দরপতনের মূলে ২৩ প্রতিষ্ঠান

10
31807

BSEC- 1স্টাফ রিপোর্টার : দরপতনের কারণে আবারো পুঁজিবাজারে সাধারণ বিনিয়োগকারীরা অসন্তোষ প্রকাশ করেন। বিনিয়োগকারীদের বিক্ষোভের ফলে সূচক ও দরপতনের কারণ অনুসন্ধানে মাঠে নামে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) সার্ভিলেন্স বিভাগ। ইতোমধ্যে প্রতিষ্ঠানটি ২৩ টি প্রতিষ্ঠানকে সনাক্ত করেছে বলে একটি বিশেষ সূত্র জানায়।

বিএসইসির সূত্রটি জানায়, ইতোমধ্যে সার্ভিলেন্স বিভাগ দৈনিক লেনদেন পর্যবেক্ষণের জন্য সম্প্রতি কমিশন সার্ভিলেন্স সিস্টেম ব্যবহার করে তদন্ত করছে। এর মাধ্যমে পাওয়া ২৩ টি প্রতিষ্ঠানকে সন্দেহের তালিকায় রাখা হয়েছে। দরপতনের খলনায়ক হিসেবে চিহ্নিত প্রতিষ্ঠানগুলো কঠোর নজরদারীর মধ্যে রাখা হচ্ছে। বিএসইসির সার্ভিলেন্স সিস্টেম এই তদন্ত করছে।

তথ্যানুযায়ী সিকিউরিটিজ আইন ভঙ্গের জন্য দোষী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে যত দ্রুত সম্ভব শাস্তিমূলক ব্যব¯’া নেবে নিয়ন্ত্রক সং¯’া বিএসইসি। কমিশনের ৪৮৭তম সভায় বুধবার এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। বাজারে দর পতনের পরই কারণে অনুসন্ধানে বিএসইসির সার্ভিলেন্স বিভাগকে দায়িত্ব দেয়া হয়। প্রতিষ্ঠানটি ইতোমধ্যে ২৩ টি প্রতিষ্ঠানকে সনাক্ত করেছে। তবে তদন্তের স্বার্থে এখনি সে তালিকা প্রকাশ সম্ভব নয় বলে দায়িত্বশীল সূত্রটি মন্তব্য করে।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, বিএসইসি’র সার্ভিলেন্স বিভাগ দৈনিক লেনদেন পর্যবেক্ষণের জন্য সম্প্রতি কমিশন সার্ভিলেন্স সিস্টেম ব্যবহার করে আসছে। সার্ভিলেন্স সিস্টেমে প্রাপ্ত এলার্ট তদন্ত করে ইতিমধ্যেই বেশকিছু শর্ট সেলের বিষয়ে ব্যব¯’া গ্রহণের জন্য ১৮টি স্টক সিকিউরিটিজ/স্টক ডিলারের বিরুদ্ধে এনফোর্সমেন্ট কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এনফোর্সমেন্ট কার্যক্রমের অংশ হিসাবে ইতিমধ্যেই ১৩টি শর্ট সেলের বিষয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে।

এছাড়া ৫টি শর্ট সেলের বিষয়ে স্টক সিকিউরিটিজ/স্টক ডিলারের শুনানিও অনুষ্ঠিত হয়েছে। এছাড়া কিছু কিছু শেয়ারের অস্বাভাবিক মূল্য বাড়ার বিষয়টিও সার্ভিলেন্স বিভাগের দৃষ্টিগোচর হওয়ায় এ বিষয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এরমধ্যে জে এম আই সিরিঞ্জ অ্যান্ড মেডিকেল ডিভাইসেস লিমিটেডের শেয়ারের অস্বাভাবিক মূল্য বাড়ার কারণে গত ২ জুলাই গঠিত তদন্ত কমিটি কাজ করছে। ইতিপূর্বে আলহাজ টেক্সটাইল মিলস, বঙ্গজ লি., সিভিও পেট্রো কেমিকেল রিফাইনারি ও সামিট পূর্বাঞ্চল পাওয়ার কোম্পানি লিমিটেডের শেয়ারের অস্বাভাবিক মূল্য বাড়ার কারণে প্রয়োজনীয় ব্যব¯’া নিতে যথাক্রমে গত ২৪ এপ্রিল ও ১২ মার্চ তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছিল। এছাড়া অন্য বিষয়ে তদন্তের জন্য আরো ৭টি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছিল।

10 COMMENTS

  1. It’s ridiculous. they are investigating now it’s time to light the results and take some strong actions against them. the amount of profit general investor made in last 3 months 5 working days all gone with 5% capital. I am not sure but i got strong feeling that the website called http://www.bdstock.com is a dozy website and i think they are favouring a small group of people. (I repeat I am not 100%sure about bdstock.com but there behave suspicious)

Aminul Hoque শীর্ষক প্রকাশনায় মন্তব্য করুন Cancel reply

Please enter your comment!
Please enter your name here