বিবিএস কেবলসের মুনাফা বেড়ে ১১১ কোটি টাকা

1
1268

সিনিয়র রিপোর্টার : ২০১২-১৩ হিসাব বছরে বিবিএস কেবলস লিমিটেডের মুনাফা ছিল ৮ কোটি ৯৬ লাখ ৯৪ হাজার টাকা। ছয় বছর পর ২০১৭-১৮ অর্থবছরে কোম্পানিটির মুনাফা দাঁড়িয়েছে ১১১ কোটি ৫০ লাখ ৪০ হাজার টাকায়।। ছয় বছরে এর মুনাফা বেড়েছে ১২৪৩ শতাংশ বা সাড়ে ১২ গুণ।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্যে জানা গেছে, গত ছয় বছরে মুনাফা ছাড়াও কোম্পানিটির সম্পদের পরিমাণ, পণ্য বিক্রির হারসহ ধারাবাহিকভাবে প্রতিষ্ঠানটির আর্থিক অবস্থার ব্যাপক উন্নতি হয়েছে।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, ২০১২-১৩ হিসাব বছরে বিবিএস কেবলসের মোট মুনাফা ছিল ৮ কোটি ৯৬ লাখ ৯৪ হাজার টাকা এবং সম্পদ ছিল ২২১ কোটি ৩৯ লাখ ৭২ হাজার টাকার। এরপর থেকেই ধারাবাহিকভাবে বেড়েছে এর মুনাফা ও সম্পদের পরিমাণ।

ছয় বছর পর ২০১৭-১৮ হিসাব বছরে প্রতিষ্ঠানটির মোট মুনাফা দাঁড়িয়েছে ১১১ কোটি ৫০ লাখ ৪০ হাজার টাকায় এবং সম্পদ মূল্য দাঁড়িয়েছে ৯৫৬ কোটি ২৩ লাখ ৬৬ হাজার টাকায়। অর্থাৎ ছয় সময়রে মধ্যে প্রতিষ্ঠানটির মুনাফা বেড়েছে ১২৪৩ শতাংশ বা ১২.৪৩ গুণ এবং সম্পদের পরিমাণ বেড়েছে ৩৩১ শতাংশ বা ৪.৩১ গুণ।

২০১২-১৩ হিসাব বছরে কোম্পানিটির যেখানে শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) ছিল ০.৯০ টাকা, ২০১৭-১৮ হিসাব বছরে শেয়ারপ্রতি আয় দাঁড়িয়েছে ৮.০৮ টাকায়।

২০১৭ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্তির পর কোম্পানিটির মুনাফা ও লভ্যাংশে আরও বড় উল্লম্ফন দেখা দেয়। তালিকাভুক্তির প্রথম হিসাব বছরে (২০১৬-১৭) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছিল ৪.১২ টাকা। আর তালিকাভুক্তির দ্বিতীয় হিসাব বছরে (২০১৭-১৮) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় বেড়ে দাঁড়িযেছে ৮.০৮ টাকায়। এক বছরের ব্যবধানে মুনাফা বেড়েছে প্রায় দ্বিগুণ।

অন্যদিকে, তালিকাভুক্তির প্রথম বছরে (২০১৭) কোম্পানিটির লভ্যাংশ ছিল ২০ শতাংশ। এর মধ্যে ১৫ শতাংশ বোনাস এবং পাঁচ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ। তালিকাভুক্তির দ্বিতীয় বছরে (২০১৮) লভ্যাংশ বেড়ে দাঁড়িযেছে ২৫ শতাংশে। যার মধ্যে ছিল ১৫ শতাংশ বোনাস এবং ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ। এক বছরের ব্যবধানে লভ্যাংশ বেড়েছে দেড় গুণের বেশি।

এদিকে, তালিকাভুক্তির তৃতীয় হিসাব বছরের (২০১৮-১৯) প্রথম প্রান্তিকে অর্থাৎ চলতি হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ২০১৮) কোম্পানিটি শেয়ারপ্রতি আয় করেছে ৩.০৬ টাকা। আগের হিসাব বছরের একই সময়ে শেয়ারপ্রতি আয় ছিল ১.৫৭ টাকা। এই সময়ে আয় বেড়েছে প্রায় দ্বিগুণ।

৩০ জুন ২০১৭ তারিখে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের শেয়ার ছিল ৯.৪০ শতাংশ। সর্বশেষ ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ তারিখে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১২.০৩ শতাংশে।

অন্যদিকে, ৩০ জুন ২০১৭ তারিখে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের শেয়ার ছিল ০.১৫ শতাংশ। সর্বশেষ ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ তারিখে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১.০২ শতাংশে। এ সময়ে উদ্যোক্তা শেয়ার অপরিবর্তিত থাকলেও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের শেয়ার ৫৭.১২ শতাংশ থেকে কমে দাঁড়িয়েছে ৫৩.৬২ শতাংশে।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here