চীনে পুঁজিবাজারে ধস

0
915

বিবিসি : ‘ব্লাক মানডে’র প্রভাবে মঙ্গলবারও চীনের শেয়ারবাজারে ধস অব্যাহত রয়েছে। তবে আগের দিনের চেয়ে পতনের হার খানিকটা কম। দিনের শুরুতে সাংহাই স্টক মার্কেটে সূচক পতনের হার ছিল ৬ দশমিক ৪১ শতাংশ।

এর আগে সোমবার (২৪ আগস্ট) মাথায় হাত পড়ে চীনের ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের। সূচক সাড়ে ৮ শতাংশ নেমে ৩, ২০৯ দশমিক ৯১ পয়েন্টে গিয়ে দাঁড়ায়। ২০০৭ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারির পর এটাই একদিনে সূচকের সবচেয়ে বড় পতন। ওইদিন সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জে একদিনে ৮ দশমিক ৮ শতাংশ পতন ঘটে সূচকের।

চলতি মাসের শুরুতে দাম পড়তে শুরু করে চীনা মুদ্রা ইউয়ানের। এরই ধারায় পতন দেখা দেয় শেয়ারবাজারেও। চীনা সরকার যদিও রাষ্ট্রীয় অর্থ বিনিয়োগের ব্যবস্থা করে ও অন্যান্য পদক্ষেপ নিয়ে বিনিয়োগকারীদের পুঁজি রক্ষার চেষ্টা করেছে, কিন্তু শেষ রক্ষা আর হয়নি।

সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জের মতো পতন অব্যাহত রয়েছে হংকং, ভারত, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, ফিলিপাইন ও অস্ট্রেলিয়ার শেয়ারবাজারেও। হংকংয়ে দিনের শুরুতে সূচকের পতন হয়েছে শূন্য দশমিক ৬৭ শতাংশ। দক্ষিণ কোরিয়া ও ফিলিপাইনের শেয়ারবাজারে আড়াই থেকে তিন শতাংশ পর্যন্ত পতন দেখা গেছে।

ভারতের সেনসেক্স-এ মঙ্গলবার দিনের শুরুতে ১ দশমিক ১৩ শতাংশ সূচকের পতন দেখা গেছে, পয়েন্টের হিসাবে যা ২৯০ দশমিক ১০। নিফটিতেও পতন অব্যাহত রয়েছে। এখানে ১০২ দশমিক ৭০ কমে সূচক ১ দশমিক ৩২ শতাংশ নিচে নেমে গেছে।

জাপানের নিক্কেই স্টক এক্সচেঞ্জে দিনের শুরুতে ৩ দশমিক ৪৭ শতাংশ পতন পরিলক্ষিত হলেও পরে তা ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে। অস্ট্রেলিয়ায় লেনদেন শুরুর প্রথমভাগেই শেয়ারবাজার সূচকের পতন দেখেছে ১ দশমিক ৪১ শতাংশ।

সোমবার ‘ব্লাক মানেড’র ছোবলে চীনের শেয়ার মার্কেটের সঙ্গে বিশ্বজুড়েই সূচকের পতন দেখা দেয়। ভারতে সেনসেক্স-এ সূচকের পতনে রেকর্ড সৃষ্টি হয়। সোমবার কয়েক মুহূর্তেই সেখানে ইতিহাসের সবচেয়ে বড় ধস দেখা দেয়। ১৬২৫ পয়েন্ট সূচকের পতনের সঙ্গে হাওয়া হয়ে যায় বিনিয়োগকারীদের সাত লাখ কোটি রুপি।

একই অবস্থা গেছে জাপানের শেয়ারবাজারেও। টোকিওর নিক্কেইয়ে দিনের প্রথমভাবে সূচকের পতন হয় ৪ দশমিক ৬ শতাংশ।

ইউরোপ ও যুক্তরাষ্ট্রের শেয়ারবাজারেও সূচকের পতন ঘটে সোমবার। যুক্তরাজ্যের এফটিএসই-তে সূচকের পতন হয়েছে ২ দশমিক ৫৪ শতাংশ, পয়েন্টের হিসাবে যা আগের চেয়ে ১০০ নিচে। সিএসি ও ডিএএক্স-এও একই অবস্থা। অপরদিকে যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াল স্ট্রিট খোলার কিছু পরই এক হাজার পয়েন্ট সূচকের পতন হয়, শতাংশের হিসাবে যা ৬।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here