ঈদে মিলছে না প্রত্যাশিত ছুটি

0
1361

সিনিয়র রিপোর্টার : ঈদ উপলক্ষে বরাবরই সরকারি প্রতিষ্ঠানের তুলনায় পুঁজিবাজারে ছুটি বেশি থাকে। তবে এবার ছুটি বাড়ছে না। কারণ গত মার্চে সাপ্তাহিক ও সরকারি ছুটি মিলিয়ে বন্ধ ছিল পুঁজিবাজার। এর সঙ্গে যোগ হয়েছে আন্তর্জাতিক কৌশলগত পার্টনার হিসেবে চীনা কনসোর্টিয়াম যুক্ত হওয়া।

চুক্তি-পরবর্তী কাজে এখন ব্যস্ত সময় পার করছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)। এসব কারণে এবার ঈদের ছুটি বাড়ছে না।

সূত্র জানায়, ঈদের আগে (আজ) মঙ্গলবার বৈঠকে বসছে ডিএসইর পরিচালনা পর্ষদ। বৈঠকের এজেন্ডায় বিষয়টি না থাকলেও ঈদের ছুটি নিয়ে আলোচনা হবে। সরকারি ছুটি যতদিন হবে, পুঁজিবাজারও ততদিন বন্ধ দেওয়া হবে- বলে ডিএসইর অধিকাংশ পরিচালক মনে করছেন।

জানা গেছে, ২০১৫ সালে ঈদের ছুটি ছিল পাঁচ দিন। ২০১৬ সালে শবে-কদর, ঈদের আগে ও পরে সাপ্তাহিক বন্ধ এবং প্রধানমন্ত্রীর নির্বাহী আদেশে একদিন ছুটি মিলে সরকারি মোট ছুটি ছিল ৯ দিন। এ জন্য পুঁজিবাজারও ৯ দিন বন্ধ ছিল। ২০১৭ সালের দুই ঈদে (ঈদুল ফিতর ও আজহার) ছুটি ছিল পাঁচ দিন। এর মধ্যে ঈদের ছুটি ছিল তিন দিন ও সাপ্তাহিক ছুটি ছিল দুই দিন।

এবার সাপ্তাহিক ছুটির দিনেই ঈদুল ফিতর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। সেক্ষেত্রে অতিরিক্ত ছুটি দেওয়া নাও হতে পারে। অপরদিকে বাজেট অধিবেশন হওয়ায় সরকারি ছুটিও বেশি দেওয়া হচ্ছে না। এসব বিবেচনায় এবার ডিএসই অতিরিক্ত ছুটি দেওয়ার চিন্তা করছে না।

ঈদ-পরবর্তী বিনিয়োগকারীদের উপস্থিতি কম থাকে পুঁজিবাজারে। এ সময় দেশের দুই পুঁজিবাজারেই লেনদেনও কম হয়। এ জন্য অন্যান্য সময়ে ঈদের ছুটির সঙ্গে অতিরিক্ত ছুটি দেওয়া হয়ে থাকে পুঁজিবাজারে। কিন্তু গত দুই বছর ধরে ঈদের ছুটির সঙ্গে সাপ্তাহিক ছুটি যোগ হওয়ায় অতিরিক্ত ছুটি দেওয়ার প্রয়োজন হয়নি।

অবশ্য ব্রোকারেজ প্রতিষ্ঠানগুলো বলছে, এখন অনলাইনে পুঁজিবাজারের সব তথ্য দেখা যায়। ছুটিতে ঢাকার বাইরে যাওয়া বিনিয়োগকারীরা দেশের যে কোনো প্রান্ত থেকেই শেয়ার ক্রয়-বিক্রয় করতে পারবেন। এ জন্য ছুটি কম হলেও বাজারে তেমন প্রভাব পড়বে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here