স্টাফ রিপোর্টার: ৩১ মে, বৃহস্পতিবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ সূচকে বেয়ারিশ ক্যান্ডেল দেখা গেছে। দিনের শুরুতে সূচক কিছুটা বৃদ্ধি পেলেও পরবর্তীতে আস্তে আস্তে হ্রাস পায়। ১২টার পর আবারও কিছুটা বাই প্রেশার আসলেও ১ টার পর সেল প্রেশার চলে আসে। তারই ধারাবাহিকতায় দিন শেষে সেল প্রেশারের সাথে সাথে প্রচুর ভলিউম লক্ষ্য করা যায়। ফলে সূচক ৫১.৮৮ পয়েন্ট বা ০.৯৬% কমে বেয়ারিশ ক্যান্ডেল তৈরি করে।

টেকনিক্যাল এনালাইসিস অনুযায়ী, বর্তমানে মেজোর সাপোর্টে অবস্থান করছে মার্কেট। বাজেটকে কেন্দ্র করে আগামী দিনগুলোতে যদি বাই প্রেশার চলে আসে তাহলে ‘W’ প্যাটার্ন করে সাপোর্ট লেভেল থেকে রিট্রেস করার সম্ভাবনা আছে মার্কেটের। অন্যথায় সাপোর্ট ব্রেক-ডাউন করলে অনেক নীচ পর্যন্ত চলে যাবে মার্কেট।

এদিকে এমএসিডি লাইন একেবারে সিগন্যাল লাইনের কাছাকাছি অবস্থান করছে। হিস্টোগ্রাম অনুযায়ী ডাউন ট্রেন্ডের ধারা হ্রাস পেয়েছে এবং মার্কেটে ডাইভার্জেন্সের সম্ভাবনা জাগ্রত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ডিএসইতে ৩৬১ কোটি ৮৮ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে যা আগের দিনের চেয়ে প্রায় ৯৯ কোটি ৪২ লাখ টাকা কম। বুধবার ডিএসইতে ৪৬১ কোটি ৩০ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছিল। আজ ডিএসইতে মোট লেনদেনে অংশ নিয়েছে ৩৩৭টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৭৯টির, কমেছে ২১৪টির। আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৪টি কোম্পানির শেয়ার দর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here