‘দুই মোড়লের দিকে চেয়ে বিনিয়োগ’

0
4289

শাহীনুর ইসলাম : পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত দুই বিএসআরএম কোম্পানির এজিএম নিয়ে সোমবার অনেক বিনিয়োগকারীর আগ্রহ বেড়েছে। কোম্পানির দুটি দৈনন্দিন লেনদেন কেমন চলেছে? গত ১৫ দিনের সাবির্ক চিত্র কেমন? একই সঙ্গে সোমবার শেয়ারপ্রতি দর ওঠা নামার চিত্রে অনেক বিনিয়োগকারী বেশ নজর দিচ্ছেন। যা অনেকের কাছে বিচিত্র!

বিডিবিএল সিকিউরিটিজের বিনিয়োগকারাী মাহফুজ বলেন, আজ (সোমবার) দুই মোড়লের এজিএম, দেখি কেমন করে। এজিএম শেষে কিছু আসবে। তিনি মোড়লের উত্থান-পতনের আভাস না দিলেও সচেতন দৃষ্টি রাখছেন। একই হাউসের বিনিয়োগকারী রাজু আহমেদের সঙ্গে কথা হয় কারওয়ানবাজারে। তিনি বলেন, মাদার প্রডাক্ট মোটামুটি ভালো্। নতুন বিএসআরএমকে খারাপ বলা যাবে না। কারণ, ইপিএস-ন্যাভ মন্দ বলা যায় না।

কারণ উল্লেখ করে তিনি বলেন, কোম্পানির এজিএম শেষ করার পর আর কিছু থাকে না। তখন কোম্পানির ব্যবসায় মনযোগ বেশি থাকে। আর এই সময়ে যদি কিছু শেয়ার কিনে রাখা যায়, তাহলে ভালো হয়।

কোম্পানি ভালো করবে নিশ্চয়তা কি- এমন প্রশ্নত্তোরে তিনি বলেন, কোম্পানি এজিএম সম্পন্ন করার পরে আর কিছুই থাকে না। যারা ডিভিডেন্ড ঘোষণা এবং ফেয়ার এজিএম করে তারা বরাবরই ভালো কিছু করে। তাদের প্রতি প্রত্যাশা যেমন বাড়ে অন্যদিকে কোম্পানি কর্তৃপক্ষেরও অনেক দায় থেকে যায়। যে কারণে ভালো করা সম্ভব হয়।

তাদের আলোচনার সূত্র ধরেই কারওয়ান বাজারের হ্যাক সিকিউরিটিজ ও এপেক্স সিকিউরিটিজে দেখা যায় একই চিত্র। এখানে অনেক বিনিয়োগকারী গভীর দৃষ্টি রাখছেন। চোখ-কান খুলে দুই মোড়লের দিকে চেয়ে আছেন। নিচে তুলে ধরা হলো দুই মোড়লের অন্য সব চিত্র-

বিএসআরএম স্টিলস : ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত হিসাব বছরের জন্য কোম্পানিটি ১৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এ সময় এর নিট মুনাফা হয়েছে ১২৩ কোটি ৯২ লাখ ২০ হাজার টাকা, শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) ৩ টাকা ৬৩ পয়সা, শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) ২৫ টাকা ৩৪ পয়সা। আগের বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুসারে যা ছিল যথাক্রমে ১৩৯ কোটি ৪৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা, ৪ টাকা ৮ পয়সা ও ২১ টাকা ৭৫ পয়সা।

সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় চট্টগ্রামের ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউটে এজিএমের আয়োজন করেছে ইস্পাতের রড প্রস্তুতকারক কোম্পানিটি। রেকর্ড ডেট ছিল ১২ এপ্রিল। এদিকে প্রথম প্রান্তিকেও এ কোম্পানির নিট মুনাফা প্রায় ২৫ শতাংশ কমে ৩০ কোটি টাকার ঘরে নেমে এসেছে।

২০০৯ সালে তালিকাভুক্ত বিএসআরএম স্টিলসের অনুমোদিত মূলধন ৫০০ কোটি ও পরিশোধিত মূলধন ৩৪১ কোটি ৮০ লাখ টাকা। কোম্পানির মোট শেয়ারের ৪৮ দশমিক ৩৮ শতাংশ উদ্যোক্তা-পরিচালকদের কাছে, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী ৩৮ দশমিক শূন্য ৭ শতাংশ, বিদেশী বিনিয়োগকারী দশমিক ৪১ ও ১৩ দশমিক ১৪ শতাংশ শেয়ার রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে।

ক্রেডিট রেটিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস লিমিটেডের (সিআরআইএসএল) হিসাবমতে, কোম্পানিটির দীর্ঘমেয়াদি ঋণমান ‘ডাবল এ’, স্বল্পমেয়াদে ‘এসটি-২’। ২০১৩ সালের নিরীক্ষিত প্রতিবেদন ও বাজারদরের ভিত্তিতে এ শেয়ারের মূল্য আয় (পিই) অনুপাত ১৬ দশমিক ৩৭, প্রথম প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত মুনাফার ভিত্তিতে যা ১৮ দশমিক ৭৬।

বিএসআরএম লিমিটেড : বিএসআরএম গ্রুপের দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠান হিসেবে এ বছরই শেয়ারবাজারে এসেছে কোম্পানিটি। গত হিসাব বছরের জন্য ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে এর পরিচালনা পর্ষদ। একই স্থানে বেলা ৩টায় এর এজিএম অনুষ্ঠিত হবে।

সমাপ্ত হিসাব বছরে এ কোম্পানির নিট মুনাফা হয়েছে ১১ কোটি ৬০ লাখ ৩০ হাজার টাকা, ইপিএস ৭৪ পয়সা,  এনএভিপিএস ৫৪ টাকা ৯৫ পয়সা। আগের বছর নিট মুনাফা ছিল ৭৮ কোটি ৮৭ লাখ টাকা। এদিকে প্রথম প্রান্তিকে এর মুনাফা হয়েছে ২ কোটি ৯৪ লাখ ৬০ হাজার টাকা, আগের বছরের একই সময়ে যা ছিল ৪ কোটি ৫ লাখ ৭০ হাজার টাকা।

২০১৩ সালের নিরীক্ষিত মুনাফার ভিত্তিতে এ শেয়ারের পিই অনুপাত ১৩ দশমিক ৯৮, প্রথম প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত মুনাফার ভিত্তিতে যা ৮৮ দশমিক ৩৩-এ ঠেকেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here