প্রত্যেক আইপিও আবেদনে দিতে হবে বাড়তি ৫ টাকা

1
3688

বিশেষ প্রতিনিধি : প্রত্যেক আইপিও আবেদনের ক্ষেত্রে দিতে হবে অতিরিক্ত ৫টাকা। ট্রেড হোল্ডার চাইলে আবেদনের সঙ্গেও কেটে নিতে পারেন এই টাকা। আগামীতে যে সব আইপিও অনুমোদন পাবে সেগুলোর জন্য বাড়তি টাকা গুণতে হবে বিনিয়োগকারীদের।

কোম্পানির আইপিও প্রক্রিয়ায় ব্যয়ভার কমাতে এমন সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। শিগগিরই এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হতে পারে। নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসির বিশেষ একটি সূত্র সোমবার এ তথ্য জানিয়েছে।

বিএসইসির সূত্র জানিয়েছে, ইতোমধ্যে যেসব কোম্পানির আইপিওর অনুমোদন দেওয়া হয়েছে সেগুলোর ক্ষেত্রে নতুন সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে না। আগামীতে যে সব আইপিও অনুমোদন পাবে সেগুলোর জন্য বাড়তি টাকা গুণতে হবে।

সূত্র দাবি করে, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) আইপিও আবেদনের ক্ষেত্রে প্রত্যেক আবেদনের বিপরীতে বাড়তি টাকা প্রদানের পরামর্শ দেয়। যে কারণে কোম্পানিতে আইপিও আবেদনকারীদের চাঁদার হার নিয়ে নতুন আইন করতে চায়। প্রতি আইপিও আবেদনের ওপর ব্রোকারেজ হাউসকে ২০ টাকা করে কমিশন ফি দেওয়ার জন্য বিএসইসিকে এ অনুরোধ জান‍ায়।

আবেদনের প্রেক্ষিতে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি এমন সিদ্ধান্ত নিতে পারে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএসইসির উর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা একথা বলেন। তিনি বলেন, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) আবেদনের প্রেক্ষিতে এ সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে বিএসইসি। তবে এটি এখনো চুড়ান্ত হয়নি। কমিশনের বৈঠকে আলাপ-আলোচনার পর বিষয়টি চুড়ান্ত করা হবে।

তিনি বলেন, এটি ডিএসই’র পক্ষ থেকে পরে ১০ টাকা করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। তবে বিএসইসি এটি পাঁচ টাকা করার জন্য সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এ বিষয়ে বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মূখপাত্র সাইফুর রহমান বলেন, ডিএসই এমন একটি প্রস্তাব দিয়েছে শুনেছি। তবে বিএসইসি এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নিয়েছে কী না, তা আমি জানি না। তবে বিষয়টি জেনে জানাবেন তিনি।

পেছনের খবর : আইপিও আবেদনে ব্রোকারেজ হাউসের ফি ২০ টাকা

আরো খবর : আইপিও অর্থ নিয়ে পরামর্শ

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here