জেএমআই সিরিঞ্জে বিনিয়োগ করবে জাপানের নিপ্রো

0
322

স্টাফ রিপোর্টার : জেএমআই সিরিঞ্জ অ্যান্ড মেডিকেল ডিভাইস লিমিটেডে বিনিয়োগ করবে জাপানের বহুজাতিক কোম্পানি নিপ্রো করপোরেশন। এজন্য জেএমআইয়ের ১ কোটি ১১ লাখ শেয়ার কিনবে নিপ্রো। বিনিয়োগকৃত অর্থে ব্যবসা সম্প্রসারণের পাশাপাশি ব্যাংকঋণ পরিশোধে ব্যয় হবে বলে জানিয়েছেন কোম্পানিটির কর্মকর্তারা।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) মাধ্যমে জেএমআই বিনিয়োগকারীদের জানিয়েছে, জাপানের নিপ্রো করপোরেশন জেএমআইয়ের ১ কোটি ১১ লাখ শেয়ার কেনার আগ্রহ প্রকাশ করেছে। কোম্পানিটির পর্ষদ নিপ্রোর শেয়ার কেনার বিষয়ে তাদের সম্মতি দিয়েছে। তবে এজন্য শেয়ারহোল্ডার, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) ও অন্যান্য নিয়ন্ত্রক সংস্থার অনুমোদন নিতে হবে।

জেএমআই সিরিঞ্জের বিদ্যমান শেয়ার সংখ্যা ১ কোটি ১০ লাখ। ফলে নিপ্রোর কাছে ১ কোটি ১১ লাখ শেয়ার বিক্রি করতে হলে কোম্পানির পরিশোধিত মূলধন বাড়াতে হবে। আর মূলধন বাড়ানোর পাশাপাশি কী দরে নিপ্রোর কাছে শেয়ার ইস্যু করা হবে, এ বিষয়ে শেয়ারহোল্ডাদের অনুমোদন নিতে আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি বেলা ১১টায় কোম্পানির শান্তিবাগের কার্যালয়ে বিশেষ সাধারণ সভার (ইজিএম) আয়োজন করা হয়েছে। রেকর্ড ডেট ২৩ জানুয়ারি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জেএমআই সিরিঞ্জের কোম্পানি সচিব মোহাম্মদ তারেক হোসেন খান বলেন, জেএমআই গ্রুপের আরো তিনটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে নিপ্রো কাজ করছে। চতুর্থ প্রতিষ্ঠান হিসেবে জেএমআই সিরিঞ্জের শেয়ার কেনার মাধ্যমে এর অংশীদার হতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে তারা।

বিশ্বের ৫৭টিরও বেশি দেশে নিপ্রোর কার্যক্রম রয়েছে। মেডিকেল ডিভাইসের অনেক ধরনের পণ্যও রয়েছে তাদের। ফলে যৌথভাবে নিপ্রো ও জেএমআইয়ের ভালো ব্যবসা করার সুযোগ রয়েছে। নিপ্রোর কাছে শেয়ার বিক্রির টাকা দিয়ে ব্যবসা সম্প্রসারণের পাশাপাশি ব্যাংকঋণ পরিশোধ করা হবে বলে জানান তিনি।

৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৮ হিসাব বছরের জন্য ৩০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে কোম্পানিটি। সমাপ্ত হিসাব বছরে এর শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৬ টাকা ৮৬ পয়সা ও শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) ৭১ টাকা ২৭ পয়সা।

২০১৭ সালের সমাপ্ত হিসাব বছরের জন্য ৩০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দেয় কোম্পানিটি। আলোচ্য সময়ে এর ইপিএস হয় ৬ টাকা ৭৮ পয়সা ও এনএভিপিএস ৬৭ টাকা ৬৪ পয়সা।

অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুসারে চলতি হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১ টাকা, যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ৭৮ পয়সা। ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ এ কোম্পানির এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ৭২ টাকা ২২ পয়সায়।

২০১৩ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানির অনুমোদিত মূলধন ১০০ কোটি ও পরিশোধিত মূলধন ১১ কোটি টাকা। রিজার্ভে রয়েছে ৬৩ কোটি ৪০ লাখ টাকা। কোম্পানির মোট শেয়ারের মধ্যে ৪৯ দশমিক ৩১ শতাংশ উদ্যোক্তা-পরিচালক, ১৪ দশমিক ৬৩ শতাংশ প্রতিষ্ঠান, ১১ দশমিক ৮২ শতাংশ বিদেশী ও ২৪ দশমিক ২৪ শতাংশ রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে।

সর্বশেষ নিরীক্ষিত ইপিএস ও বাজারদরের ভিত্তিতে শেয়ারটির মূল্য-আয় অনুপাত বা পিই রেশিও ৪৫ দশমিক ৯, অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদনের ভিত্তিতে যা ৭৭ দশমিক ৮।

ইজিএমটি কনফারেন্স রুম, রেজিস্ট্রার অফিস, শান্তিবাগে সকাল ১১ টায় অনুষ্ঠিত হবে। ইজিএমের জন্য ২৩ জানুয়ারি রেকর্ড ডেট নির্ধারন করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here