ওটিসি মর্কেটে গতি নেই কেনো?

0
240

স্টাফ রিপোর্টার : ওভার দ্য কাউন্টার (ওটিসি) মার্কেটে গতি নেই কোনো । অলস ও নিস্তেজ অবস্তায় এই মার্কেটের সব শেয়ার। লেনদেনে কোনো গতি নেই। যে কারণে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের এই মার্কেটে কিছু কোম্পানির প্রতি আগ্রহ থাকলেও তারা বিনিয়োগে যাচ্ছেন না।বিনিয়োগে না যাওয়ার পেছনে কারণ হিসেবে  সাধারণ বিনিয়োগকারীরা উল্লেখ করেছেন ৬টি কারণ।

২০০৯ সালের ৬ সেপ্টেম্বর প্রতিষ্ঠিত হওয়া ওটিসি মার্কেটে আজও গতি ফিরে আসেনি। সংশ্লিষ্টরা মনে করেন- ৬ কারণের মধ্যে রয়েছে নতুন কোম্পানি তালিকাভুক্ত না করা, লিস্টিং রুলস এবং কমিটি না থাকা, নিজস্ব সফটওয়্যারের অভাব, অটোমেটেড ট্রেড সিস্টেম চালু না থাকা, স্বল্প পরিসরে এ মার্কেট প্রতিষ্ঠিত হওয়া, লেনদেনের ক্ষেত্রে বিক্রেতার অপশন থাকলেও ক্রেতার অপশন না থাকা।

পদক্ষেপগুলো বাস্তবায়ন হলে বিশ্বের অন্য দেশের মতো আমাদের দেশের ওটিসি মার্কেটও গতিশীল হবে। এ মার্কেটের পরিসর আরো বাড়ানো হলে নিষ্ক্রিয়তার ছাপ মুছে মূল মার্কেটের মতো ওটিসিও সক্রিয় অবস্থায় থাকবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। এ বিষয়টি বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) বিবেচনা করা জরুরি বলেও মনে করছেন তারা।

তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, ইতিমধ্যে ভোগান্তির ও গলার কাঁটা হিসেবে ওভার দ্য কাউন্টার (ওটিসি) মার্কেট ব্যাপক সুনাম অর্জন করেছে। কারণ হিসেবে জানা গেছে, যেসব কোম্পানিকে অনেকটা ধর পাকড়াও করে এ মার্কেটে নিয়ে আসা হয়েছে প্রায় অধিকাংশেরই পারফরমেন্স মন্দের সিঁড়ি পাড়ি দিচ্ছে। শুধু অল্পকিছু কোম্পানি যেগুলো নিয়মিত উৎপাদনের পাশাপাশি লাভে রয়েছে।

বিনিয়োগকারীরা বলছেন, এ মার্কেটের কোম্পানিগুলোতে তাদের অনেক টাকা আটকে রয়েছে। যার নেপথ্যে এ মার্কেট প্রতিষ্ঠার পর থেকে আজও পায়নি সক্রিয়তা। নিয়মিত লেনদেনের অভাব ও লেনদেন হলেও হাতেগোনা ২/১টি কোম্পানি ছাড়া অন্য কোনো কোম্পানিতে ক্রেতাদের কোনো আগ্রহ নেই। ফলে নিষ্ক্রিয়তার সাইনবোর্ড গলায় ঝুঁলিতে ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে অবস্থান করছে এটি।

এছাড়া মূল মার্কেটে লেনদেন করতে নতুন নতুন সফটওয়্যার যুক্ত করা হচ্ছে অথচ ওটিসিতে নতুন সফটওয়্যার যুক্ত করা হয়নি। অদ্যাবধি এ বাজারের নিজস্ব কোনো ওয়েবসাইটই নেই, বর্তমানে ডিএসই’র ওয়েবসাইট ব্যবহার করে ঢিমেতালে এর কার্যক্রম চলছে। মূল মার্কেটে টেসা সফটওয়্যার, নতুন করে এমএসএ প্লাস চালু করা হলেও ওটিসি গুরুত্বহীন। ফলে ওটিসির কার্যক্রম থমকে রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here