শেষমুহুর্তে ব্যাংকে আইপিও জমার হিড়িক

0
2352

হোসাইন আকমল : প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে টাকা উত্তোলন করছে শাশা ডেনিমস। গত ১৪ ডিসেম্বর রোববার থেকে শরু হয়ে ২১ ডিসেম্বর, রোববার পর্যন্ত কোম্পানিটির আইপিওর আবেদনপত্র জমা দানের দিনক্ষণ নির্ধারণ করা হয়েছে। তবে প্রবাসি বাংলাদেশিদের জন্য এ সুযোগ ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত রয়েছে। নতুন ও পুরাতন উভয় পদ্ধতিতে পুঁজিবাজার থেকে কোম্পানিটির আইপিও টাকা উত্তোলন করা হচ্ছে।

শাশা ডেনিমসের আইপিওতে অনেকটা সাড়া পড়েছে। রাজধানীর কারওয়ান বাজার ও মতিঝিলের কয়েকটি ব্যাংকের র্দীঘ লাইন ও অনেক সিকিউরিটিসে খোঁজ নিয়ে এমন তথ্য জানা গেছে। তবে সিকিউরিটিজ হাউসের তুলনায় ব্যাংকে আইপিও প্রাথীদের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে।

কারওয়ানবাজারের কয়েকটি ব্যাংকে শাশা ডেনিমসের আইপিও আবেদন জমাদানের দৃশ্য
কারওয়ানবাজারের কয়েকটি ব্যাংকে শাশা ডেনিমসের আইপিও আবেদন জমাদানের দৃশ্য

কারওয়ান বাজার শাখার সাউথঈস্ট ব্যাংকে রোববার দুপুরে এপর্যন্ত জেনারেল ও ক্ষতিগ্রস্ত মিলে ১৭৫৪ টি আবেদন জমা পড়ে। যার মূল্য ১ কোটি ২২ লাখ ৭৮ হাজার টাকা। ন্যাশনাল ব্যাংকে জেনারেল ৫৭৭৬টি ও ক্ষতিগ্রস্ত ৬০৪টি আবেদন জমা পড়ে। যার মূল্য ৪ কোটি ৪৬ লাখ ৬০ হাজার টাকা। ওয়ান ব্যাংকে জেনারেল ও ক্ষতিগস্ত মিলে এ পযয়ন্ত প্রায় ৬০ কোটি টাকার আবেদন জমা পড়ে।

কারওয়ানবাজারে সাউথঈস্ট ব্যাংকে কথা হয় আইপিও আবেদনকারী সুমনের সঙ্গে। তিনি বলেন, সাধারণত নতুন আইপিওতে বিনিয়োগ মুনাফাজনক। কোন কোম্পানি আইপিওতে এসেই লোকসান করেনা। সে বিবেচনায় মুনাফার আশায় শাশা ডেনিমসের আইপিওতে আবেদন করছি।

এ বিষয়ে শাশা ডেনিমসের এক কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করা হলে নাম না প্রকাশ করার শর্তে তিনি বলেন, আইপিও নিয়ে আমরা অনেক আশাবাদী। আগাম কিছু বলা সম্ভব হচ্ছে না।

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৫২৭তম সভায় প্রতিষ্ঠানটিকে এই অনুমোদন দেয়া হয়। শাশা ডেনিমস পুঁজিবাজার থেকে ৫ কোটি শেয়ার ছেড়ে ১৭৫ কোটি টাকা সংগ্রহ করবে। পুঁজিবাজার থেকে সংগৃহিত অর্থ দিয়ে কোম্পানির ব্যবসা সম্প্রসারণে ১৫৪ কোটি টাকা, ব্যাংক ঋণ পরিশোধে ১৮ কোটি ২২ লাখ ৯০ হাজার টাকা এবং আইপিও খরচ বাবদ ২ কোটি ৭৭ লাখ ১০ হাজার টাকা ব্যয় করবে।

শাশা ডেনিমসের শেয়ারপ্রতি ফেস ভ্যালু নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা। এর সঙ্গে বাড়তি ২৫ টাকা প্রিমিয়াম মিলে শেয়ারপ্রতি মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৫ টাকা। কোম্পানিটির ২০১৩ সালে ইপিএস ছিল ৩.১০ টাকা।

কোম্পানিটির ইস্যু ম্যানেজার হিসেবে রয়েছে এএফসি ক্যাপিটাল লিমিটেড ও ইম্পেরিয়াল ক্যাপিটাল লিমিটেড। অডিটরের দায়িত্বে পিনাকি এ্যান্ড কোম্পানি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here