এ্যাস্কয়ার নিটের আইপিও আবেদন শুরু ৬ জানুয়ারি

0
1788

স্টাফ ‍রিপোর্টার : বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে অর্থ সংগ্রহে অনুমোদন পাওয়া এ্যাস্কয়ার নিট কম্পোজিটের আইপিও চাঁদা গ্রহণ ৬ জানুয়ারি, রোববার শুরু হয়ে চলবে আগামী ২০ জানুয়ারি পর্যন্ত। এ্যাস্কয়ার নিট কম্পোজিট লিমিটেড আইপিওর মাধ্যমে বাজার থেকে ১৫০ কোটি টাকা উত্তোলন করবে।

এর আগে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) গত বছর ২৭ নভেম্বর বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে কোম্পানিটিকে ৩ কোটি ৪৮ লাখ ৯৫ হাজার ৮৩৩ টি সাধারণ শেয়ার প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে ইস্যু করার অনুমোদন দেয়। বুক বিল্ডিং পদ্ধতির মাধ্যমে ৩ কোটি ৪৮ লাখ ৯৫ হাজার ৮৩৩টি শেয়ারের মধ্যে ২ কোটি ৮ লাখ ৩৩ হাজার ৩৩২টি শেয়ার ৪৫ টাকা মূল্যে যোগ্য বিনিয়োগকারীদের কাছে ইস্যু করা হবে।

এছাড়া কোম্পানির ১ কোটি ৪ লাখ ৬২ হাজার ৫০১ টি সাধারণ শেয়ার ৪০ টাকা মূল্যে (প্রান্ত সীমা মূল্য থেকে ১০ শতাংশ বাট্টায়) সাধারণ বিনিয়োগকারীদের নিকট বিক্রি করা হবে।

এর আগে গতবছর ৯ জুলাই থেকে কোম্পানির নিলাম শুরু হয়ে চলে ১২ জুলাই বিকেল ৫টা পর্যন্ত। নিলামে কোম্পানিটির কাট-অফ প্রাইস নির্ধারণ করা হয় ৪৫ টাকায়। গত বছর ২৩ জানুয়ারি বিএসইসির কমিশন সভায় কোম্পানিটিকে শেয়ার দর নির্ধারণের জন্য বিডিংয়ের অনুমোদন দেয় কমিশন।

এ্যাস্কয়ার নিট কম্পোজিট লিমিটেড আইপিওর মাধ্যমে বাজার থেকে ১৫০ কোটি টাকা উত্তোলন করবে। আইপিওর মাধ্যমে সংগ্রহ করা টাকায় কোম্পানিটি ব্যবসা সম্প্রসারণ, ভবন নিমার্ণ, ডাইং ও ওয়াশিং প্লান্টের জন্য যন্ত্রপাতি কিনবে।

পুঁজিবাজার থেকে সংগৃহীত অর্থের মধ্যে ভবন নির্মাণে ব্যয় করা হবে ১০০ কোটি ৪২ লাখ টাকা। নারায়ণগঞ্জের কাঁচপুর এবং ময়মনসিংহের ভালুকায় এ ভবন নির্মিত হবে। কোম্পানিটির কাঁচপুর প্রকল্পের জন্য ডাইং মেশিনারিজ কিনতে খরচ হবে ২১ কোটি ২৩ লাখ ১৯ হাজার টাকা। একই সঙ্গে কাঁচপুরে কেনা হবে ওয়াশিং প্লান মেশিনারিজ। যার জন্য ব্যয় হবে ২১ কোটি ৯০ লাখ ৭৬ হাজার টাকা। আর আইপিও বাবদ খরচ করা হবে ৬ কোটি ৪৩ লাখ ৮৮ হাজার টাকা

এস্কয়ার নিট কম্পোজিটের প্রতিটি শেয়ারের অভিহিত মূল্য ১০ টাকা। ২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত কোম্পানির অনুমোদিত মূলধন ছিল ২০০ কোটি টাকা। আর পরিশোধিত মূলধন ছিল ১০০ কোটি টাকা।

এ্যাস্কয়ার নিট কম্পোজিট ২০০০ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। কোম্পানিটিতে নিটিং, প্রিন্টিং, এমব্রয়ডায়রি, লন্ড্রি ও গার্মেন্টস ইউনিট রয়েছে।

৩০ জুন,২০১৮ সমাপ্ত হিসাব বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস হয়েছে ৩ টাকা ৪৪ পয়সা (বেসিক)। আলোচ্য বছরে কোম্পানির সম্পদ পুনর্মূল্যায়ন পরবর্তী শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) ছিল ৪৯ টাকা ২৭ পয়সা। আর পুনর্মূল্যায়ন ছাড়া এনএভি ২৯ টাকা ৪০ পয়সা।

উল্লেখ্য, ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে প্রাইম ফাইন্যান্স ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড। আর রেজিস্ট্রার টু দ্য ইস্যুর দায়িত্বে রয়েছে আইসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here