ঘুরে দাঁড়াচ্ছে এপেক্স ফুডস

0
2521

স্টাফ রিপোর্টার :রফতানি কমে গেলেও উৎপাদন ও পরিচালন ব্যয় কমিয়ে লোকসান থেকে মুনাফায় ফিরেছে খাদ্য ও আনুষঙ্গিক খাতের তালিকাভুক্ত কোম্পানি এপেক্স ফুডস লিমিটেড। সদ্যসমাপ্ত হিসাব বছরের প্রথম তিন প্রান্তিকে ২০ শতাংশ রফতানি কমার বিপরীতে প্রতিষ্ঠানটি উৎপাদন ব্যয় ২৩ শতাংশ এবং পরিচালন ব্যয় ১২ শতাংশ পর্যন্ত কমিয়ে এনেছে। ২০১৬ সালের জুলাই থেকে গত মার্চ পর্যন্ত কোম্পানির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৯৯ পয়সা, আগের বছর একই সময়ে যেখানে শেয়ারপ্রতি নিট লোকসান ছিল ২ টাকা ৭৯ পয়সা।

এপেক্স ফুডস কর্মকর্তারা জানান, একদিকে আন্তর্জাতিক বাজার মোটামুটি ঘুরে দাঁড়াচ্ছে, অন্যদিকে কোম্পানির ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষও ব্যয় কমিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে। এ কারণে আগের বছরের লোকসান কাটিয়ে মুনাফা দেখাতে সক্ষম হয়েছে এপেক্স ফুডস।

কোম্পানির আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনায় দেখা যায়, ২০১৪-১৫ হিসাব বছর থেকেই তাদের রফতানি আয় নিম্নমুখী। সে বছর কোম্পানির রফতানি আয় আগের বছরের অর্থাত্ ২০১৩-১৪ হিসাব বছরের তুলনায় ২৮ শতাংশ কমে ২৭৫ কোটি টাকায় নেমে আসে। এতে পূর্ববর্তী অন্তত পাঁচ বছরের ইতিহাসে কোম্পানিটি প্রথমবারের মতো পরিচালন লোকসানে পড়ে। সে বছর এপেক্স ফুডসের পরিচালন লোকসান হয় ৫ কোটি ৩৫ লাখ টাকা। অবশ্য এপেক্স স্পিনিং অ্যান্ড নিটিং মিলস ও সেন্ট্রাল ডিপোজিটরি বাংলাদেশ লিমিটেডে (সিডিবিএল) বিনিয়োগের বিপরীতে পাওয়া লভ্যাংশ আয়ে শেষ পর্যন্ত নিট মুনাফায় থাকে কোম্পানিটি। ২০১৫-১৬ হিসাব বছরে রফতানি আরো কমে দাঁড়ায় ২০৩ কোটি টাকা। সে হিসাব বছরে ১ কোটি ৩২ লাখ টাকা নিট লোকসান গোনে তারা।

সদ্যসমাপ্ত ২০১৬-১৭ হিসাব বছরের প্রথম ৯ মাসেও রফতানি কমার ধারা অব্যাহত ছিল। অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনায় দেখা যায়, তৃতীয় প্রান্তিক (জুলাই ’১৬ থেকে মার্চ ’১৭) পর্যন্ত নয় মাসে এপেক্স ফুডসের রফতানি আয় হয়েছে ১২৫ কোটি ৮০ লাখ টাকা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ১৫৭ কোটি ৬২ লাখ টাকা। এ হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে রফতানি আয় কমেছে ৩১ কোটি ২০ লাখ টাকা বা ২০ শতাংশ। এ সময় উৎপাদন খরচ ২৩ শতাংশ কমে হয়েছে ১১১ কোটি ২৮ লাখ টাকা। মোট মুনাফা ৪ শতাংশ বেড়ে দাঁড়ায় ১৪ কোটি ৫২ লাখ টাকা। আলোচ্য সময়ে পরিচালন খাতে ১২ শতাংশ ব্যয় সংকোচনের ফলে আগের বছর পরিচালন লোকসান হলেও এবার পরিচালন মুনাফা করতে সমর্থ হয় কোম্পানিটি। পরিচালন আয় থেকে প্রশাসনিক, বিক্রি বাবদ খরচ ও সুদ বাবদ ব্যয় বাদ দেয়ার পর কোম্পানির পরিচালন মুনাফা দাঁড়িয়েছে ১৩ লাখ টাকা। একই সময়ে লভ্যাংশ ও সুদ বাবদ আয় ২ কোটি ৮ লাখ টাকা যোগ হওয়ার পাশাপাশি শ্রমিক তহবিল ও কর বাবদ ১ কোটি ৬৪ লাখ টাকা ব্যয় ধরার পর নিট মুনাফা দাঁড়িয়েছে ৫৬ লাখ টাকা, যেখানে আগের বছরের একই সময়ে ১ কোটি ৫৯ লাখ লোকসান ছিল। হিসাব বছরের প্রথম তিন প্রান্তিকে শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৯৯ পয়সা, আগের বছরের একই সময়ে শেয়ারপ্রতি লোকসান ছিল ২ টাকা ৭৯ পয়সা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here