পাট শিল্পের উন্নয়নে ১০ হাজার কোটি টাকার তহবিল

0
914

সিনিয়র রিপোর্টার : রফতানি খাত উন্নয়নে প্রায় ৩০ বছর আগে সরকারি উদ্যোগে রফতানি উন্নয়ন তহবিল (ইডিএফ) গঠন করা হলেও এ সুবিধার বাইরে রয়েছে পাট শিল্প। ইডিএফের আদলেই এবার পাট শিল্পের উন্নয়নে ১০ হাজার কোটি টাকার তহবিল গঠনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। সম্প্রতি বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের পাট-বিষয়ক উপদেষ্টা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়।

বাংলাদেশ ব্যাংকসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিদের নিয়ে গত মাসে বৈঠকটি করে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়। বৈঠকে পাট শিল্পের উন্নয়নে তহবিল গঠনের বিষয়টি উত্থাপন হলে বাংলাদেশ ব্যাংক প্রতিনিধি জানান, বাজেট থেকে বরাদ্দ দিয়ে ইডিএফের আদলে পাট শিল্প উন্নয়ন তহবিল গঠন করা যেতে পারে। অর্থ মন্ত্রণালয় যদি গ্যারান্টি বা বন্ড দেয়, তাহলে পাট শিল্প খাতের উন্নয়নের জন্য স্বল্পসুদে বাংলাদেশ ব্যাংক এ তহবিল গঠন করবে।

বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ২ শতাংশ সুদে ১০ হাজার কোটি টাকার পাট শিল্প উন্নয়ন তহবিল গঠনে বাংলাদেশ ব্যাংক ও অর্থ মন্ত্রণালয়কে চিঠি দেয়া হবে। পরবর্তীতে এ তহবিলের গ্যারান্টি চেয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়কে চিঠি দেবে বাংলাদেশ ব্যাংক। অর্থ মন্ত্রণালয় গ্যারান্টি দেয়ার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে সম্মতি দিয়েছে।

বাংলাদেশ জুট মিলস করপোরেশনের (বিজেএমসি) চেয়ারম্যান ড. মো. মাহমুদুল হাসান বলেন, দেশের স্বার্থে মৃতপ্রায় পাট খাতকে পুনরুদ্ধার করা আমাদের সবার দায়িত্ব। নীতিগত পরিবর্তন এনে রফতানি উন্নয়ন তহবিলের আদলে ২ শতাংশ সুদে পাট শিল্প খাত যেন ঋণ নিতে পারে, সেজন্য ১০ হাজার কোটি টাকার একটি তহবিল গঠন জরুরি।

জানা গেছে, রফতানি শিল্পকে সহযোগিতা করতে ১৯৮৮ সালে রফতানি উন্নয়ন তহবিল গঠন করে বাংলাদেশ ব্যাংক। এ তহবিল থেকে স্বল্প সুদে ঋণ নিয়ে রফতানি শিল্প বিদেশ থেকে কাঁচামাল আমদানি করে। যেসব শিল্প এ তহবিলের সুবিধা নিয়ে থাকে, তার মধ্যে অন্যতম হলো— বস্ত্র, পোশাক, চামড়া, পাদুকা, সিরামিক ও প্লাস্টিক। এছাড়া আরো বেশকিছু খাত আছে, যারা এ তহবিলের সুবিধা নিয়ে থাকে। কিন্তু পাটপণ্য রফতানি করলেও এ সুবিধা পান না সংশ্লিষ্ট খাতের রফতানিকারকরা।

পাটপণ্য-সংশ্লিষ্টরা বলছেন, মূলত বিদেশী উত্স থেকে কাঁচামাল এনে পণ্য উৎপাদনের পর রফতানি করলে এ তহবিলের সুবিধা পান রফতানিকারকরা। কিন্তু পাট শিল্প স্থানীয় উত্স থেকে কাঁচামাল সংগ্রহ করে। তারপর এ কাঁচামাল থেকে উৎপাদিত পণ্য বিদেশে রফতানি করা হয়। এ কারণেই ইডিএফ তহবিল ব্যবহার করতে পারছেন না তারা।

বেসরকারি পাটকল মালিক প্রতিনিধিদের সংগঠন বাংলাদেশ জুট মিলস অ্যাসোসিয়েশনের (বিজেএমএ) সভাপতি শামস-উজ জোহা বলেন, পাটপণ্য রফতানিতে মূল্য সংযোজন হয় শতভাগের বেশি। কিন্তু স্থানীয় উেসর কাঁচামাল ব্যবহার করায় খাতটি ইডিএফের সুবিধা পাচ্ছে না। মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে সরকারের কাছে আমরা অনুরোধ জানিয়েছি, যেন ইডিএফ থেকে না হলেও এর আদলে একটি তহবিল গঠন করে আমাদের বিকল্প সুবিধা দেয়া হয়। এতে পাট শিল্প মালিক ও কৃষকসহ সব পক্ষই উপকৃত হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here