ব্যাংকিং খাতে তারল্য বাড়বে

0
500

স্টাফ রিপোর্টার : বেসরকারি খাতের ঋণ প্রবৃদ্ধি কমে যাওয়ায় বিনিয়োগ-আমানত অনুপাত (ADR Ratio) বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। প্রচলিত ধারার ব্যাংকগুলোর জন্য ১ দশমিক ৫০ শতাংশ এবং ইসলামি ব্যাংকিং কার্যক্রমের জন্য ১ শতাংশ ঋণ বিতরণ সীমা বৃদ্ধি করা হয়েছ। সেই হিসাবে ১৪ হাজার ৭৩৮ কোটি টাকার তারল্য বাড়বে ব্যাংকিং খাতে।

মঙ্গলবার, ১৮ সেপ্টেম্বর কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে প্রকাশিত  প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী প্রচলিত ধারার ব্যাংকগুলো ১০০ টাকা আমানতের বিপরীতে ৮৫ টাকা এবং ইসলামি ব্যাংকিং কার্যক্রমের জন্য সর্বোচ্চ ৯০ টাকা ঋণ দিতে পারবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের জুন (২০১৯) ভিত্তিক তথ্য অনুযায়ী ব্যাংকিং খাতের মোট আমানতের পরিমাণ ১০ লাখ ৬৪ হাজার ৫৩৬ কোটি টাকা। এর মধ্যে প্রচলিত ধারার ব্যাংকগুলোতে রয়েছে ৮ লাখ ১১ হাজার ৪৭৭ কোটি টাকা। আগের হিসাব অনুযায়ী সিআরআর এবং এসএলআর  বাদে প্রচলিত ধারার ব্যাংকগুলোর ৬ লাখ ৭৭ হাজার ৫৮৩ কোটি টাকা ঋণ দেওয়ার বৈধতা ছিল। তবে নতুন নির্দেশনার পর এর সাথে যোগ হবে আরও ১২ হাজার ১৭২ কোটি টাকা।

অন্যদিকে জুন (২০১৯) শেষে দেশের ইসলামী ধারার ব্যাংকগুলোতে মোট আমানত ছিল ২ লাখ ৫৩ হাজার ৫৮৬ কোটি টাকা। যেখানে ঋণ বিতরণের বৈধতা ছিল ২  লাখ ২৫ হাজার ৬৯২ কোটি টাকা। তবে ১ শতাংশ সুবিধা পেয়ে আরও ২ হাজার ৫৬৬ কোটি টাকা বিনিয়োগ করতে পারবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, বেসরকারি খাতের ঋণ প্রবৃদ্ধি বাড়াতেই এমন উদ্দ্যোগ নেওয়া হয়েছে। গত কয়েক বছরে সর্বনিম্ন পর্যায়ে পৌঁছেছে বেসরকা খাতের ঋণ প্রবৃদ্ধি। আশা করা যায় এডিআর বৃদ্ধির এই সুযোগে বেসরকারি খাতের বিনিয়োগ আরও বাড়বে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য বলছে, জুলাই (২০১৯) শেষে বেসরকারি খাতের ঋণ প্রবৃদ্ধি হয়েছে ১১ দশমিক ২৬ শতাংশ। যা মূদ্রানীতি (২০১৯-২০) ঘোষিত লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৩ দশমিক ৫৪ শতাংশ কম। শুধু তাই নয় গত ৬ বছরের এই প্রবৃদ্ধি সর্বনিম্ন। এর আগের মাসগুলোতে বেসরকারি খাতে ঋণ প্রবৃদ্ধি ছিল (জানুয়ারি ১৩.২, ফেব্রুয়ারি ১২.৫৪, মার্চ ১২.৪২, এপ্রিল ১২.০৭, মে ১২.১৬ এবং জুন মাসে ১১.২৯ শতাংশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here