ডেস্ক রিপোর্টঃ আগামী ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ব্যক্তিশ্রেণীর করদাতাদের করমুক্ত আয়সীমা বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছে বাংলাদেশ চেম্বার অব ইন্ডাস্ট্রিজ (বিসিআই)। এক্ষেত্রে মূল্যস্ফীতি, জীবনযাত্রার ব্যয় বৃদ্ধি, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি বিবেচনায় নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। অন্যদিকে ব্যক্তিশ্রেণীর সর্বোচ্চ কর হার ৩০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২৫ শতাংশ নির্ধারণের প্রস্তাব দিয়েছে মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (এমসিসিআই)। একই সঙ্গে সারচার্জের সীমা বৃদ্ধি, কর্পোরেট কর পুনর্বিন্যাস এবং ভ্যাটের টার্নওভারের সীমা বাড়ানোরও প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। খবর যুগান্তরের।

বুধবার জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সম্মেলন কক্ষে প্রাক-বাজেট আলোচনার প্রথম দিনে অংশ নেয় মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (এমসিসিআই) এবং বাংলাদেশ চেম্বার অব ইন্ডাস্ট্রিজ (বিসিআই)। এনবিআর চেয়ারম্যান নজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনায় উভয় সংগঠনই আয়কর, শুল্ক ও ভ্যাটসংক্রান্ত একগুচ্ছ প্রস্তাব দেয়। আলোচনায় বিসিআইয়ের নেতৃত্ব দেন সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু এবং এমসিসিআইয়ের সহ-সভাপতি গোলাম মাইনুদ্দিন। এ সময় এনবিআরের ঊর্ধ্বতন সদস্য ও সংগঠন দুটির পরিচালকরা উপস্থিত ছিলেন।

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, শুধু উপজেলা পর্যায়ে নয়, করনেট বৃদ্ধিতে ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার ব্যবহার করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী জনগণের ওপর করের বোঝা কমিয়ে করনেট বৃদ্ধিতে নিরলস কাজ করছে এনবিআর। ভবিষ্যতে শুধু ব্যবসায়ী শিল্পপতি নয়, করযোগ্য সবাইকে করের আওতায় নিয়ে আসতে এনবিআর কাজ করছে। তিনি আরও বলেন, আগামী বাজেটে নারীর ক্ষমতায়নকে গুরুত্ব দেয়া হবে। এছাড়া চলতি মাসের মাঝামাঝি সময় থেকে ভ্যাট রি-রেজিস্ট্রেশন শুরু হবে বলে জানান তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here