স্টাফ রিপোর্টার : তথ্যপ্রযুক্তিভিত্তিক কোম্পানি জেনেক্স ইনফোসিসের আইপিও (প্রাথমিক গণপ্রস্তাব) আবেদন আগামী ১৮ নভেম্বর শুরু হয়ে চলবে ২৯ নভেম্বর পর্যন্ত। কোম্পানির সেক্রেটারি জুয়েল রাশেদ সরকার দুপুরে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, আমাদের কোম্পানির সাবসক্রিপশন আগামী ১৮ নভেম্বর শুরু হবে। চলবে ২৯ নভেম্বর পর্যন্ত। বিনিয়োগকারীদের উদ্দেশ্যে ইতোমধ্যে আমরা দুটি সংবাদপত্রে বিজ্ঞপ্তি আকারে এ তথ্য প্রকাশ করেছি।

কোম্পানিটিকে ২০ কোটি টাকা মূলধন উত্তোলনে ৪ সেপ্টেম্বর অনুমতি দিয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

বিএসইসি বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে প্রকাশ, অভিহিত মূল্য ১০ টাকা দরে জেনেক্স ইনফোসিস দুই কোটি সাধারণ শেয়ার বিক্রি করে ২০ কোটি টাকা মূলধন তুলবে। কোম্পানিটি এ অর্থ দিয়ে কল সেন্টার ব্যবসা সম্প্রসারণসহ ব্যাংক ঋণ পরিশোধ করবে বলে জানিয়েছে।

বর্তমানে কোম্পানিটির পরিশোধিত মূলধন ৬১ কোটি ৬০ লাখ টাকা। আইপিও প্রক্রিয়ায় ২০ কোটি টাকা মূলধন সংগ্রহ করতে সক্ষম হলে এর পরিশোধিত মূলধন বেড়ে দাঁড়াবে ৮১ কোটি ৬০ লাখ টাকা। ২০১৩ সালে কোম্পানিটির পরিশোধিত মূলধন ছিল মাত্র ৯০ লাখ টাকা।

২০১৬ সালের আগস্টের প্রথম দফায় উদ্যোক্তারা পুঞ্জীভূত মুনাফা থেকে বোনাস লভ্যাংশ নিয়ে পরিশোধিত মূলধন ১৯ কোটি টাকায় উন্নীত করেন। এর এক সপ্তাহ পর অভিহিত মূল্য ১০ টাকা দরে চার কোটি ১৬ লাখ শেয়ার বিক্রি করে আরও ৪১ কোটি ৬০ লাখ টাকার মূলধন সংগ্রহ করেন। এতে মূলধন বেড়ে দাঁড়ায় ৬১ কোটি ৬০ লাখ টাকা।

বর্তমানে কোম্পানিতে উদ্যোক্তা-পরিচালকদের অংশ মোটের ৪৫ দশমিক ৬৯ শতাংশ। আইপিও-পরবর্তী সময়ে যা কমে হবে সাড়ে ৩৪ শতাংশ।

গত ৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৭ সালের আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) ছিল এক টাকা ৮৯ পয়সা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদ মূল্য ছিল ১৩ টাকা ৯৬ পয়সা।

উল্রেখ্য, বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ উদ্যোক্তাদের গড়া জেনেক্স ইনফোসিস দেশের শীর্ষস্থানীয় একটি বিপিও (বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং) প্রতিষ্ঠান। যুক্তরাজ্যভিত্তিক আইপিই গ্রুপের সঙ্গে ব্যবসায়িক অংশীদারিত্ব রয়েছে তাদের। ২০১৫ সালে অনলাইনে বিজ্ঞাপন সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান গ্রিন অ্যান্ড রেড টেকনোলজিস অধিগ্রহণ করে তারা।

জেনেক্স ইনফোসিসের ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে ইম্পেরিয়াল ক্যাপিটাল লিমিটেড।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here