ঢাকায়ও হোটেল নির্মাণের পরিকল্পনা পেনিনসুলার

0
968

স্টাফ রিপোর্টার : চট্টগ্রামের পাশাপাশি ঢাকায়ও নতুন হোটেল নির্মাণের কথা জানিয়েছে দ্য পেনিনসুলা চিটাগং লিমিটেড। রোববার চট্টগ্রামের চিটাগং ক্লাব অডিটোরিয়ামে কোম্পানির বিশেষ সাধারণ সভা (ইজিএম) ও বার্ষিক সাধারণ সভায় (এজিএম) এ তথ্য জানিয়েছেন পেনিনসুলা চিটাগংয়ের চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান।

মাহবুবুর রহমান বলেন, শেয়ারহোল্ডারদের সহযোগিতায় হোটেল পেনিনসুলা এরই মধ্যে চট্টগ্রাম বিমানবন্দরের পাশে নতুন পাঁচতারকা হোটেল নির্মাণে হাত দিয়েছে। ২০১৮ সালের মধ্ হোটেলের নির্মাণকাজ শেষ হবে। শেয়ারহোল্ডারদের সহযোগিতায় ভবিষ্যতে ঢাকায় এ ধরনের হোটেল নির্মাণ করা হবে।

এজিএমে সর্বশেষ হিসাব বছরের জন্য ঘোষিত ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ও নতুন প্রকল্পে অনুমোদন দেন শেয়ারহোল্ডাররা। এ সময় কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোস্তফা তাহসিন আরশাদ, পরিচালক আয়েশা সুলতানা, সতন্ত্র পরিচালক ড. ফসিউল আলম ও কোম্পানি সচিব মোহাম্মদ নূরুল আজিম উপস্থিত ছিলেন।

গত হিসাব বছরে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৮৪ পয়সা। ২০১৫ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাব বছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের ১০ শতাংশ নগদ ও ৫ শতাংশ স্টক লভ্যাংশ দেয় কোম্পানিটি। সে হিসাব বছরে ইপিএস ছিল ১ টাকা ২৭ পয়সা।

এদিকে প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে। সর্বশেষ অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুসারে চলতি বছরের জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত পেনিনসুলা চিটাগংয়ের ইপিএস হয়েছে ৫০ পয়সা, যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ৩৮ পয়সা। ৩০ সেপ্টেম্বর কোম্পানির শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়ায় ৩১ টাকা ৬৫ পয়সা।

ডিএসইতে সর্বশেষ ২৭ টাকা ৭০ পয়সায় পেনিনসুলার শেয়ার হাতবদল হয়। গত এক বছরে সর্বোচ্চ দর ছিল ২৯ টাকা ২০ পয়সা ও সর্বনিম্ন ১৪ টাকা ১০ পয়সা।

পেনিনসুলা চিটাগং ২০১৪ সালে শেয়ারবাজারে আসে। এর অনুমোদিত মূলধন ৩০০ কোটি ও পরিশোধিত মূলধন ১১৮ কোটি ৬৬ লাখ ৭০ হাজার টাকা। রিজার্ভ ১৪৭ কোটি ৪৪ লাখ টাকা। কোম্পানির মোট শেয়ার সংখ্যা ১১ কোটি ৮৬ লাখ ৬৬ হাজার ৮০০। এর ৩৮ দশমিক ৩২ শতাংশ কোম্পানির উদ্যোক্তা-পরিচালকদের কাছে, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী ১৪ দশমিক ৭৪, বিদেশী বিনিয়োগকারী দশমিক ৩১ ও বাকি ৪৬ দশমিক ৬৩ শতাংশ শেয়ার রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে।

সর্বশেষ নিরীক্ষিত মুনাফা ও বাজারদরের ভিত্তিতে শেয়ারটির মূল্য-আয় (পিই) অনুপাত ২১ দশমিক ৭৩, সর্বশেষ অনিরীক্ষিত মুনাফার ভিত্তিতে যা ১৩ দশমিক ৮।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here