ঋণখেলাপি ঠেকাতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক

0
177

সিনিয়র রিপোর্টার : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঋণখেলাপিদের প্রার্থিতা ঠেকাতে বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। খেলাপি প্রার্থী ঠেকাতে শাখা পর্যায়ে, তফসিলি ব্যাংকগুলো কেন্দ্রীয়ভাবে এবং বাংলাদেশ ব্যাংক আলাদাভাবে প্রার্থীদের ঋণের তথ্য যাচাই-বাছাই করবে। এলাকাভিত্তিক তথ্য যাচাই-বাছাই করতে ব্যাংকগুলোর শাখা ব্যবস্থাপকরা সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে প্রার্থীদের তালিকা নেবেন।

রিটার্নিং কর্মকর্তাদের সহায়তা দিতে শাখা থেকে একজন কর্মকর্তাকে এ কাজে সমন্বয় করতে বলা হচ্ছে। তবে কোনো কোনো প্রার্থীর নিজের এলাকার বাইরে ব্যাংকে লেনদেন তথ্য থাকতে পারে। এ জন্য নির্বাচন কমিশন থেকে প্রার্থীদের তালিকা নিয়ে কেন্দ্রীয়ভাবে তা পরীক্ষা -নীরিক্ষা করতে হবে।

অন্যদিকে, বাংলাদেশ ব্যাংক নির্বাচন কমিশনের তালিকা নিয়ে অটোমেডেট সিআইবি থেকে যাচাই-বাছাই করবে। জানা গেছে, ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা মনোনয়ন দাখিলের দিন থেকে বাছাই শেষ না হওয়া পর্যন্ত নিজ নিজ কার্যক্রম চালিয়ে যাবে। প্রয়োজনে ব্যাংকের কর্মকর্তারা মনোনয়নপত্র বাছাইকালে সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং কর্মকর্তার অফিসে থাকবেন। তা ছাড়া বিভিন্ন সূত্র থেকে পাওয়া তালিকা ধরেও ব্যাংকগুলোকে কাজ করতে বলা হচ্ছে এবার।

শাখা পর্যায় থেকে প্রার্থীদের তথ্য রিটার্নিং কর্মকর্তার দপ্তরে সরবরাহ করার সঙ্গে সঙ্গে তা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের (এমডি) দপ্তরে পাঠাতে হবে। খেলাপির হালনাগাদ তালিকার সঙ্গে প্রধান কার্যালয়ের তালিকা মিলিয়ে দেখে যদি কোনো খেলাপি প্রার্থীর সন্ধান মেলে তবে সেসব তথ্য নির্বাচন কমিশন, রিটার্নিং অফিসার, শাখার ব্যবস্থাপক ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সিআইবিতে পাঠাতে হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংক সম্প্রতি নতুন নির্দেশনা জারি করেছে। সে মোতাবেক কোনো ব্যক্তির যদি এক টাকাও ঋণ থাকে তার রিপোর্ট পাঠাতে হচ্ছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কাছে। ফলে ছোট বড় আকারের যে ঋণই থাকুক না কেন, তা নিয়মিতকরণ করতে হবে। এবারই প্রথম ব্যাংকে যে কোনো পরিমাণের খেলাপি ঋণের দায়ে আটকে যেতে পারে প্রার্থিতা।

নির্বাচন কমিশনের ঘোষণা মোতাবেক ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। পুনঃতফসিল অনুযায়ী আগামী ২ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র বাছাই করা হবে। আর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ সময় ৯ ডিসেম্বর।

এদিকে মন্ত্রিসভার সায় না মেলার কারণে ভ্যাট ও শুল্ক খেলাপিদের ধরবে না এনবিআর। আগামী বছর থেকে ভ্যাট ও শুল্ক খেলাপিরা নির্বাচনে করতে পারবে না।

সম্প্রতি এনবিআর চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বলেন, এবারের নির্বাচনটা চলে যাক, তারপর নতুন সরকারের প্রথম দিক থেকেই এ ব্যাপারে একটা উদ্যোগ নেয়া হবে। এব্যাপারে আমরা উদ্যোগ নিয়েছিলাম। কিন্তু শেষ মুহূর্তে বলে মন্ত্রিসভা থেকে এতে সায় আসেনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here