ডেস্ক রিপোর্টঃ বৃহস্পতিবার তফসিলি ব্যাংকগুলোকে বাংলাদেশ ব্যাংক প্রভিশন (নিরাপত্তা সঞ্চিতি) রাখার বাধ্যবাধকতায় ছাড় দিয়েছে। এখন থেকে গ্রাহকের পক্ষে সংগ্রহ করা বিল ও গ্যারান্টি প্রদানের বিপরীতে ব্যাংকগুলোকে আর তার মুনাফা থেকে প্রভিশনিং করতে হবে না। বৃহস্পতিবার এ-সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে বাংলাদেশ ব্যাংক।

২০১২ সালের সর্বশেষ প্রজ্ঞাপন অনুসারে উল্লিখিত দুই অফ ব্যালেন্স শিট এই দুই সূচকের বিপরীতে প্রভিশন রাখার নির্দেশনা দেওয়া হয়। নতুন নির্দেশনা জারি করে বাংলাদেশ ব্যাংক বলছে, অফ ব্যালেন্স শিট উপাদান (সূচক) হিসেবে গ্রাহকের হয়ে বিল সংগ্রহ এবং কোনো গ্রাহকের হয়ে ব্যাংক গ্যারান্টি প্রদানে ব্যাংকগুলোকে এক শতাংশ হারে প্রভিশন রাখতে হয়।

পর্যবেক্ষণ করে দেখা গেছে, গ্রাহকের হয়ে বিল সংগ্রহে ব্যর্থতা ব্যাংকগুলোর কোনো ব্যর্থতা নয়। কোনো গ্রাহক বিল প্রদানে ব্যর্থ হলে তার দায় ব্যাংককে নিতে হচ্ছে না। ফলে এর বিপরীতে প্রভিশন রাখার দরকার নেই। একইভাবে ব্যাংক গ্যারান্টির বিপরীতেও প্রভিশন শর্ত শিথিল করা হলো। কারণ একক কোনো ব্যাংক গ্রাহকের গ্যারান্টি থাকে না। এক ব্যাংকের গ্যারান্টির বিপরীতে আন্তর্জাতিক ব্যাংকগুলো গ্যারান্টিও দিচ্ছে একই গ্রাহককে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ তথ্যমতে, প্রভিশন রাখতে ব্যর্থ হয়েছে ১২টি ব্যাংক। এর মধ্যে ৪টি রাষ্ট্রায়ত্ত বাণিজ্যিক ব্যাংক। আর আটটি হচ্ছে বেসরকারি খাতের ব্যাংক। এ ব্যাংকগুলোর কারণে সার্বিকভাবে ব্যাংক খাতে প্রভিশন ঘাটতি দাঁড়িয়েছে সাত হাজার ৯৫৮ কোটি টাকা।

চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিক (জানুয়ারি-মার্চ ১৮) শেষে ব্যাংক খাতে প্রভিশন প্রয়োজনীয় প্রভিশন দাঁড়ায় ৪৯ হাজার ২৩৯ কোটি টাকা। বিপরীতে ব্যাংকগুলো রেখেছে ৪১ হাজার ২৮০ কোটি টাকা। ২০১৭ সালের ডিসেম্বর শেষে ব্যাংক খাতে প্রভিশন ঘাটতি (নিরাপত্তা সঞ্চিতি) দাঁড়ায় ৯ হাজার ৩৭৫ কোটি টাকা। ওই সময় ৯ ব্যাংকের প্রভিশন ঘাটতি ছিল।

প্রসঙ্গত, কেন্দ্রীয় ব্যাংক আমানতকারীদের সুরক্ষা দিতে ঋণের শ্রেণিমান বিবেচনা করে ব্যাংকগুলোকে নির্ধারিত হারে প্রভিশন রাখতে নির্দেশ দিয়েছে। সাধারণ ঋণের বিপরীতে দশমিক ২৫ শতাংশ থেকে পাঁচ শতাংশ পর্যন্ত প্রভিশন রাখতে হয়। নিম্নমান ঋণের ক্ষেত্রে ২০ শতাংশ, সন্দেহজনক ঋণে ৫০ শতাংশ এবং মন্দ ঋণে শতভাগ প্রভিশন রাখতে হয়। ব্যাংকগুলোকে অর্জিত মুনাফা থেকে এ প্রভিশনিং করতে হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here