পূর্ববর্তী সাপোর্ট লাইন ব্রেক আউট, লাল বেয়ারিশ ক্যান্ডেলে মার্কেটে আতঙ্ক

1
1901
স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসসি) ইনডেক্সে বৃহস্পতিবার, ২০ এপ্রিল ট্রেড শেষে লাল বর্ণের বেয়ারিশ ক্যান্ডেল দেখা দিয়েছে। মার্কেটে সারাদিনই ব্যাপক বিক্রির চাপ ছিল। বাইয়াররা কোন ভাবেই এই প্যানিক সেল থেকাতে পারে নি । তাই আজকে সূচক অনেক পয়েন্ট হ্রাস পেয়ে বেয়ারিশ ক্যান্ডেল তৈরি করেছে।
টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস অনুযায়ী সপ্তাহের শেষ দিনে ইনডেক্স প্রবল সেল পেশারে তার পূর্ববর্তী কঠিন সাপোর্ট লাইন ভেদ করেছে। সেই কারনেই অনেক বেশী পরিমাণ পয়েন্ট কমেছে মার্কেটে। বেশীর ভাগ কোম্পানির দাম কমেছে। কিছু কিছু কোম্পানির দর আগের দিনের চেয়ে ৯-১০% কমেছে। লেনদেনের দিক থেকেও মাত্র ৫৫৮ কোটি টাকার মত ট্রেড হয়েছে। সুতরাং এই সাপোর্ট লাইন ভেদ করাটা অনেক কিছুতেই প্রভাব ফেলেছে। দর পতনের এই ধারা ভাল সম্ভাবনা বিরাজ করছে এখন বাজারে। যদি উল্লেখযোগ্য পরিমাণ বাইয়ার বাজারে না আশে তাহলে মার্কেট আরও ফল করবে বলে মনে করা হচ্ছে।
ডিএসই সাধারন সূচক দিনের কিছুটা সময় পর থেকেই থেকেই নেগেটিভ অবস্থায় ছিল। ট্রেড শেষে ডিএসই সাধারন সূচক আগের চেয়ে ৩৩.৫ পয়েন্ট কমে বেয়ারিশ ক্যান্ডেল তৈরি করেছে। বৃহস্পতিবার সাধারণ সূচক বিগত দিনের ৫৫৫৫.১ পয়েন্ট থেকে কমে ৫৫২১.৬ পয়েন্টে অবস্থান করছে যা আগের দিনের তুলনায় .০৬% কম। বাজারে সর্বমোট ৩২৪টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার লেনদেন হয়েছে যার মধ্যে দাম বৃদ্ধি পেয়েছে ৮৩ টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার এর, হ্রাস পেয়েছে ১৯৬টির আর অপরিবর্তিত আছে ৪৫টি কোম্পানির শেয়ারের দাম। আজকের মোট লেনদেনের মূল্য দাঁড়িয়েছে ৫৫৭.৮ কোটি টাকায় আর মোট লেনদেন হয়েছে ১লাখ ৩ হাজার ৮২৩টি শেয়ার।
পরিশোধিত মূলধনের দিক থেকে দেখা যায়, সব ধরনের শেয়ারের দাম কমেছে । দেখা যাচ্ছে ৫০ থেকে ১০০ কোটি টাকার শেয়ার এবং ২০ থেকে ৫০ কোটি টাকা পরিশোধিত মূলধনী প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দর কমেছে ২০.৭৪% এবং ১৮.২১%। সেই সাথে ১০০ থেকে ৩০০ কোটি মূলধনী প্রতিষ্ঠানের দাম কমেছে ১৪.৪৯%। ৩০০ কোটি টাকার ওপরে পরিশোধিত মূলধনী প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের লেনদেন আগের দিনের তুলনায় কমেছে ১৮.৩%।
পিই রেশিওর ভিত্তিতে দেখলে দেখা যায় যে কিছু শেয়ার কমেছে আর কিছু শেয়ারের দাম বেড়েছে। ০-২০ পিই রেশিওর শেয়ারের দাম কমেছে ২৩.৪% । সেই সাথে ২০-৪০ পিই রেশিওর শেয়ারের দর ৭.৩৫%।  তবে ৪০ এর বেশী পিই রেশিওর শেয়ারের দর বেড়েছে ৫.২৩%।
ক্যাটাগরির দিক থেকেও দেখা যায় একই চিত্র । এ ক্যাটাগরিও কমেছে ১৬.৫৪ শতাংশ। এছাড়া বি বেড়েছে ০.২৮ শতাংশ,  এন কমেছে  ৮.০৯ শতাংশ এবং জেড ক্যাটাগরি বেড়েছে ৯ শতাংশ।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here