খান ব্রাদার্সে বিনিয়োগে চমক!

0
7362

শাহীনুর ইসলাম : খান ব্রাদার্স পিপি ওভেন ব্যাগ ইন্ড্রাস্টিজ লিমিটেডে বিনিয়োগে নতুন চমক সৃষ্টি হয়েছে। তুলনামূলকভাবে কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় কমলেও ধারাবহিকভাবে ইপিএস বেড়েছে।

গত বছরের সেপ্টেম্বর মাসে জাম্বো ব্যাগ রপ্তানী চুক্তি এবং চলতি বছরের মার্চ মাসে বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদন বৃদ্ধির ঘোষণা করে কোম্পানির কর্তৃপক্ষ। এরপরে কোম্পানির শেয়ার ধারণ ক্ষমতায় এসেছে বৈপ্লবিক পরিবর্তন।

কোম্পানির মোট শেয়ারের প্রায় ৪০ শতাংশ শেয়ার প্রাতিষ্ঠানিকভাবে ধারণ করা হয়েছে। তুলনামূলকভাবে কোম্পানির ইপিএস কমলেও শেয়ার ধারণের চিত্র বিস্ময়কর! নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বেশ কয়েকটি সিকিউরিটিজ হাউসের প্রধান ‘বিপুল পরিমাণ শেয়ার ধারণ চিত্রকে নতুন বার্তা’ হিসেবে মনে করছেন।

গত বছরের মে মাসে কোম্পানির শেয়ার দরে হঠাৎ বাড়তে থাকে। চলতি বছরে আবারো মে মাসে ‘অস্বাভাবিক দর বৃদ্ধির পূর্বাভাস’ হিসেবে বর্তমান শেয়ার ধারণকে তারা দেখেছেন।

ডিএসইতে প্রকাশিত চিত্র

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ওয়েবসাইটে প্রকাশ, খান ব্রাদার্স পিপি ওভেন ব্যাগ ইন্ড্রাস্টিজ লিমিটেডের মোট শেয়ার রয়েছে ৮ কোটি ৯১ লাখ ৬৩ হাজার ৫২৫টি। মূল উদ্যোক্তার ৩০ শতাংশ বলবদ রেখে গত বছরের জুন মাসে মোট শেয়ারে ৯.৮২ শতাংশ ধারণ করে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে বিভিন্ন কোম্পানি।

নতুন বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে তিনগুণের অধিক অর্থাৎ ২৯.০৯ শতাংশ শেয়ার ধারণ করেছে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে বিভিন্ন কোম্পানি। অন্যদিকে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের শেয়ারের পরিমাণ কমে হয়েছে মাত্র ৪০ শতাংশ।

ডিএসইর প্রকাশিত চিত্র অনুসারে, চলতি বছরের মার্চ মাসে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে শেয়ার ধারণ আরো বেড়ে হয়েছে ৩৫.৬৫ শতাংশ। এরপরে গত এপ্রিল মাস এবং চলতি ৭ মে, রোববার পর্যন্ত আইসিবি এবং অন্যান্য প্রতিষ্ঠানগুলো আরো প্রায় ১৫ শতাংশ (অপ্রকাশিত চিত্র) শেয়ার সংগ্রহ করে। সব মিলে কোম্পানির প্রায় ৪৫ শতাংশ (অপ্রকাশিত প্রতিবেদন অনুসারে) রয়েছে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে।

অন্যদিকে মূল উদ্যোক্তার ৩০ শতাংশ বহাল থাকলেও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের শেয়ারে পরিমাণ অনেক কমেছে। সর্বশেষ গত মার্চ মাসের প্রতিবেদন অনুসারে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে শেয়ার রয়েছে মাত্র ৩৪.২২ শতাংশ। যা বিস্ময়কর!

তবে চলতি মে মাসে প্রতিবেদন প্রকাশ হলে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের শেয়ারের পরিমাণ আরো কমবে। যা হবে বিস্ময়কর।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে তারা আরো বলেন, গত বছরের মে মাসে ‘অস্বাভাবিক দর বৃদ্ধির’ আগে শেয়ার ধারণের প্রায় এমনি চিত্র প্রকাশ পেয়েছিল। তারই ‘এটা পূর্বাভাস’ বলে মনে করছেন তারা।

২০১৬ সালের মে মাসের চিত্র প্রকাশ করা হলো। বৃত্ত চিহ্ন থেকে মূল্যবৃদ্ধির সূচক দেখুন-

খান ব্রাদার্স পিপি ওভেন ব্যাগ ইন্ড্রাস্টিজের আয়ের পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় প্রান্তিকে ধারবাহিকভাবে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে। অন্যদিকে বিগত বছরের সঙ্গে তুলনামূলকভাবে কমেছে।

পরিসংখ্যানে প্রকাশ, তৃতীয় প্রাান্তিকে ৯ মাসে (জুলাই-মার্চ) শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৬১ পয়সা। তবে গত বছরের তুলনায় অনেক কমেছে। অর্থাৎ আগের বছরে ইপিএস ছিল ৮৯ পয়সা।

সর্বশেষ ৩ মাসে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ২৫ পয়সা। আগের বছরের একই সময়ে যা ছিল ২৬ পয়সা। ৩১ মার্চ, ২০১৭ পর্যন্ত কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১২ টাকা ৮০ পয়সা। গত বছরে যা ছিল ১২ টাকা ৫৫ পয়সা।

দ্বিতীয় প্রান্তিকে ইপিএস হয়েছে ৩০ পয়সা। আগের বছর একই সময় কোম্পানির ইপিএস ছিল ২৪ পয়সা। সে হিসেবে কোম্পানিটির আয় বেড়েছে ২৫ শতাংশ। প্রথম প্রান্তিকে ইপিএস ছিল ২০ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে যা ছিল ৩৬ পয়সা।

অর্থাৎ কোম্পানির প্রথম প্রান্তিকে ইপিএস ছিল ২০ পয়সা, দ্বিতীয় প্রান্তিকে ৩০ পয়সা এবং তৃতীয় প্রাান্তিকে ধারাবাহিকভাবে (জুলাই-মার্চ) ইপিএস বেড়ে হয়েছে ৬১ পয়সা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here