বিকল্প প্ল্যাটফর্ম ‘এটিবি’ অনুমোদনের অপেক্ষায়

0
756

প্রস্তাবিত খসড়ায় বলা হয়েছে, অল্টারনেটিভ ট্রেডিং প্ল্যাটফর্ম রুলস কার্যকর হলে সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (ওভার দ্য কাউন্টার) রুলস ২০০১ বাতিল হয়ে যাবে। বাতিল হলেও যেকোনো শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া যাবে বাতিল হওয়া আইনের আলোকেই।

সাধারণত কমিশন প্রথমে খসড়া আইন প্রকাশ করে মতামত আহ্বান করে। আর এই মতামতের পরিপ্রেক্ষিতে কাটছাঁট ও সংশোধন করে চূড়ান্ত আইন গেজেট আকারে প্রকাশ করে কমিশন। সেই হিসেবে বিকল্প লেনদেন প্ল্যাটফর্ম ‘এটিবি’ বোর্ড গঠনে খসড়া প্রকাশ করে, মতামত পাওয়ার পরই আইনটি চূড়ান্ত হবে।

সূত্র জানায়, পুঁজিবাজারে মূল বাজারের পাশাপাশি যোগ্য বিনিয়োগকারীদের নিয়ে শেয়ার লেনদেনের পৃথক প্ল্যাটফর্ম ‘স্মলক্যাপ’ মার্কেট গঠনে কাজ করছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি ও স্টক এক্সচেঞ্জ।

স্মল ক্যাপ বোর্ড আইন অনুযায়ী, ন্যূনতম পাঁচ কোটি টাকা মূলধন উত্তোলনের পর ৩০ কোটি টাকার কম মূলধনী কম্পানি তালিকাভুক্ত হয়ে স্মলক্যাপ বোর্ডে লেনদেন করতে পারবে। এই বোর্ডে ‘যোগ্য বিনিয়োগকারী’, যাদের উচ্চ সম্পদ রয়েছে শুধু তারাই (কোয়ালিফাইড ইনভেস্টর) লেনদেন করতে পারবে।

এটিবি প্ল্যাটফর্মের খসড়া আইন অনুযায়ী মূল বোর্ডে তালিকাভুক্ত ও স্মলক্যাপ বা ন্যূনতম পাঁচ কোটি টাকা রয়েছে এমন স্বল্প মূলধনী কোম্পানি এটিবি বোর্ডে লেনদেন করতে পারবে না। অর্থাৎ পাঁচ কোটি টাকার কম মূলধনী কোম্পানি এখানে শেয়ার লেনদেন করতে পারবে।

এটিবি প্ল্যাটফর্মের খসড়া আইনে বলা হয়েছে, এটিবি প্ল্যাটফর্মে লেনদেনের জন্য ইস্যুয়ার বা কম্পানি স্টক এক্সচেঞ্জে আবেদন করবে। কোম্পানির পক্ষে কাজ করতে একজন মার্চেন্ট ব্যাংকার নিয়োগ করবে। ৩০ কার্যদিবসের আবেদন গ্রহণ অথবা বাতিলের বিষয়ে অবহিত করবে স্টক এক্সচেঞ্জ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here