জেএমআই’র বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল হয়নি

0
402

BSEC- 1স্টাফ রিপোর্টার :  জেএমআই সিরিঞ্জের শেয়ার দর একটানা বৃদ্ধি পাওয়ার কারণ খতিয়ে দেখছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। দর বৃদ্ধির কারণ অনুসন্ধানে সম্প্রতি ২ সদস্যের এক তদন্ত কমিটি গঠন করে তাদের ১৫ দিনের সময়সীমা বেঁধে দেয় নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি। কিন্তু গত ১৭ জুলাই ছিল তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন জমাদানের শেষ দিন।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত প্রতিবেদন দাখিল করা হয়নি। তবে সময়সীমা আবারো বৃদ্ধি করা হতে পারে বলে দায়িত্বশীল একটি সূত্র জানিয়েছে। তবে কি কারণে প্রতিবেদন জমা দেয়া হয়নি তা উল্লেখ করেনি।

তদন্ত কমিটির সদস্যরা হলেন- বিএসইসির উপ-পরিচালাক শামসুর রহমান ও সহকারী পরিচালক আব্দুর সেলিম। কমিটিকে আগামী ১৫ কার্যদিবস অর্থাৎ ১৭ জুলাইয়ের মধ্যে এ সংক্রান্ত তদন্ত প্রতিবেদন কমিশনে দাখিলের নির্দেশ দেয়া হয়।

এ সংক্রান্ত বিএসইসি’র আদেশে বলা হয়েছে, ডিএসইতে সদ্য তালিকাভুক্ত জেএমআই সিরিঞ্জের শেয়ার দর অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে যাওয়ার বিষয়টি লক্ষ্য করেছে বিএসইসি। কোনো মূল্য সংবেদনশীল তথ্য ছাড়াই হঠাৎ এভাবে দর বেড়ে যাওয়ার কারণ অনুসন্ধানে ২ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) প্রতিষ্ঠানটি তালিকাভুক্তির পর থেকে শেয়ার দর অস্বাভাবিকভাবে বেড়েছে। গত ১৯ জুন ডিএসইতে লেনদেনে শুরু হবার পর কোনো প্রকার মূল্য সংবেদনশীল তথ্য ছাড়াই এ কোম্পানির শেয়ার দর অস্বাভাবিকভাবে বাড়তে থাকে। অর্থাৎ তালিকাভুক্তির পর ধারাবাহিকভাবে ১৫ কার্যদিবস এ শেয়ারের দর বৃদ্ধি পায়। আবার গত ৪ কার্যদিবস ধারাবাহিকভাবে শেয়ারটির দরপতন হয়েছে।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, সর্বশেষ বাজার দরের ভিত্তিতে এর মূল্য আয় অনুপাত বা পিই রেশিও ২৭৯.৩৮। যা অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ।

২০১২ সালের জন্য কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ ১২ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে। ওই সময়ের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুসারে এ কোম্পানির কর-পরবর্তী নিট মুনাফার পরিমাণ ১ কোটি ২৩ লাখ ৪১ হাজার টাকা ও শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) ১ টাকা ১২ পয়সা।

অন্যদিকে, চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকের (জানুয়ারি-মার্চ) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুসারে কোম্পানিটির মুনাফা কমেছে প্রায় ৬০ শতাংশ। এ সময় এর কর-পরবর্তী নিট মুনাফার পরিমাণ দাঁড়ায় ৯ লাখ ২০ হাজার টাকা ও ইপিএস ৮ পয়সা, যা এর আগের বছর একই সময় ছিল ২২ লাখ ৮০ হাজার টাকা ও ২১ পয়সা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here