এনভয় টেক্সটাইলের তথ্য গোপন রহস্যজনক

0
471
স্টাফ রিপোর্টার : বস্ত্রখাতের কোম্পানি এনভয় টেক্সটাইল লিমিটেডের কর্তৃপক্ষ তথ্য গোপন করেছে। কোম্পানিটি এখন পর্যন্ত শতভাগ উৎপাদনে আসতে পারেনি। নানাবিধ কারণে উৎপাদনে আসতে না পারলেও শতভাগ রপ্তানীমূখী হিসেবে দাবি করেছে।
অপরদিকে, প্রতিষ্ঠানটি তার প্রতিবেদনে উল্লেখ করে- ‘প্রকল্পের কমবেশি ৫০ শতাংশ পরীক্ষামূলক উৎপাদনে এসেছে’। তথ্যটি পুঁজিবাজারের জন্য মূল্য সংবেদনশীল। যা এনভয় টেক্সটাইল কর্তৃপক্ষ স্টক এক্সচেঞ্জগুলোর মাধ্যমে প্রচার করেনি। তবে অনেক বিনিয়োগকারী কোম্পানিটির এমন তথ্য গোপনকে রহস্যজনক বলে মনে করছেন।
প্রতিষ্ঠানটির কর্তৃপক্ষ তাদের প্রতিবেদনে জানায়, ‘শতভাগ রপ্তানীমূখী ডেনিম ফেব্রিক্স উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান। যা বাংলাদেশে স্থাপিত প্রথম রোপ ডাইয়িং প্রযুক্তির প্রতিষ্ঠান। বর্তমান বার্ষিক উৎপাদন ক্ষমতা ২৪ মিলিয়ন গজ। প্রকৃত উৎপাদন ক্ষমতা ২১ মিলিয়ন গজ। এর সম্প্রসারিত অতিরিক্ত ২৬ মিলিয়ন বার্ষিক উৎপাদন ক্ষমতাসম্পন্ন প্রকল্পের কমবেশি ৫০ শতাংশ ইতোমধ্যে পরীক্ষামূলক উৎপাদনে আছে।”
এমন তথ্যটি সংবেদনশীল হওয়ায় প্রতিস্ঠানটি প্রচার করেনি। তবে বাজারে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের মধ্যে গুজব রয়েছে- প্রতিস্ঠানটি শতভাগ উৎপাদনমূখী প্রতিষ্ঠান। এমন সংবেদনশীল তথ্য প্রকাশের পরে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে।
প্রতিবেদনে আরো উল্লেখ করা হয়- ‘মূলধনী বিনিয়োগ হতে এখনো লাভ শুরু হয়নি, অন্যদিকে মূলধনী বিনিয়োগ বাবদ ব্যয় মুনাফার বিপরীতে আরোপিত হওয়ায় শেয়ারপ্রতি আয়ে প্রতিকূল প্রভাব পড়েছে; সম্প্রসারিত উৎপাদন ক্ষমতা পূর্ণদ্যোমে চালু হলে আশা করি অদূর ভবিষ্যতে এর সন্তোষজনক প্রতিফলন দেখা যাবে। এতদসত্ত্বেও কর পরবর্তী মুনাফা ২.৬৬ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে গত বছরের অর্জিত ৪২৬.২৬ মিলিয়ন থেকে এ বছরে ইমারত অবকাঠামো নির্মাণ বাবদ একটি দৃশ্যমান অংকের বিনিয়োগ করেছে।’
এনভয় টেক্সটাইলের এমন তথ্যটি পুঁজিবাজারের জন্য মূল্য সংবেদনশীল। অনেক বিনিয়োগকারী বলেছেন, প্রতিষ্ঠানটি শেয়ার দর বৃদ্ধির জন্য এমন প্রতারণার আশ্রয় নিয়েছে।
এনভয় টেক্সটাইলের ২০১৩ সালের প্রতিবেদনটি দেখতে–

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here