পুঁজিবাজারে বড় ধরনের দরপতন

0
1618

মেহেদী আরাফাত : ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ এর – ডিএসইএক্স ইনডেক্স দিনের প্রথম ভাগে বিক্রয়চাপের ফলে নিম্নমুখী  প্রবনতা নিয়ে হ্রাস পেতে থাকে এবং পরবর্তীতে দিনভর বিক্রয়চাপ লক্ষ্য করা যায় এবং দিনের শেষভাগে পুনরায় বিক্রয় চাপের ফলে ডিএসইএক্স ইনডেক্স পুনরায় নিন্মমুখি হতে থাকে এবং  ৫০.২৯ পয়েন্ট  হ্রাস  পেয়ে বিয়ারিশ ক্যান্ডেলস্টিক   তৈরি করে। ডিএসই এক্স ইনডেক্স ৫০.২৯ পয়েন্ট হ্রাস পেয়ে ৮৬৭.০৮ পয়েন্টে অবস্থান করছে, যা আগের দিনের তুলনায় ১.০৮% হ্রাস পেয়েছে।

রাজনৈতিক পরিস্থিতির কারণে বাজারে অনেকদিন ধরেই মন্দাভাব বিরাজ করছে। এর মধ্যে নতুন শেয়ারের লেনদেন বাজারের পতনকে তরান্বিত করেছে। বাজারের স্থিতিশীলতার জন্য রাজনৈতিক পরিস্থিতির উন্নতি অতীব জরুরী। তা না হলে ডিএসই এক্স ইনডেক্স তার পরবর্তী সাপোর্ট ভেঙ্গে অনেক নিচে যেতে পারে।

বর্তমানে ডিএসই এক্স ইনডেক্স এর পরবর্তী সাপোর্ট ৪৮০০ পয়েন্টে এবং রেজিটেন্স ৫০০০  পয়েন্টে অবস্থান করছে। বাজারে এম.এফ.আই এর মান ছিল ৪৩.৭৬ এবং আল্টিমেট অক্সিলেটরের মান ছিল ৪১.৯৫। এম.এফ.আই এবং আল্টিমেট অক্সিলেটর কিছুটা নিন্মমুখি আবস্থান করছে ।

ডিএসইতে ৭ কোটি ৬৭ লাখ ২৭ হাজার ৮৭৭  টি শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড লেনদেন হয়, যার মূল্য ছিল ২৮৫.১৪ কোটি টাকা। ডিএসইতে লেনদেন বৃদ্ধি পেয়েছে ৩৩ কোটি টাকা। ঢাকা শেয়ারবাজারে ৩০৪ টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের লেনদেন হয়েছে, যার মধ্যে দাম বেড়েছে ৪৪ টির, কমেছে ২৩২ টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ২৮ টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম।hbhbb

পরিশোধিত মূলধনের দিক থেকে দেখা যায়, আজ বাজারে চাহিদা বেশি ছিল ৫০-১০০ এবং ৩০০ কোটি টাকার ওপরে পরিশোধিত মূলধনী প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের যা আগেরদিনের তুলনায়  আজ ৩৮.৯২% এবং ২২.২৫% বৃদ্ধি পেয়েছে। অন্যদিকে হ্রাস পেয়েছে ০-২০ কোটি টাকার  পরিশোধিত মূলধনী প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের যা আগেরদিনের তুলনায় ৩৮.৯২% কম। অন্যদিকে ২০-৫০ এবং ১০০-৩০০ কোটি টাকার পরিশোধিত মুলধনী প্রতিষ্ঠানের লেনদেনের পরিমান গতকালের তুলনায় আজ ২১.৮৭% এবং ৫.৪১% বৃদ্ধি পেয়েছে।

পিই রেশিও ৪০ এর ওপরে এর মধ্যে  থাকা শেয়ারের লেনদেন আগের দিনের তুলনায় ১৮.৬৯% হ্রাস পেয়েছে । অন্যদিকে পিই রেশিও ০-২০ এবং ২০-৪০ এর মধ্যে থাকা শেয়ারের লেনদেন আগের দিনের তুলনায় ৯.৯৮% এবং ৪০.৩২% হ্রাস পেয়েছে।

ক্যাটাগরির দিক থেকে এগিয়ে ছিল ‘এ’, ‘এন’ এবং ‘জেড’ ক্যাটাগরির শেয়ারের লেনদেন যা আগেরদিনের তুলনায় যথাক্রমে ৪.৪৪%, ১৪.৮৩% এবং ৩০৬.৪৮%  বেশী ছিল। হ্রাস পেয়েছে ‘বি’ ক্যাটাগরির শেয়ারের লেনদেন যা আগেরদিনের তুলনায় ২৯.০৯% কম ছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here