শ্যামল রায়: মারুফ রায়হান, একটি ফাইন্যান্সিয়াল ইন্সটিটিউটে কাজ করছেন দীর্ঘদিন ধরে। দেশের অর্থনীতি এবং শেয়ার বাজার নিয়ে তার জানাশোনা অনেক এবং এক্ষেত্রে তার আগ্রহ অনেক। পুজিবাজারে বিনীয়োগ করছেন অনেকদিন যাবৎ। সম্প্রতি স্টক বাংলাদেশকে পুজিবাজার নিয়ে জানালেন তার বিশ্লেষন—

আমাদের পুজিবাজার এই মুহুর্ত্যে স্বাভাবিক আচরন করছে না। কারন অব্যহতভাবে দরপতন বিনিয়োগকারীদের হতাশ করছে। বিনিয়োগকারীরা  যে নতুন উদ্যামে আবারও মার্কেটে প্রবেশ করবেন সে ভরসা তারা পারছেন না। গত বছর শুরুর দিকে মার্কেটে বেশ উর্দ্ধগতি লক্ষ করা যায়। মাঝখানে কিছুটা ঝিমিয়ে পড়ে। আবার শেষের দিকে দীর্ঘদিন ধরে অবমূল্যায়িত অবস্থায় পরে থাকা ব্যংকখাত লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়তে থাকে। বিনিয়োগকারীদের মনে আশার সঞ্চার হয়। কিন্তু সাম্প্রতিক বাজার সে অবস্থা ধরে রাখতে পারেনি। গত বছর এই সময় বাজার অনেক ভালো ছিল। বাজার সংশ্লিষ্টরা আশা করছিল বাজার হয়তো ঘুড়ে দাঁড়াবে। কিন্তু সেই লক্ষন এখন পর্যন্ত দেখা যাচ্ছে না। বিনিয়োগকারীরা দো’টানায় পরে গেছে।

অন্যদিকে পুজিবাজার নিয়ে সরকারের বিভিন্ন সময়ে নানা পদক্ষেপের কথা শোনা গেলেও বাস্তবে তা শুরই হয়নি। যেহেতু এটা নির্বাচনের বছর স্বাভাবিক ভাবে স্মার্ট বিনিয়োগকারীরা একটা ভাল কিছুর প্রত্যাশা নিয়ে অপেক্ষা করে যাচ্ছে দীর্ঘদিন। কিন্তু বাজারের ইন্ডেক্স ভরসা দিচ্ছে না।

প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা সেভাবে মুভ করছে না। ফলে অসহনীয় পতনে সাধারণ বিনীয়োগকারীরা পুজি হারানোর আশঙ্কায় আছেন। প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা এখন অনেকটা ডে-ট্রেডারদের মত আচরন করছে। তারা দীর্ঘমেয়াদী বিনিয়োগে যাচ্ছে না। ফলে ইন্ডেক্স খুব বেশি বাড়ছে না। এরকম চলতে থাকলে বাজারে নিয়ে খুব বেশি আশান্বিত হওয়ার থাকবে না।

আমরা সাধারণ বিনিয়োগকারীরা অব্যাহত পতনেও আশা নিয়ে পড়ে আছি। উত্থান পতন বাজারের নিয়ম কিন্তু যদি পতন অব্যাহত থাকে তাহলে শেয়ার বাজার থেকে বিনিয়োগকারীরা এক সময় ঠিকই মুখ ফিরিয়ে নেবে। কাজেই আমাদের সবার প্রত্যাশা সামনে একটা ভালো বাজার তৈরী হবে।

1 COMMENT

MD Ilias শীর্ষক প্রকাশনায় মন্তব্য করুন Cancel reply

Please enter your comment!
Please enter your name here