আট বছরে পুঁজিবাজারে অনেক সংস্কার হয়েছে : অর্থমন্ত্রী

0
318

স্টাফ রিপোর্টার : অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত আশা প্রকাশ করেছেন, দেশের পুঁজিবাজারসহ সামগ্রিক অর্থনীতিতে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ইতিবাচক প্রভাব পড়বে।

দেশে একটি অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন হতে যাচ্ছে, পুঁজিবাজারে এর কী প্রভাব পড়তে পারে-এমন প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, সব দল নির্বাচনে আসছে। এটি একটি রাজনৈতিক সাফল্য। রাজনৈতিক সাফল্যের ইতিবাচক প্রভাব অর্থনীতি ও উন্নয়নসহ সব ক্ষেত্রে পড়ে থাকে। খুব ভালো একটা রাজনৈতিক অবস্থায় (পলিটিক্যাল সিচুয়েশন) আছি আমরা এই মুহূর্তে। সবাই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছে। এমনিতে যে একটা দুঃখ থাকে, যে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছি, সেটি আনন্দের নয়। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়া আনন্দের কিছু নয়। বরং এটি এক ধরনের দুঃখ।

মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর সচিবালয়ে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) প্রতিনিধি দলের সাক্ষাত শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি।

এর আগে অর্থমন্ত্রী বলেন, আমাদের পুঁজিবাজার এখনো তেমন উল্লেখযোগ্য কিছু নয়। অনেক পিছিয়ে। কিন্তু গত আট বছরে এই বাজারে অনেক সংস্কার হয়েছে। বাজার বেশ শক্ত ভিত্তি পেয়েছে। সামনে তাই অনেক সম্ভাবনা।

আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেন, ১৯৯০ সালের পর পুঁজিবাজারে দুইবার ধস হয়েছে। সিরিয়াস ধস। আমরা ক্ষমতায় আসার পর ২০১১ সালে ধস হল। সেই ধস হওয়ার পর আমরা দেখলাম, পুঁজিবাজারে সংস্কার দরকার। এর আইনকানুন বিধিমালা বেশ খারাপ। এর ফলে এই ধসটা অনবরত হয়। এর প্রেক্ষিতে আমরা সংস্কারে হাত দেই। এতে আট বছর লেগেছে। বিএসইসি অনেক আইন-কানুন সংস্কার করে বাজারকে স্থিতিশীল অবস্থায় নিয়ে এসেছে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, পুঁজিবাজার নিয়ে এখন আর আমাদের মাথাব্যথা নেই। এটি এখন আপন গতিতে চলবে।

এর আগে বিএসইসির চেয়ারম্যান ড. খায়রুল হোসেনের নেতৃত্বে সংস্থার সব কমিশনার ও কয়েকজন কর্মকর্তা অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাত করেন। বিএসইসি চেয়ারম‌্যান বিও অ্যাকাউন্টের ফি থেকে প্রাপ্ত ৫৭ কোটি ৫৩ লাখ টাকার চেক অর্থমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here