দেড় মাসে তিন গুণ দর বৃদ্ধি, তদন্তে নামছে বিএসইসি

0
1061

স্টাফ রিপোর্টার : কোন কারণ ছাড়াই সম্প্রতি ড্রাগন সোয়েটার অ্যান্ড স্পিনিং লিমিটেডের শেয়ারদর অস্বাভাবিকভাবে বেড়েছে। গত ১৮ জুন যে শেয়ারের দাম ছিল ১৭ টাকা ৭০ পয়সা, ৫ আগস্ট তা ৫০ টাকা ৩০ পয়সায় লেনদেন হয়। যদিও ৬ কার্য দিবেসে শেয়ার দর নেমে হয়েছে ৩৯ টাকা।

দেড় মাসে কোম্পানিটির শেয়ারদর বেড়েছে ৩২ টাকা ৬০ পয়সা বা ১৮৫ শতাংশ। শেয়ার নিয়ে কারসাজির সন্দেহে তদন্ত কমিটি গঠন করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। বিএসইসি বিশেষ সূত্র এ তথ্য জানায়।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, গত বছরের ১৬ আগস্ট কোম্পানিটির শেয়ার হাতবদল হয়েছিল ২২ টাকা ৭০ পয়সায়। চলতি বছরের জুনের ১৮ তারিখ পর্যন্ত তা ১৭ থেকে ২২ টাকায় হাতবদল হয়েছিল। এরপর হঠাৎ করে কোনো কারণ ছাড়াই শেয়ারটির দর বাড়তে থাকে। গত ৫ আগস্ট তা ৫০ টাকা ৩০ পয়সায় হাতবদল হয়। সর্বশেষ সোমবার শেয়ারটি হাতবদল হয়েছে ৩৯ টাকা ২০ পয়সায়।

শেয়ার দর বৃদ্ধির চিত্র মঙ্গলবার সকালে ডিএসই থেকে নেয়া

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) পক্ষ থেকে দর বৃদ্ধির কারণ জানতে চেয়ে গত দেড় মাসে কোম্পানিটিকে তিন দফায় কারণ দর্শানোর চিঠি দেওয়া হয়। প্রতিবারই ড্রাগন সোয়েটার কর্তৃপক্ষ জানায়, দর বৃদ্ধির কোনো কারণ তাদের জানা নেই।

দাম বৃদ্ধির পেছনে কোম্পানির লোকজনও জড়িত বলে ধারণা করা হচ্ছে। এ জন্য গত দুই মাস ধরেই কোম্পানিটিতে উদ্যোক্তা পরিচালকদের শেয়ার ধারণ কমে যাচ্ছে।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) তথ্য বলছে, গত বছরের জুন মাসে উদ্যোক্তা পরিচালকদের কাছে কোম্পানিটির মোট শেয়ারের ৪০ দশমিক ১১ শতাংশ থাকলেও চলতি বছরের জুন শেষে তা নেমে আসে ৩৭ দশমিক ৮২ শতাংশে। বাকি শেয়ারের মধ্যে বর্তমানে প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে ৩০ দশমিক ৪০ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে রয়েছে ৩১ দশমিক ৭৮ শতাংশ।

ডিএসইর দায়িত্বশীল পর্যায়ের এক সূত্র জানিয়েছে, গুটিকয়েক ব্যক্তি ড্রাগন সোয়েটারের শেয়ার নিয়ে কারসাজি করছে। চক্রটি কৃত্রিমভাবে শেয়ারটির দর বাড়িয়েছে। যা বিনিয়োগকারীদের জন্য ক্ষতিকর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here