উত্থানে ইনফরমেশন সার্ভিসেস, দরবৃদ্ধির শীর্ষে

0
774

স্টাফ রিপোর্টার : সাম্প্রতিক দর সংশোধনের পর ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ইনফরমেশন সার্ভিসেস নেটওয়ার্ক (আইএসএন) লিমিটেডের শেয়ারদর আবারো বাড়তে শুরু করেছে। সমাপনী দর ১০ শতাংশ বাড়ায় সোমবার ডিএসইর দরবৃদ্ধির তালিকায় ১ নম্বরে উঠে আসে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের কোম্পানিটি। সারা দিনে ১৫৮ বারে কোম্পানিটির মোট ১ লাখ ৮৮ হাজার ৪৬৮টি শেয়ার লেনদেন হয়।

বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা যায়, গত এক বছর ধরে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় রয়েছে আইএসএনের শেয়ারদর। কয়েক দফা সংশোধনের মধ্য দিয়ে এ সময়ের ব্যবধানে শেয়ারটির দর ১১ থেকে ২৪ টাকার ঘরে উন্নীত হয়। কোম্পানি কর্তৃপক্ষ অবশ্য স্টক এক্সচেঞ্জকে জানিয়েছে, শেয়ারদর বাড়াতে পারে এমন কোনো অপ্রকাশিত মূল্যসংবেদনশীল তথ্য নেই তাদের হাতে।

ডিএসইতে সর্বশেষ ২৪ টাকা ২০ পয়সায় আইএসএনের শেয়ার হাতবদল হয়। সমাপনী দরও ছিল ২৪ টাকা ২০ পয়সা, আগের কার্যদিবসে যা ছিল ২২ টাকা। গত এক বছরে এ শেয়ারের সর্বোচ্চ দর ছিল ২৪ টাকা ৪০ পয়সা ও সর্বনিম্ন ১১ টাকা ৬০ পয়সা।

৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৭ হিসাব বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ) আইএসএনের শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ১৩ পয়সা, যেখানে আগের বছর একই সময় লোকসান ছিল ১৬ পয়সা। ৩১ মার্চ কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়ায় ১৪ টাকা ৬০ পয়সায়।

এদিকে হিসাব বছরের প্রথম তিন প্রান্তিকে (জুলাই, ২০১৬-মার্চ, ২০১৭) শেয়ারপ্রতি ১১ পয়সা লোকসান দেখিয়েছে আইএসএন, যেখানে আগের বছর একই সময়ে লোকসান ছিল ৪৬ পয়সা।

স্টক এক্সচেঞ্জ সূত্রে জানা গেছে, টানা চার বছর ধরে লোকসানে রয়েছে আইএসএন। ২০১৩ হিসাব বছর থেকেই লোকসান করতে শুরু করে কোম্পানিটি। সে সময় কর পরিশোধের পর কোম্পানিটির ১ কোটি ১২ লাখ ৭৯ হাজার টাকা লোকসান হয়। ২০১৪ সালেও ৭৬ লাখ ৯০ হাজার টাকা লোকসান হয় কোম্পানিটির।

আর্থিক আইন ২০১৫ পরিপালনের জন্য আইএসএন ২০১৫ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১৬ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত ১৮ মাসে হিসাব বছর গণনা করে। এর মধ্যে ১ জানুয়ারি ২০১৫ থেকে ৩১ ডিসেম্বর ২০১৫ পর্যন্ত ১২ মাসে লোকসান হয় ৪৩ লাখ ৪০ হাজার টাকা। আর ১ জানুয়ারি ২০১৬ থেকে ৩০ জুন ২০১৬ পর্যন্ত ৬ মাসে লোকসান হয়েছে ৩৬ লাখ ৪০ হাজার টাকা। সব মিলিয়ে ১৮ মাসে কোম্পানিটির লোকসান হয়েছে ৭৯ লাখ ৮০ হাজার টাকা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here