চীনা কনসোর্টিয়ামকেই পার্টনার বানানোর সিদ্ধান্ত ডিএসইর

0
662

স্টাফ রিপোর্টার: দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) কৌশলগত বিনিয়োগকারী হিসেবে চীনা কনসোর্টিয়ামকে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আজ সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) মতিঝিলের ডিএসই এর কার্যালয়ে বোর্ড সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সভা শেষে ডিএসইর ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) কেএএম মাজেদুর রহমান সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

তিনি বলেন, সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জ এবং শেনজেন স্টক এক্সচেঞ্জকে কৌশলগত বিনিয়োগকারী হিসেবে পার্টনার করতে বোর্ডে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী চলতি সপ্তাহের মধ্যে অনুমোদনের জন্য নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি’তে প্রস্তাব পাঠানো হবে।

ডিএসইর চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. আবুল হাশেম সাংবাদিকদের বলেন, সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জ এবং সেনজেন স্টক এক্সচেঞ্জকে কৌশলগত বিনিয়োগকারী হিসেবে পার্টনার করতে আগের সভায় যে অনুমোদন দেওয়া হয়েছিল, আজ সেই সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করেছি। এখন যত দ্রুত সম্ভব আমরা বিএসইসিতে ডিএসইর এই প্রস্তাবনা পাঠাবো। এই প্রস্তাবের পর নিয়ন্ত্রক সংস্থা তা আইনগতভাবে যাচাই করে তাদের সিদ্ধান্ত জানাবে। বিএসইসির সিদ্ধান্তের পর পরবর্তী করণীয় ঠিক করা হবে বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, এ ব্যাপারে ডিএসইর ব্যবস্থাপনা পরিচালককেই দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তার নেতৃত্ব এই প্রস্তাবনা জমা দেওয়া হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

এর আগে ১০ ফেব্রুয়ারি পরিচালনা পর্ষদের সভায় সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জ এবং সেনজেন স্টক এক্সচেঞ্জকে কৌশলগত বিনিয়োগকারী হিসেবে পার্টনার করতে একমত পোষণ করেন। তবে তা আর প্রস্তাব আকারে বিএসইসিতে পাঠানো হয়নি।

এরপর নানা দিক থেকে অভিযোগ ওঠে যে, ডিএসইর কৌশলগত বিনিয়োগকারী নিয়ে অনিয়মের আশ্রয় নেওয়া হচ্ছে। সেখানে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি ও ভারতীয় দরদাতা প্রতিষ্ঠান ডিএসইর কৌশলগত বিনিয়োগকারী নিতে অনৈতিক চাপ প্রয়োগ করছে বলে অভিযোগ তোলে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। পাশাপাশি এই চাপের নিন্দা করা হয়।

সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জ এবং সেনজেন স্টক এক্সচেঞ্জকে নিয়ে গঠিত কনসোর্টিয়ামটি ডিএসইর পার্টনার হতে ২২ টাকা দরে ২৫ শতাংশ শেয়ার নিতে আবেদন করে। পাশাপাশি কনসোর্টিয়ামটি ৩৭ মিলিয়ন ডলারের প্রযুক্তিগত সহযোগীতা দেওয়ার প্রস্তাবও দেয় ডিএসইকে।

তবে কনসোর্টিয়ামটি ডিমিউচ্যুয়ালাইজেশন আইন অনুযায়ী সব দিক দিয়ে এগিয়ে থাকার পাশাপাশি বেশি দর দিয়ে শেয়ার কেনার প্রস্তাব করায় ডিএসইর পরিচালনা পর্ষদ তা গ্রহণ করে। আজকের পরিচালনা পর্ষদের সভায় সর্বসম্মতভাবে তা অনুমোদন করা হয়।

১০ টাকা অভিহিত মূল্যের প্রতিটি শেয়ারের জন্য চীনের সাংহাই ও সেনজেন স্টক এক্সচেঞ্জ ২২ টাকা দরে মোট ৯৯২ কোটি টাকার শেয়ার কিনবে। আর ডিএসইর কার্যক্রমের মানোন্নয়নে বিনামূল্যে উন্নত প্রযুক্তি সরবরাহ করবে, যার বাজার মূল্য ৩ কোটি ৭০ লাখ ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ৩০৭ কোটি টাকা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here