পিজিসিবি-এনার্জিপ্যাক চুক্তি, বগুড়ায় হচ্ছে বিদ্যুতের গ্রীড সাবস্টেশন

0
577

স্টাফ রিপোর্টার : কুড়িগ্রাম জেলা ও শেরপুরে (বগুড়া) বিদ্যুৎ সঞ্চালন সক্ষমতা বাড়াতে নতুন দুইটি গ্রীড সাবস্টেশন নির্মাণ করছে পাওয়ার গ্রীড কোম্পানী অব বাংলাদেশ লিমিিটেড (পিজিসিবি)। একই সঙ্গে আরও ৬টি গ্রীড সাবস্টেশনের ক্ষমতা বৃদ্ধির কাজ চলবে।

কাজগুলো সম্পন্ন করতে সম্প্রতি পিজিসিবি প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এনার্জিপ্যাক-দাইউ যৌথ কনসোর্টিয়ামের সঙ্গে দ্বি-পাক্ষিক চুক্তি স্বাক্ষর করেছে পিজিসিবি।

বগুড়া জেলায় বিদ্যমান সাবস্টেশনের মাধ্যমে প্রায় ৭০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ দেয়া হয়। এ জেলার শেরপুরে সাবস্টেশন নির্মিত হলে বিদ্যুতের গুণগত মান বাড়বে। কুড়িগ্রাম জেলায় এতদিন বিদ্যুতের গ্রীড সাবস্টেশন ছিল না।

জেলায় ১০-১২ মেগাওয়াট বিদ্যুতের চাহিদা পার্শ্ববর্তী জেলা থেকে বিদ্যুৎ সঞ্চালনের মাধ্যমে পূরণ করা হয়। নতুন গ্রীড সাবস্টেশন নির্মাণ হলে কুড়িগ্রামে বিদ্যুৎ পরিস্থিতির উন্নতি হবে।

পিজিসিবি’র গৃহীত ‘এ্যানহেন্সমেন্ট অব ক্যাপাসিটি অব গ্রীড সাবস্টেশনস এ- ট্রান্সমিশন লাইনস ফর রুরাল ইলেকট্রিফিকেশন (ইসিজিএসটিএল) প্রকল্প’ এর আওতায় সাবস্টেশন নির্মাণ ও সম্প্রসারণ কাজ করা হচ্ছে।

চুক্তিপত্রে বলা হয়, শেরপুর (বগুড়া) ও কুড়িগ্রামে আগামী দুই বছরের মধ্যে নতুন ১৩২/৩৩ কেভি গ্রীড সাবস্টেশন নির্মাণ করা হবে। এছাড়া ঠাকুরগাঁও, পলাশবাড়ী, সিরাজগঞ্জ, নাটোর ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ সাবস্টেশনে ট্রান্সফরমারের ক্ষমতা বাড়ানো হবে। রংপুর গ্রীড সাবস্টেশনে ১৩২ কেভি বে সম্প্রসারণ করা হবে।

অনুষ্ঠানে পিজিসিবি’র পক্ষে কোম্পানী সচিব মোঃ আশরাফ হোসেন এবং কনসোর্টিয়ামের পক্ষে এনার্জিপ্যাক মহাব্যবস্থাপক (অতিরিক্ত) এস এম আমিনুল হক ও দাইউ কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ জু-ইল-জিওন চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেন।

চুক্তি অনুযায়ী, এনার্জিপ্যাক-দাইউ কনসোর্টিয়াম আগামী দুই বছরের মধ্যে নির্মাণকাজ সম্পন্ন করে পিজিসিবি’র কাছে হস্তান্তর করবে। কাজের নির্মাণ ব্যয় ১৪৩ কোটি টাকা। বিশ্বব্যাংক, বাংলাদেশ সরকার ও পিজিসিবি সম্মিলিতভাবে এ কাজে অর্থায়ণ করছে।

চুক্তি স্বাক্ষর পর্বে পিজিসিবি ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাসুম-আলবেরুনী, নির্বাহী পরিচালক (পিএ-ডি) চৌধুরী আলমগীর হোসেন, নির্বাহী পরিচালক (ওএ-এম) মো. এমদাদুল ইসলাম, নির্বাহী পরিচালক (এইচআর) মোহাম্মদ শফিকউল্লাহ, প্রধান প্রকৌশলী (প্রকল্প) ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, প্রকল্প পরিচালক মো. শহীদ হোসেন এবং এনার্জিপ্যাকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রবিউল আলমসহ উভয়পক্ষে উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here