ড্রাগন সোয়েটারের সুতা বিক্রি মাসে ৩০ হাজার পাউন্ড

1
2846

সিনিয়র রিপোর্টার : ড্রাগন গ্রুপের কোম্পানির ড্রাগন সোয়েটার এন্ড স্পিনিং মিলস লিমিটেডের সুতা বিক্রি বেড়েছে। একই সঙ্গে কোম্পানির উৎপাদন ভালো হওয়ায় বাণিজ্যও অনেক ভালো। নিজস্ব কোম্পানির চাহিদা মিটিয়ে দৈনিক গড়ে ১০ হাজার পাউন্ড সুতা বিক্রি করা হচ্ছে বলে কোম্পানির বিশেষ একটি সূত্র জানায়।

সূত্র জানায়, কুমিল্লায় নিজস্ব কারখানায় উৎপাদিত সুতা কোম্পানির নিজস্ব চাহিদা মিটিয়ে গড়ে দৈনিক ১০ হাজার পাউন্ড বিক্রি করা হচ্ছে। মাস শেষে ৩০ হাজার থেকে ৪০ হাজার পাউন্ড বিক্রি করা হয়। এরমধ্যে গাজীপুরের টঙ্গীতে এভারওয়ে ইয়ার্ন লিমিটেডের সঙ্গে সুতা বিক্রির চুক্তি অনুযায়ী সেখানেও সুতা পাঠানো হচ্ছে।

কাঁচামাল হিসেবে তুলা ভারত থেকে বেশি আনা হচ্ছে। তবে আমরা দেশীয় তুলাকে বেশি গুরুত্ব দিয়ে যাই। চাহিদার ভিত্তিতে বিভিন্ন দেশে থেকে তুলা আমদানী করতে হয় বলে জানানো হয়েছে।

ড্রাগন সোয়েটারের ব্যবসার পরিধি বৃদ্ধি পাওয়ায় কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় দ্বিগুণের বেশি (ইপিএস) বাড়ার সম্ভবনা তৈরি হয়েছে।

কোম্পনির বিশেষ সূত্র জানায়, কোম্পানির উৎপাদিত সুতা নিজেদের চাহিদা মিটিয়ে অন্য কোম্পানি এবং স্থানীয়ভাবে বিক্রি করা হয়। এতে কোম্পানি বাৎসরিক আয় আরো ১০০ কোটি বাড়বে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। আন্তর্জাতিক আইএসও সনদপ্রাপ্ত কোম্পানিটি যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, মেক্সিকো, ব্রাজিল, চিলি, অস্ট্রেলিয়া ও ইউরোপের বেশ কিছু দেশে সোয়েটার রফতানি করে।

আইপিওর মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে সংগৃহিত ৪০ কোটি টাকায় গত বছরের নভেম্বর মাসে চীন থেকে ২০০ নতুন মেশিন আমদানী করে। রাজধানীর চৌধুরী পাড়ায় (মালিবাগ) ১৮তলা বিশিষ্ট নিজস্ব ভবনে ও কুমিল্লায় নিজস্ব কারখানায় উৎপাদন উৎপাদন শুরু করে। যার প্রভাব পড়ে তৃতীয় প্রান্তিকের প্রতিবেদনে। দেখা যায়, জানুয়ারি ২০১৭–মার্চ ২০১৭ সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) দ্বিগুণেরও বেশি বেড়ে হয়েছে ১৭ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে যা ৭ পয়সা ছিল।

janata.. 2
গাজীপুরের টঙ্গীতে এভারওয়ে ইয়ার্ন লিমিটেড সুতা কিনতে জনতা ব্যাংকের মাধ্যমে করা এলসির কপি

সর্বশেষ ৯ মাসে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ১৯ পয়সা।  গত বছরের একই সময়ে ইপিএস ৪৫ পয়সা ছিল। এছাড়া কোম্পানির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১৫ টাকা ৮৪ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে যা ছিল ১৪ টাকা ৬৪ পয়সা।

কোম্পানিটি গত বছরে উৎপাদনের সক্ষমতা ছিল ৬৫ লাখ ৭০ হাজার পাউন্ড সুতা। একই সঙ্গে নতুন করে আরো ২১ লাখ ৬০ হাজার পিস সোয়েটার উৎপাদন ক্ষমতা বেড়েছে। নতুন করে মেশিন যোগ হওয়ায় পূর্বর ক্ষমতাকে ছাপিয়ে এখন কোম্পানির মোট উৎপাদন ক্ষমতা হয়েছে ৬৯ লাখ ১৮ হাজার পাউন্ড।বৃহস্পতিবার দুপুরে শেয়ার দরের চিত্র, ডিএসই থেকে নেয়া

তবে ড্রাগন সোয়েটার এন্ড স্পিনিং মিলস লিমিটেডের কোম্পানি সেক্রেটারি আশিষ কুমার চৌধুরী কাছে জানতে চাইলে তিনি প্রসঙ্গ এড়িয়ে যান। ‘কোম্পানির মূল্যসংবেদনশীল তথ্য’ হওয়ায় কৌশলে এড়িয়ে তিনি বলেন, কোম্পানির ব্যবসা অনেক ভালো হয়েছে। তবে বলতে পারি, অন্য কোম্পানিগুলোর তুলনায় আমরা অনেক ভালো করেছি। আরো ভালো করার চেষ্টা করছি।

রোববার দুপুরে শেয়ারপ্রতি দরের চিত্র ডিএসই থেকে নেয়া

চলতি বছরের নভেম্বর-ডিসেম্বর মাসে এজিএম করার আভাস দেন তিনি।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here