স্টাফ রিপোর্টার : গত তিন মাসের ব্যাবধানে বিও এ্যাকাউন্ট কমেছে ৭০,৩৩৫ টি । এর কারন হিসেবে নবায়ন ফি জমা না দেয়াকে কারন হিসেবে দেখছে সেন্ট্রাল ডিপোজিটরি বাংলাদেশ লিমিটেড (সিডিবিএল)। এসব তথ্য কোম্পানিটির ওয়েব সাইট থেকে পাওয়া যায়।

তথ্য অনুযায়ী, গত ১০ই এপ্রিল ২০১৬ তারিখে সিডিবিএল এর ওয়েব সাইটে দেখা যায় সর্বমোট বিও এ্যাকাউন্ট ছিল ৩,২১০,৫৮৮ টি যা ১২ই জুলাই ২০১৬ এসে দাঁড়ায় ৩,১৪০,২৫৩ টিতে অর্থাৎ তিন মাসের ব্যাবধানে বিও এ্যাকাউন্ট কমেছে ৭০,৩৩৫ টি ।

১০ই এপ্রিল ২০১৬
১০ই এপ্রিল ২০১৬

জানা গেছে, বিও নবায়নের শেষ সময় ছিল ৩০ জুন। তবে ব্রোকারেজ হাউসগুলো বিনিয়োগকারীদের ২৫ জুন পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়েছিল। এরপরই হাউসগুলো থেকে বিও হিসাব বন্ধের তালিকা পাঠানো শুরু হয়। আর সর্বশেষ হিসাবে দেশের শেয়ারবাজারে মোট বিও হিসাবের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩১ লাখ ৪০ হাজারে। অর্থনীতিবিদরা বলছেন, বাজারের স্বচ্ছতায় এ ধরনের সিদ্ধান্ত ইতিবাচক।

১২ই জুলাই ২০১৬
১২ই জুলাই ২০১৬

জানা যায়, বর্তমানে বিও এ্যাকাউন্ট নবায়ন করতে ৫০০ টাকা লাগে। এর মধ্যে সিডিবিএল ১৫০ টাকা, হিসাব পরিচালনাকারী ব্রোকারেজ হাউস ১০০ টাকা, নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এ্যান্ড কমিশন (বিএসইসি) ৫০ টাকা এবং বিএসইসির মাধ্যমে সরকারী কোষাগারে ২০০ টাকা জমা হয়।

উল্লেখ্য, প্রতি বছর ৩০ জুনের মধ্যে এই ফি সিডিবিএলে জমা দিতে হয়। এ বছর ব্রোকারেজ হাউসগুলো বিনিয়োগকারীদের ২৫ জুন পর্যন্ত সময় দিয়েছিল। এরপরই নবায়ন ফি দিতে ব্যর্থ হওয়ায় এ্যাকাউন্টগুলো বন্ধ করা শুরু হয়। সরকার গত বছর এ খাত থেকে ৮১ কোটি টাকা পেয়েছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here