil শীর্ষক প্রকাশনায় মন্তব্য করুন Cancel reply

Please enter your comment!
Please enter your name here