বাজেট পুঁজিবাজার বান্ধব নয় : সিএসই

0
110

স্টাফ রিপোর্টার : প্রস্তাবিত বাজেটে পুঁজিবাজারের উন্নয়নে কিছু নেই বলে মন্তব্য করেছেন চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সাইফুর রহমান মজুমদার। সম্প্রতি সিএসইর ঢাকা অফিসে বাজেট পরবর্তী এক সংবাদ সম্মেলনে এ সব কথা বলেন সিএসইর এমডি।

সাইফুর রহমান মজুমদার বলেন, আমরা পুঁজিবাজারের টেকসই উন্নয়ন এবং গুণগত সম্প্রসারণের জন্য ব্যাপক কৌশল প্রণয়নের প্রস্তাব দিয়েছিলাম, যা ঘোষিত বাজেটে প্রতিফলিত হয়নি। তিনি বলেন, অর্থমন্ত্রীর উপস্থাপিত বাজেটে চলমান অর্থনীতির অগ্রযাত্রায় পুঁজিবাজার স¤প্রসারণ এবং উন্নয়নের লক্ষে কোনো কিছুই নেই।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন সিএসইর পরিচালক সাইদুর রহমান, ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার মো. গোলাম ফারুক।

সিএসইর এমডি বলেন, প্রস্তাবিত বাজেটে ব্যাংক, বিমা ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের জন্য করপোরেট কর ২ দশমিক ৫ শতাংশ কমানো হলেও তালিকাভুক্ত ও তালিকাবহির্ভূত কোম্পানির কোনো করপোরেট কর কমানো হয়নি। তিনি বলেন, ব্যাংক বিমা ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান পুঁজিবাজারের অন্তর্ভুক্ত হলেও তাদের পুঁজিবাজার হিসেবে সুবিধা দেয়া হয়নি, আর্থিক খাত হিসেবে করপোরেট কর কমানো হয়েছে।

সাইফুর রহমান আরো বলেন, পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হওয়ার মতো যোগ্য অনেক কোম্পানি আছে। কিন্তু তারা তালিকাভুক্ত হতে আগ্রহী নয়। যতক্ষণ পর্যন্ত যোগ্য কোম্পানিগুলো পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত না হবে, ততক্ষণ পর্যন্ত বাজার টেকসই হবে না।

তিনি বলেন, পুঁজিবাজারের বিদ্যমান অস্থিরতা দূর করতে হলে নতুন বহুজাতিক ও সরকারি কোম্পানিগুলোকে তালিকাভুক্ত করতে সরকারকে আইন সংস্কারের মাধ্যমে উদ্যোগ নিতে হবে। পুঁজিবাজার আকারে খুব ছোট, ডেপথ কম। টেকসই অবস্থানে আনার জন্য তারল্য বৃদ্ধির পাশাপাশি নার্সিং করা প্রয়োজন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, প্রস্তাবিত বাজেটে এখনো পুঁজিবাজার বিকাশে কিছু বিষয়াবলি বিবেচিত হওয়ার সুযোগ রয়েছে। তাই বাজেটে চ‚ড়ান্ত অনুমোদনের আগে সরকারি কোম্পানি এবং বহুজাতিক কোম্পানিগুলো পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত করতে প্রয়োজনে আইনি সংস্কার করতে হবে।

পাশাপাশি ব্যাংক, বিমা ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের মতো সব তালিকাভুক্ত কোম্পানির করপোরেট কর কমাতে হবে। সেই সঙ্গে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ও তালিকাবহিভর্‚ত কোম্পানির করের ব্যবধান কমপক্ষে ১৫ শতাংশ করা উচিত।

সংবাদ সম্মেলনে আরো বলা হয়, ব্যাংক ও আর্থিক খাত পুঁজিবাজারের বাজার মূলধনের ৫০ শতাংশের বেশি। এই খাতের অস্থিরতা পুঁজিবাজারকে প্রভাবিত করে। এই খাতের চলমান অস্থিরতা নিরসন এবং দুর্বলতা চিহ্নিত করে যথাযথ কৌশল প্রণয়নের জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here