ইমরান হোসেন:  আবু আহমেদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বনামধন্য প্রাক্তন প্রফেসর, অর্থনীতিবিদ এবং বাংলাদেশের অন্যতম পুঁজিবাজার বিশ্লেষক। দেশের অর্থনীতি এবং শেয়ার বাজার নিয়ে নিরন্তন চলছে তাঁর গবেষণা। সম্প্রতি স্টক বাংলাদেশকে পুঁজিবাজার নিয়ে জানালেন তার কিছু বিশ্লেষন—

স্টক বাংলাদেশ: সম্প্রতি ক্রেডিট ফ্লো টু প্রাইভেট সেক্টর রেশিও (বেসরকারি খাতের ঋণপ্রবাহ) বাড়ায় বাংলাদেশ ব্যাংক এডি রেশিও (অ্যাডভান্স ডিপোজিট রেশিও)  পরিবর্তনের ঘোষণা (কমানোর) মার্কেট এর প্রভাব লক্ষ্য করা যাচ্ছে। এ বিষয়ে আপনার মতামত কী?

আবু আহমেদ: আমি মনে করি  বিনিয়োগের বিরুদ্ধে লেগেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। কম ইন্টারেস্টে  প্রাইভেট সেক্টরে ঋণ দিলে যেখানে উৎপাদন বাড়ছে, তবে সেখানে  বাংলাদেশ ব্যাংক কেন বিনিয়োগের ( ঋণের) টুটি চেপে ধরবে। বেসরকারি খাতের ঋণপ্রবাহ এক সময় ২২% ছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন বাংলাদেশে এখন বিনিয়োগের সময়, বিনিয়োগ করতে দিতে হবে। তবে ঋণ গুণগত মানের দিকেও নজর দিতে হবে যেন ঋণটি সঠিক উৎপাদনশীল খাতে ব্যবহৃত হয়।

স্টক বাংলাদেশ: বেসরকারি খাতের ঋণপ্রবাহ কমানোর জন্য এডি রেশিওর কমানোর ঘোষণায় ক্যাপিটাল মার্কেটে নেতিবাচক প্রভাব লক্ষ্য করা যাচ্ছে এ বিষয়ে আপনার মতামত কী?

আবু আহমেদ: এডি রেশিও কমালে ব্যাংকগুলো তারল্য সংকট কাটানোর জন্য ডিপোজিটার বৃদ্ধির জন্য উচ্চ ইন্টরেস্ট (সূদ) অফার করবে। আর উচ্চহারে সূদ পেলে বিনিয়োগকারীরা তাদের বিনিয়োগ নিরাপদ  ক্ষেত্র হিসেবে ব্যাংকে ডিপোজিট করবে। ইন্টারেস্ট রেট (সূদের হার) কম না থাকলে ক্যাপিটাল মার্কেট পড়ে।

স্টক বাংলাদেশ: আমাদের মার্কেটে দেখা যায় বিনিয়োগ বেশি না হয়ে ট্রেডিং বেশি হয় এবং জাংক (দূর্বল মৌলভিত্তির) শেয়ারে দাম বৃদ্ধি পায় অনেক ক্ষেত্রে এর কারণ কী?

আবু আহমেদ: বিনিয়োগ উপযোগী কোম্পানি বেশি না থাকায় ট্রেডিং বেশি হয়। টোটাল মার্কেটে আমার দৃষ্টিতে বিনিয়োগ উপযোগী কোম্পানি ৩০টির বেশি নাই। যারা ট্রেডিং করে এই কারনে তাদেরও দোষ দিতে পারিনা। ভাল কোম্পানি না পাওয়াতে কিছু লাভের জন্য তারা ট্রেডিং করে। ভাল কোম্পানি মার্কেটে আনার উদ্দ্যোগও দেখিনা।

জাংক (দূর্বল মৌলভিত্তির) শেয়ারে দাম বৃদ্ধি পাবার কারণ হল আমাদের মার্কেট ছোট, ভাল কোম্পানি বা মাল্টি ন্যাশনাল কোম্পানি লিস্টেড না হলে মার্কেট বড় হবে না। আর মার্কেট বড় না হলে কৃত্রিম দাম বৃদ্ধি (জুয়া) চলতেই থাকবে।

স্টক বাংলাদেশ: ভাল কোম্পানি বা মাল্টি ন্যাশনাল কোম্পানিগুলো ১০% ট্যাক্স সুবিধা থাকার পরও কেন স্টক মার্কেটে লিস্টেড হতে আগ্রহী হচ্ছেনা?

আবু আহমেদ: আমি মনে করি এই ট্যাক্স সুবিধা ১৫% হওয়া উচিৎ। সরকারকে আরও আন্তরিক হয়ে এখানে কাজ করা উচিৎ, আইনের মাধ্যমে তাদেরকে বাধ্য করা উচিৎ স্টক মার্কেটে লিস্টেড হতে। মূল বিষয় হলো মাল্টি ন্যাশনাল কোম্পানিগুলো সিও তাদের বসদের কে খুশি রাখার জন্য লিস্টেড হতে চায় না, কারণ ১০% শেয়ারের মালিকানা এদেশের মানুষকে দিলেও শতশত কোটি টাকা এদেশের মানুষকে দিতে হবে (সঠিক হিসেব আমাদের জানার সুযোগ নাই কারণ তারা পাবলিক কোম্পানিও নয়)। মাল্টি ন্যাশনাল কোম্পানিগুলো সিওরা এ কারণেই লিস্টেড হতে চায় না।

স্টক বাংলাদেশ: বর্তমান মার্কেটে আরও দক্ষ করার জন্য কী কী পদক্ষেপ নেওয়া উচিৎ?

আবু আহমেদ: ফাইন্যান্সিয়াল রিপোর্টিং কাউন্সিল পূর্ণভাবে অপারেশনে গেলে, ভাল ভাল কোম্পানি লিস্টেড হলে এবং ঘোষিত  কার্পোরেট গাইড লাইনটি বাস্তবায়ন হলে ক্যাপিটাল মার্কেট ভাল মুডে থাকবে।

1 COMMENT

Hasib শীর্ষক প্রকাশনায় মন্তব্য করুন Cancel reply

Please enter your comment!
Please enter your name here