এসিআই বাজারে নিয়ে এলো গৃহস্থালি পণ্য

0
459

স্টাফ রিপোর্টার : এসিআই প্রিমিও প্লাস্টিকস ব্র্যান্ডের আওতায় প্লাস্টিকের গৃহস্থালি পণ্য ও ফার্নিচার বাজারে এনেছে এসিআই লিমিটেডের সাবসিডিয়ারি প্রিমিয়াফ্লেক্স প্লাস্টিকস লিমিটেড (পিপিএল)। ২০২৫ সালের মধ্যে নিজ ইন্ডাস্ট্রিতে শীর্ষস্থানে যাওয়ার কর্মপরিকল্পনা নিয়ে রোববার এসিআই প্রিমিও প্লাস্টিকের লোগো উন্মোচন ও আনুষ্ঠানিকভাবে বিপণন কার্যক্রম উদ্বোধন করেছে কোম্পানিটি।

প্রকল্পে প্রাথমিকভাবে বিনিয়োগ করা হচ্ছে ৪৮ কোটি ৬৮ লাখ ৮০ হাজার টাকা। পিপিএলের ৮৭ দশমিক ৩২ শতাংশ শেয়ার থাকবে এসিআই লিমিটেডের হাতে।

রাজধানীর এসিআই সেন্টারে প্রিমিও প্লাস্টিকসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পিপিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ড. ফা. হ আনসারী, পিপিএলের ভেঞ্চার এসিআই প্রিমিও প্লাস্টিকসের বিজনেস ডিরেক্টর প্রদীপ কুমার পোদ্দার, এসিআই কনজিউমার গুডসের এমডি সৈয়দ আলমগীর, এসিআই ফার্মার এমডি এম মহিবুজ্জামান, এসিআই মোটরসের নির্বাহী পরিচালক সুব্রত রঞ্জন দাস, এসিআই লিমিটেডের প্রধান অর্থ কর্মকর্তা ও নির্বাহী পরিচালক প্রদীপ কর চৌধুরীসহ গ্রুপের শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তারা বক্তব্য রাখেন। এ সময় দেশব্যাপী নিযুক্ত ডিলার প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে কর্মকর্তারা আশা প্রকাশ করেন, চীন ও তাইওয়ানের প্রযুক্তির মাধ্যমে উন্নত প্লাস্টিক রেজিন থেকে উৎপাদিত এসব পণ্য বাজারে ভালো অবস্থান করে নেবে। ২০২৫ সালের মধ্যে প্লাস্টিক পণ্যের স্থানীয় বাজারের এক-চতুর্থাংশ দখলে নিয়ে শীর্ষস্থানে উঠে আসতে চায় পিপিএল। এজন্য ইন্ডাস্ট্রির সবচেয়ে দক্ষ ২৫০ মানুষ পিপিএলে কাজ শুরু করেছেন। আপাতত প্লাস্টিকের গৃহস্থালি ও ফার্নিচারে ৩৫টি রঙের ২০০ পণ্য নিয়ে যাত্রা করলেও আগামীতে ইন্ডাস্ট্রিয়াল ও ইঞ্জিনিয়ারিং প্লাস্টিক পণ্য উৎপাদন ও বিক্রি করবে পিপিএল।

স্টক এক্সচেঞ্জ মারফত এসিআই বিনিয়োগকারীসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে জানিয়েছে, ২০১৮-১৯ হিসাব বছরে এসিআই প্রিমিও প্লাস্টিকসের বিক্রয় লক্ষ্যমাত্রা ১৩০ কোটি টাকা, পরের বছর যা প্রায় ১৯০ কোটি এবং ২০২০-২১ হিসাব বছরে তা ২০০ কোটি টাকা ছাড়াবে বলে আশা করা হচ্ছে।

৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৭ হিসাব বছরে এসিআই গ্রুপের মূল কোম্পানি এসিআই লিমিটেডের সম্মিলিত বিক্রি ৫২ শতাংশ বেড়ে ৪ হাজার ৭৬৬ কোটি টাকা ছাড়িয়েছে। বছর শেষে অন্তর্বর্তী ৭৫ শতাংশসহ মোট ১১৫ শতাংশ নগদ ও ১০ শতাংশ স্টক লভ্যাংশ দিয়েছে কোম্পানিটি। গেল বছর এর সমন্বিত শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২৪ টাকা ৩১ পয়সা।

এদিকে চলতি হিসাব বছরের প্রথমার্ধে (জুলাই-ডিসেম্বর) এসিআই লিমিটেডের সমন্বিত ইপিএস হয়েছে ৭ টাকা ৯৯ পয়সা, আগের বছর একই সময়ে যা ছিল ১১ টাকা ৬৭ পয়সা। ৩১ ডিসেম্বর শেয়ারপ্রতি সমন্বিত নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ২২৭ টাকা ৪০ পয়সা।

এসিআই লিমিটেড শেয়ারবাজারে আসে ১৯৭৬ সালে। বর্তমানে এ কোম্পানির অনুমোদিত মূলধন ৫০ কোটি ও পরিশোধিত মূলধন ৪৮ কোটি ২০ লাখ ২০ হাজার টাকা। রিজার্ভ রয়েছে ৯৫৯ কোটি ৯ লাখ টাকা। কোম্পানির মোট শেয়ারের ৪৪ দশমিক ৩০ শতাংশ এর উদ্যোক্তা-পরিচালকদের কাছে, প্রতিষ্ঠান ২৮ দশমিক ৭৯ ও বাকি ২৬ দশমিক ৯১ শতাংশ শেয়ার রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here