শ্যামল রায়ঃ শেয়ার বাজারের খুটিনাটি বিষয়গুলো তুলে ধরতে স্টক বাংলাদেশ ধারাবাহিকভাবে বিনিয়োগকারীদের স্বাক্ষাতকার তুলে ধরছে। এরই ধারাবাহিকতায় এপর্বে সাক্ষাতকার দিয়েছেন বিনিয়োগকারী ও শেয়ার বাজার বিশ্লেষক মোঃ ইমরান কবির। জানালেন তার বিনিয়োগ ভাবনার কথা।

সেই কবে কার কথা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ফিন্যান্স ডিপার্টমেন্টে যখন ভর্তি হলাম। স্যারদের মুখে মুখে শেয়ার বাজার সম্পর্কে বলতে শুনতে শুনতে নিজেও কখনও যেন শেয়ার বাজারের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে পড়ি মনে নাই। যেহেতু আমার সাবজেক্টাই অর্থনীতি নির্ভর কাজেই পুজিবাজার আমাকে আস্টেপিষ্টে জড়িয়ে ফেলে। ছাত্রাবস্থাতেই একটি কোম্পানির শেয়ার ডিপার্টমেন্ট দেখভালের দায়িত্ব পাই। এখন এটাই আমার পেশা। বিনিয়োগের খুটিনাটি সমস্ত কিছুই জানতে হয় আমাকে। এজন্যও পড়াশুনাও করতে হয়েছে প্রচুর। এখন চাকরির পাশাপাশি। পার্ট টাইম শেয়ার বিজনেস করি। ইচ্ছে আছে চাকরি ছেড়ে দিয়ে শেয়ার বাজারে ফুল টাইম দেব। বিদেশে এরকম অহরহ ঘটছে। আমাদের দেশে যদিও এই সুযোগটা এখনও তৈরি হয় নি। তবে শুরুতো কাওকে না কাওকে করতেই হবে।

আমার দৃষ্টিতে পুজিবাজার একটি রহস্যময় জায়গা। এখানে বুঝে শুনে না বিনিয়োগ করে অনেকেই ফকির হয়ে ফিরে যায়। এই উদাহারণগুলো আমি স্বচক্ষে দেখেছি। সেইজন্য সরকারকেও পুজিবাজারে ভালোমন্দর  জন্য ভাবতে হবে। সম্প্রতি কর, আবগারী শুল্ক এই বিষয়টা নিয়ে অর্থমন্ত্রী সংসদ ও সংসদের বাইরে তুমুল তোপের মুখে পড়েছেন। আসলে তিনি কি পুজিবাজারকে ধ্বংস করতে চাইছেন না বাঁচাতে চাইছেন এটা পরিস্কার করা দরকার। পুজিবাজার কর আহরনের একটি সহযোগি মাধ্যম হতে পারে। তিনি যেভাবে শেয়ার বাজার থেকে কর আহরনের চেষ্টা করছেন। তার এই একগুয়েমি নীতি পরিহার করা দরকার।

যারা অনেক কষ্টে টাকা জমিয়ে শেয়ার বাজারে বিনিয়োগ করছে। তাদের টাকা নিয়ে ছিনিমিনি খেলার অধিকার  কারও নেই। এদিকে দিনের পর দিন কিছু খারাপ কোম্পানি বিভিন্ন রকম কারসাজির মাধ্যমে সহজ সরল বিনিয়োগকারীদের ঠকিয়ে টাকা নিজেদের পকেটে পুড়ছে। আমার প্রশ্ন অর্থমন্ত্রী তথা সরকারের কাছে এসব খারাপ কোম্পানি ডিএসইতে তালিকাভুক্ত থাকে কি করে। এরকম কারসাজির সুযোগ থাকলেই বিনিয়োগকারীরা যতই সচেতন হোক আর জেনে বুঝে শুনে বিনিয়োগ করুক ধরা খাবেই।

কেননা কোন বিনিয়োগকারীর পক্ষে সব কোম্পানির দুয়ারে দুয়ারে ঘুরে কার ইপিএস কত, কার ন্যাভ কত, পিইরেশিও বেশি না কম তা বের করা সম্ভব নয়। আমরা কোম্পানির ওয়েব সাইটে যা ডিসক্লোজ করা দেখি তাই দিয়ে হিসাব নিকাশ করে বিনিয়োগের চেষ্টা করি। কিন্তু ভুল তথ্য দেয়া থাকলে আমরা সঠিক হব কি করে।

এই মুহুর্তে বাজার পরিস্তিতি কি রকম জানতে চাইলে বলেন, এখনতো ভালো তবে কখন কি হয়ে যায় বলা মুশকিল। কেননা বাংলাদেশে শেয়ার বাজারের এ্যানালাইসিস কিংবা গবেষনা করে মার্কেটের গতিপ্রকৃতি বোঝা মুশকিল। এখানে কোন কিছুই প্রেডিক্ট করা যায় না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here