‘মার্কেটে রক্তক্ষরণ হলেও কিনুন, যদি তা আপনার রক্তও হয়’

0
509
‘মার্কেটে রক্তক্ষরণ হলেও কিনুন, যদি তা আপনার রক্তও হয়’

কিনুন, যখন শেয়ার মার্কেটে রক্তক্ষরণ হয়, যদি তা আপনার নিজের রক্ত হয়, তবুও কিনুন (Buy when there’s blood in the streets, even if the blood is your own — Baron Rothschild).

শেয়ার মার্কেটে বিনিয়োগ নিয়ে বিখ্যাত এ উক্তিটি করেছিলেন বেরন রুথসিল্ড। আজ থেকে প্রায় দেড়শ বছর আগে করেন। মার্কেটে যখন পেনিক সেল শুরু হয়, তখন খারাপ-ভাল নির্বিশেষে সব শেয়ারই মূল্য হারায়। সর্বগ্রাসী পতনে কোম্পানির দূর্বল ফান্ডামেন্টালের দায় যতটা, তার চাইতে ঢের বেশী দায় থাকে অনেক বিনিয়োগকারীর পলায়নপর মানসিকতায়।

পেনিক এতটাই চরম আকার ধারণ করে যে, আমজনতা অতি সাধারণ বিনিয়োগ নিয়মনীতি যায়, অনেকে ভুল করে তার হাতে থাকা ভাল শেয়ারটা পর্যন্ত পানির দরে ছেড়ে দিয়ে মার্কেট আউট হন। কারণ, তাদের ভয়।

মার্কেটে যখন ধংসযজ্ঞ চলতে থাকে; তখনই কিছু কোম্পানির শেয়ারে দারুন কিছু সুযোগ সৃষ্টি হয়। অভিজ্ঞ ও কুশলী বিনিয়োগকারীরা কোনভাবেই এ সুযোগগুলো হাত ছাড়া করেন না। তারা সুযোগ সন্ধান করে তা লুফে নেয়।

দাম কমেছে বলে তারা সেই শেয়ার কেনেন- এ ধারণা মূলত ঠিক নয়। তাদের দৃষ্টি থাকে- মূল্য নয়; মানের দিকে। বাজে শেয়ার যত কম দামেই হোক তা বর্জনীয়। এগুলো সল্প সময়ে মুনাফা দিলেও দীর্ঘ মেয়াদে বিনিয়োগের জন্যে একেবারে অনুপযোগী।
তাই মানসম্পন্ন এবং ফান্ডামেন্টাল থাকা সত্ত্বেও পেনিক সেলের কারণে মূল্য হারায় অনেক ভাল কোম্পানি। সে সব কোম্পানির শেয়ারগুলোকে টার্গেট করেন অভিজ্ঞ বিনিয়োগকারীরা।
তারা অনুসরণ করেন- শত বছর আগের বেরন রুথসিল্ডের সেই অমর উক্তিটি- ‘কিনুন যখন মার্কেটের রক্তক্ষরণ হয়, যদি তা আপনার নিজের রক্ত হয়, তবুও কিনুন’।
ঈদুল আযহা পরবর্তী সময়ে পুঁজিবাজারের অধিকাংশ দিনই সূচক ছিল নিম্নমুখী। সূচকের সঙ্গে মোট লেনদেন নেমে আসে ৩শ’ কোটির ঘরে। গত দুই মাসে সূচক কমেছে প্রায় ১৮০পয়েন্ট আর বাজার মূলধন হারিয়েছে ১০হাজার কোটি টাকা! আর সাধারণ বিনিয়োগকারীদের পোর্টফোলিও থেকে কর্পুরের মত মিলিয়ে গেছে শরীরের রক্ত সমতুল্য অনেক পূঁজি।

নিজের হাতে থাকা শেয়ারগুলোর মূল্য পতনেও যারা ধৈর্য্য ধারণ করেছিলেন এবং নতুন পূঁজি যোগ করে ভাল কোম্পানিতে বিনিয়োগ করেছিলেন তারা নিশ্চয় ভালো কিছু পাবেন। মার্কেট ধীরে হলেও ফিরে আসছে।

তবে মার্কেট পূর্ণরুপে ঘুরে দাঁড়াতে পারবে কি-না, তা বলা মুশকিল। বাজারের টার্নওভার ৫শ’ কোটির ঘর না ছাড়ালে কিছুই নিশ্চিত করে বলা যায় না।

গত দুমাসে পোর্টফলিওতে থাকা শেয়ারগুলোর অন্তত ২০% মূল্য হারিয়েছেন। নতুন পূঁজি যোগ করে শেয়ার কিনুন দুহাত ভরে। বাজার যেখানেই যাক; ফল দেবে।
কারণ, শেয়ারের দাম দেখে নয় বরং কোম্পানির আর্থিক সামর্থ দেখে বিনিয়োগ করুন। ইনশাল্লাহ্, ভবিষ্যতে এ থেকেই ভাল মুনাফা মিলবে।
তবে অনেকেই ইংরেজিতে ক্রেজিভাবে বলেন- No risk no gain. এখানে মূল বক্তব্য হলো- বোকা হয়ে ভুল মার্কেটে চড়া মূল্যে শেয়ার কিনে সাহস না দেখিয়ে, বেয়ার মার্কেটে কম দামে ভাল শেয়ার কিনে সাহস দেখানই যৌক্তিক।

লেখক-  মোহাম্মদ হাসান শাহারিয়ার

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here