বিমানের জ্বালানি তেল সরবরাহে হচ্ছে পাইপলাইন

0
745

স্টাফ রিপোর্টার : দেশি-বিদেশি উড়োজাহাজে নির্বিঘ্নে জ্বালানি তেল (জেট এ-১) সরবরাহে একটি পাইপলাইন স্থাপন করা হবে। নারায়ণগঞ্জের রৃপগঞ্জে শীতল্যা নদীর কাঞ্চনব্রিজ (পিতলগঞ্জ) থেকে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর পর্যন্ত এ পাইপলাইন হবে। এখান থেকে ৮ ইঞ্চি ব্যাসের একটি পাইপলাইন পূর্বাচল ৩০০ ফুট সড়কের সমান্তরালে কুড়িল বিশ্বরোড পর্যন্ত যাবে। এরপর এটিকে বিমানবন্দর ডিপো পর্যন্ত নিয়ে যাওয়া হবে।

বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কোম্পানির (বিপিসি) নিজস্ব অর্থায়নে ১৬ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের এ পাইপলাইন স্থাপন করবে বাংলাদেশ নৌবাহিনী। সংস্থা দুটির মধ্যে এ-সংক্রান্ত চুক্তি সই হয়। পুরো প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ২২৮ কোটি ৪৯ লাখ টাকা। নির্মাণকাজের জন্য নৌবাহিনী পাবে ১৮৩ কোটি টাকা। ২০১৮ সালের নভেম্বরের মধ্যে এ নির্মাণকাজ শেষ হবে।

বিপিসির পে মহাব্যবস্থাপক (পরিকল্পনা) মুস্তফা কুদরত এ ইলাহী ও নৌবাহিনীর পে কমান্ডার আবদুস সামাদ চুক্তিতে স্বার করেন। ঢাকায় বিপিসির কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত চুক্তি স্বার অনুষ্ঠানে জ্বালানি সচিব নাজিম উদ্দিন, বিপিসির চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম ও পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান আবুল মনসুর মো. ফয়জুল্লাহ উপস্থিত ছিলেন।

বিপিসি জানিয়েছে, উড়োজাহাজে ব্যবহারের জন্য হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বছরে প্রায় তিন লাখ টন জেট ফুয়েল সরবরাহ করে পদ্মা অয়েল কোম্পানি। বর্তমানে জেট ফুয়েল আমদানির পর চট্টগ্রামের পতেঙ্গায় মজুদ করা হয়। সেখান থেকে ট্যাঙ্কারে করে জলপথে নারায়ণগঞ্জের গোদলাইন ডিপোতে আনা হয়। এরপর গোদলাইন থেকে প্রতিদিন গড়ে ১৫০টি ট্যাঙ্ক লরির মাধ্যমে এ জ্বালানি শাহজালাল বিমানবন্দর এলাকায় অবস্থিত কুর্মিটোলা এভিয়েশনের ডিপোতে (কেএডি) নেওয়া হয়। এই পথের দূরত্ব ৪০ কিলোমিটার। এতে বছরে বিপিসির ব্যয় হয় ৩০ কোটি টাকা।

যানজটের কারণে ঢাকা শহরের মধ্য দিয়ে ট্যাঙ্ক লরির মাধ্যমে জেট ফুয়েল সরবরাহ করা ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় এ পাইপলাইন নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এতে অপারেশন লস ও পরিবহন ব্যয় কমবে বলে সংস্থাটি আশা করছে।

প্রকল্পের আওতায় কাঞ্চনব্রিজ এলাকায় একটি ডিপো ও জেটি নির্মাণ করা হবে। ডিপোতে তিন হাজার টন ধারণ মতার তিনটি স্টোরেজ ট্যাঙ্ক নির্মাণ করা হবে। পাইপলাইন পরিচালনা, নিরাপত্তা ও ছিদ্র অনুসন্ধানে আধুনিক প্রযুক্তি থাকবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here