ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে পুঁজিবাজারে

2
968

মেহেদী আরাফাত : মঙ্গলবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ এর – ডিএসইএক্স ইনডেক্স দিনের প্রথম ভাগে ক্রয়চাপের ফলে  ঊর্ধ্বমুখী প্রবনতা নিয়ে বৃদ্ধি পেতে থাকে এবং পরবর্তীতে দিনভর ক্রয়চাপ লক্ষ্য করা যায় এবং দিনের শেষভাগে পুনরায় ক্রয় চাপের ফলে ডিএসইএক্স ইনডেক্স পুনরায় ঊর্ধ্বমুখী হতে থাকে এবং  ১২.৮০ পয়েন্ট  বৃদ্ধি পেয়ে বুলিশ  ক্যান্ডেলস্টিক   তৈরি করে। ডিএসই এক্স ইনডেক্স  ১২.৮০ পয়েন্ট বৃদ্ধি পেয়ে ৪৯৬৯.৭৩ পয়েন্টে অবস্থান করছে, যা আগের দিনের তুলনায় .২৫%  বৃদ্ধি   পেয়েছে।

বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা যায়, মার্কেট ইনডেক্স তার রেজিটেন্সে অবস্থান করছে । ইনডেক্স কয়েকদিন ধরেই রেজিটেন্স লাইনের আসেপাশে ঘুরাঘুরি করছে । রেজিটেন্স  ভাঙতে পারলে বাজার অনেকদুর যাবে এমনটি ধারনা করছেন TA বিস্লেশকরা  । অনেকে ধারনা করছেন, নেটিং সুবিধা থাকার ফলে দুদিন লেনদেন বেড়েছে এবং রাজনৈতিক পরিস্থিতি ঠিক থাকলে লেনদেন এবং ইনডেক্স আরও অনেক বাড়তে পারত । বড় বড় প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা রাজনৈতিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে ।

বর্তমানে ডিএসই এক্স ইনডেক্স এর পরবর্তী সাপোর্ট ৪৮০০ পয়েন্টে এবং রেজিটেন্স ৫০০০ পয়েন্টে অবস্থান করছে। বাজারে এম.এফ.আই এর মান ছিল  ৫৬.৯৮ এবং আল্টিমেট অক্সিলেটরের মান ছিল ৫৯.৪৫। এম.এফ.আই এবং আল্টিমেট অক্সিলেটর কিছুটা ঊর্ধ্বমুখী হতে চেষ্টা করছে ।

ডিএসইতে ৯ কোটি ৯৯ লাখ ৪৬ হাজার ৭৬০  টি শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড লেনদেন হয়, যার মূল্য ছিল ৪০৪.৯৭ কোটি টাকা। ডিএসইতে লেনদেন বৃদ্ধি পেয়েছে ১২ কোটি টাকা। আজ ঢাকা শেয়ারবাজারে ২৮৪ টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের লেনদেন হয়েছে, যার মধ্যে দাম বেড়েছে ১৬৩ টির, কমেছে ১১৬ টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৩২ টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম।

dfgg

পরিশোধিত মূলধনের দিক থেকে দেখা যায়, বাজারে চাহিদা বেশি ছিল ২০-৫০ এবং ৩০০ কোটি টাকার ওপরে পরিশোধিত মূলধনী প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের যা আগেরদিনের তুলনায়  আজ ১২.১৫% এবং ২০.৫১% বৃদ্ধি পেয়েছে। অন্যদিকে হ্রাস পেয়েছে ৫০-১০০ এবং ১০০-৩০০ কোটি টাকার পরিশোধিত মূলধনী প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের যা আগেরদিনের তুলনায় ৭.৫৭% এবং ৭.৬৬% কম। অন্যদিকে ০-২০ কোটি টাকার পরিশোধিত মুলধনী প্রতিষ্ঠানের লেনদেনের পরিমান গতকালের তুলনায় আজ ১.৮৩% বৃদ্ধি পেয়েছে।

পিই রেশিও ০-২০ এর মধ্যে থাকা শেয়ারের লেনদেন আগের দিনের তুলনায় ৭.১৪% বৃদ্ধি পেয়েছে । অন্যদিকে পিই রেশিও ২০-৪০ এবং ৪০ এর ওপরে থাকা শেয়ারের লেনদেন আগের দিনের তুলনায় ৪.৬৭% এবং ২.৭২%  হ্রাস পেয়েছে।

ক্যাটাগরির দিক থেকে এগিয়ে ছিল  ‘এ’ এবং ‘এন’ ক্যাটাগরির শেয়ারের লেনদেন যা আগেরদিনের তুলনায় যথাক্রমে ২.৩৮%  এবং ১৩.৭১%  বেশী ছিল। হ্রাস পেয়েছে  ‘বি’ এবং ‘জেড’ ক্যাটাগরির শেয়ারের লেনদেন যা আগেরদিনের তুলনায় ১৫.১১% এবং ২২.৯৮%  কম ছিল।

2 COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here