এক মাসের মধ্যে সর্বচ্চো লেনদেন ৮২০কোটি টাকা

0
377

আজ ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ এর – ডিএসই এক্স ইনডেক্স দিনের শুরু থেকেই ক্রয়চাপের ফলে ঊর্ধ্বমুখি প্রবনতা নিয়ে বৃদ্ধি পেতে থাকে এবং  ধারাবাহিক ক্রয়চাপের ফলে ডিএসই এক্স ইনডেক্স ৭৩ পয়েন্ট বাড়লেও দিনশেষে ডিএসই এক্স ইনডেক্স  ৩৭.৯১ পয়েন্ট বৃদ্ধি পেয়ে বুলিশ  ক্যান্ডেলস্টিক তৈরি করে। ডিএসই এক্স ইনডেক্স ৩৭.৯১ পয়েন্ট বৃদ্ধি পেয়ে ৪১৬৩.১৮ পয়েন্টে অবস্থান করছে, যা আগের দিনের তুলনায় ০.৯১% বৃদ্ধি পেয়েছে।

বর্তমানে ডিএসই এক্স ইনডেক্স এর পরবর্তী সাপোর্ট ৩৬৮৪ পয়েন্টে এবং রেজিটেন্স ৪৪২৪  পয়েন্টে অবস্থান করছে। আজ বাজারে এম.এফ.আই এর মান ছিল  ৭৩.৭৫ এবং আল্টিমেট অক্সিলেটরের মান ৪৯.৭৪ ছিল । এম.এফ.আই কিছুটা ঊর্ধ্বমুখি আবস্থান করছে, এম.এফ.আই কিছুটা বৃদ্ধি পেয়েছে । অন্যদিকে আল্টিমেট অক্সিলেটর কিছুটা নিন্মমুখি আবস্থান করছে।

আজ ডিএসইতে ১৩ কোটি ৬৯ লাখ ৪৭ হাজার ২৪৬  টি শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড লেনদেন হয়, যার মূল্য ছিল ৮২০.৩০ কোটি টাকা। আজ ডিএসইতে লেনদেন বৃদ্ধি পেয়েছে ১৬ কোটি টাকা।  আজ ঢাকা শেয়ারবাজারে ২৮৮ টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের লেনদেন হয়েছে, যার মধ্যে দাম বেড়েছে ১৭১ টির, কমেছে ৯২ টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ২৫ টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম।

পরিশোধিত মূলধনের দিক থেকে দেখা যায়, আজ বাজারে চাহিদা বেশি ছিল ৩০০ কোটি টাকার ওপরে পরিশোধিত মূলধনী প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের যা আগেরদিনের তুলনায় ২.৪৮% বৃদ্ধি পেয়েছে। অন্যদিকে হ্রাস পেয়েছে ১০০-৩০০ কোটি টাকার  পরিশোধিত মূলধনী প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের  যা আগেরদিনের তুলনায় ৩.৩৭% কম। ৫০-১০০ কোটি টাকার মুলধনী প্রতিষ্ঠানের লেনদেনের পরিমান গতকালের তুলনায় আজ ০.৮৩ % হ্রাস পেয়েছে।

আজ পিই রেশিও  ২০-৪০ এর  মধ্যে থাকা শেয়ারের লেনদেন আগের দিনের তুলনায় যথাক্রমে ৬.১৬ %বৃদ্ধি পেয়েছে। আজ হ্রাস পেয়েছে  পিই রেশিও ০-২০ এবং  পিই রেশিও ৪০এর ওপরে থাকা শেয়ারের লেনদেন যার পরিমান আগের দিনের তুলনায় যথাক্রমে ৫.৫৭% এবং ০.৬০% কম ছিল।

ক্যাটাগরির দিক থেকে আজ এগিয়ে ছিল ‘এ’, ‘বি’ এবং ‘জেড’ ক্যাটাগরির শেয়ারের লেনদেন যা আগেরদিনের তুলনায় যথাক্রমে ০.৩২%, ০.১১% এবং ০.২৫ বেশী ছিল। আজ  হ্রাস পেয়েছে ‘এন’ ক্যাটাগরির শেয়ারের লেনদেন যা আগেরদিনের তুলনায়  ০.৯৩%   কম ছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here