এমডিসহ সোনালী আঁশের প্রত্যেক পরিচালকের জরিমানা

1
679
স্টাফ রিপোর্টার : সিকিউরিটিজ আইন ভঙ্গের দায়ে পাট খাতের তালিকাভুক্ত কোম্পানি সোনালী আঁশ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ (এমডি) পর্ষদের সাত সদ্যসকে মোট ১৪ লাখ টাকা জরিমানা করেছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

গত আগস্টে ৫৫২তম কমিশন সভায় অন্যান্য কোম্পানির পাশাপাশি সোনালী আঁশের প্রত্যেক পরিচালককে জরিমানার সিদ্ধান্ত নেয় বিএসইসি। সভা শেষে প্রকাশিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে নিয়ন্ত্রক সংস্থা জানায়, ২০১২ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাব বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক বিবরণীতে ডিরেক্ট ম্যাটেরিয়াল কস্ট ৮২ দশমিক ২১ শতাংশ বৃদ্ধি, বিদেশ ভ্রমণের খরচ আর্থিক বিবরণীতে না দেখানো, পাট ক্রয়ের খরচ বছরের পর বছর সমন্বয় না করা, আর্থিক বিবরণী প্রস্তুতিতে বিলম্বিত করের প্রভাব বিবেচনা না করা, বার্ষিক প্রতিবেদনে ৩০ জুন ২০১২ সমাপ্ত বছরের আর্থিক বিবরণীতে নিরীক্ষকের আপত্তি সংযোজন না করার মাধ্যমে যথাক্রমে বিএএস-১, সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ অধ্যাদেশ ১৯৮৭-এর ধারা ১২(২) ও সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ অধ্যাদেশ, ১৯৬৯-এর ধারা ১৮ লঙ্ঘন করেছে সোনালী আঁশ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড। এজন্য কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক নূরুল ইসলাম পাটোয়ারীসহ মোট সাত পরিচালককে ২ লাখ টাকা করে জরিমানার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

এদিকে ডিএসইতে সোমবার সোনালী আঁশের শেয়ারদর ২ দশমিক ৫৫ শতাংশ বা ৩ টাকা ৩০ পয়সা কমে দাঁড়ায় ১২৬ টাকা ১০ পয়সা। দিনভর দর ১২৬ টাকা ১০ পয়সা থেকে ১৩১ টাকা ৯০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে। এদিন ২৩৮ বারে এ কোম্পানির মোট ২১ হাজার ৯৮০টি শেয়ার লেনদেন হয়। গত এক বছরে এ শেয়ারের দর ৮২ থেকে ১৪৬ টাকার মধ্যে ওঠানামা করে।

এদিকে ২৩ ডিসেম্বর বেলা ১১টায় রাজধানীর শান্তিনগরের হোটেল হোয়াইট হাউজে বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আয়োজন করবে সোনালী আঁশ। এজিএমের রেকর্ড ডেট ছিল গত ৩০ নভেম্বর।

৩০ জুন ২০১৫ সমাপ্ত হিসাব বছরের জন্য ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে প্রতিষ্ঠানটি। সর্বশেষ নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুসারে, ২০১৫ হিসাব বছরে সোনালী আঁশ শেয়ারপ্রতি ৬০ পয়সা লোকসান করেছে; যেখানে আগের বছর শেয়ারপ্রতি নিট মুনাফা (ইপিএস) ছিল ৬০ পয়সা। গেল বছর নিট লোকসান হয়েছে ১৬ লাখ ২০ হাজার টাকা।

২০১৪ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাব বছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দেয় সোনালী আঁশ। নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুসারে, সে হিসাব বছরে কোম্পানির কর-পরবর্তী মুনাফা হয় ১৬ লাখ ২০ হাজার টাকা ও ইপিএস ৬০ পয়সা। শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) ছিল ২২৫ টাকা ৫৮ পয়সা; এ বছর যা ২২৩ টাকা ৯৮ পয়সায় নেমে এসেছে।

১৯৮৫ সালে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত রফতানিমুখী কোম্পানিটির অনুমোদিত মূলধন ১০ কোটি ও পরিশোধিত মূলধন ২ কোটি ৭১ লাখ টাকা। রিজার্ভে আছে ৫৮ কোটি ৪৭ লাখ টাকা। কোম্পানির মোট শেয়ারের ৬২ শতাংশ উদ্যোক্তা-পরিচালক ও বাকি ৩৮ শতাংশ শেয়ার রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here