স্টাফ রিপরটারঃ ব্যবসায়ী, বিশেষজ্ঞ ও সাধারণ মানুষের মতামত উপেক্ষা করে শেষ পর্যন্ত বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হলো। চলতি বছরের ডিসেম্বর মাস থেকেই গ্রাহকদের নতুন মূল্যহারে বিদ্যুতের বিল দিতে হবে অর্থাৎ জানুয়ারী মাস থেকেই বাড়তি বিল গুণতে হবে ভোক্তাদের। গ্রাহক শ্রেণি নির্বিশেষে প্রতি ইউনিট (এক কিলোওয়াট ঘণ্টা) বিদ্যুতের দাম বেড়েছে গড়ে ৩৫ পয়সা বা ৫ দশমিক ৩ শতাংশ।

বৃহস্পতিবার বিকেলে এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়।

উল্লেখ, চলতি বছর মার্চে বিভিন্ন খাতে গ্যাুসের দাম ৫০ শতাংশ পর্যন্ত বাড়ানোর পর জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু বলেছিলেন, বিদ্যুৎ খাতে গ্যাসের দাম বাড়ায় বিদ্যুতের দামও সমন্বয় করা প্রয়োজন। এর পরই  বিতরণ কোম্পানিগুলো বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব বিইআরসিতে পাঠায়।

এর মধ্যে পিডিবি পাইকারি পর্যায়ে ১৪ দশমিক ৫০ শতাংশ দাম বাড়ানোর প্রস্তাব করে।  আর গ্রাহক পর্যায়ে ডিপিডিসি ছয় দশমিক ২৪ শতাংশ ডেসকো ছয় দশমিক ৩৪ শতাংশ, ওজোপাডিকো ১০ দশমিক ৩৬ শতাংশ আর  আরইবি ১০ দশমিক ৭৫ শতাংশ দাম বৃদ্ধির প্রস্তাব করে।

এর আগে সর্বশেষ ২০১৫ সালের ১ সেপ্টেম্বর বিদ্যুতের দাম বাড়ায় সরকার। ওই সময়ে বিদ্যুতের দাম গড়ে ২ দশমিক ৯৩ শতাংশ বাড়ানো হয়। এতে মাসে ৭৫ ইউনিট পর্যন্ত ব্যবহারকারীদের খরচ বাড়ে ২০ টাকা; ৬০০ ইউনিটের বেশি ব্যবহারে খরচ বাড়ে কমপক্ষে ৩০ টাকা।

বিইআরসির আইন অনুযায়ী গণশুনানি করার পর ৯০ কার্যদিবসের মধ্যে কমিশনের সিদ্ধান্ত ঘোষণার বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here