ঈদে মার্কেট প্রফিট্যাবল

1
2118

হোসাইন আকমল : সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় ঈদের আগে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ বিদ্যমান। ট্রেডিংয়ের ক্ষেত্রে সূচকের ওঠা-নামা স্বাভাবিক হওয়ায় লাভজনক অবস্থায় রয়েছে ক্যাপিটাল মার্কেট। তবে ঈদ-পরবর্তী বাজারের অবস্থা আরো ভাল হবে- এমনটাই মনে করছেন ট্রেডার ও বিনিয়োগকারীরা।

রাজধানীর কারওয়ানবাজারে হ্যাক সিকিউরিটিজের অথোরাইজড রিপ্রেজেন্টেটিভ সুমন বলেন, প্রত্যাশা অনেক বেশি হলেও ঈদের আগে বাজারে লেনদেনের অবস্থা মোটামুটি ভাল। তবে গতবার মার্কেট আরো আপ(উপরের দিকে) ছিল।

তিনি বলেন, আর কিছুদিন পর পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর। ঈদের পর মার্কেট আরো ভালোর দিকে যাবে। পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের পরিবেশ ইতিবাচক থাকায় ঈদের পর বসে না থেকে তিনি আবার ইনভেস্ট করার আহ্বান জানান বিনিয়োগকারীদের।

DSC02639

হ্যাক সিকিউরিটিজের অপর রিপ্রেজেন্টেটিভ রুমি বলেন, লেনদেনের চিত্র ভাল। অনেকেই প্রফিট করতে পেরেছে। তবে ঈদের পর লেনদেন আরো বাড়বে বলে তিনি আশা করেন।

এ্যাপেক্স সিকিউরিটিজের অথোরাইজড রিপ্রেজেন্টেটিভ আনিস বলেন, গতবারের ন্যায় এবারের ঈদেও লেনদেন পরিস্থিতি অনেকটা অনুকুলে। স্থিতিশীল রয়েছে ক্যাপিটাল মার্কেট। সূচক খুব একটা কমছেনা বা বাড়ছেনা। এমন পরিবেশই বিনিয়োগ উপযোগী।

DSC02657

বাজার পরিস্থিতি নিয়ে স্টক বাংলাদেশের কর্মকর্তা ও বিনিয়োগকারী আরিফ বলেন, বিনিয়োগকারীদের জন্য মার্কেট প্রফিট্যাবল অবস্থায় রয়েছে। কারণ, সূচক পরিবর্তন বা ওঠা-নামার ব্যবধান খুব বেশি নয়, তরঙ্গ স্বাভাবিক। বাজারে এমন অবস্থা বিরাজ করলে বিনিয়োগকারীদের আস্থা বাড়ে।

DSC02649

তিনি বলেন, সূচকের ঊর্ধ্বগতি বা নিম্নমুখী প্রবণতা বেশি মাত্রায় হলে বিনিয়োগকারীরা দ্বিধা-সংকোচে ভোগে। তারা বুঝতে পারেনা- মার্কেট কোন দিকে যাবে। সুতরাং, সূচক ওঠানামা স্বাভাবিক থাকায় ঈদের আগে যে অবস্থা চলছে- তা বিনিয়োগবান্ধব। তবে ঈদের পর বাজারে বিনিয়োগ আরো বাড়বে। কারণ, বিনিয়োগকারীরা এখন ঘরমুখো; ঈদের কেনা-কাটায় ব্যস্ত। ঈদ-খরচার জন্য ক্যাপিটাল মার্কেট থেকে টাকা  ‍তুলে নিয়েছে অনেক বিনিয়োগকারী। ঈদের পর তারা আবার ফিরে আসবে বিনিয়োগে।

স্টক বাংলাদেশের আরেক কর্মকর্তা ও বিনিয়োগকারী সোহাগ বলেন, এখনকার তুলনায় গতবার ঈদের আগে সূচক আরো ঊর্ধ্বমুখী থাকলেও কয়েকটি কারণে এবার লাভের পরিমাণ বেশি। প্রথমতঃ সূচকের স্বাভাবিক, দ্বিতীয়তঃ রাজনৈতিক অচলাবস্থার নিরসন, তৃতীয়তঃ নতুন অর্থবছরের শুরু। বর্তমানে এসব কারণে অধিকাংশ ক্ষেত্রে লাভের মুখ দেখেছে বিনিয়োগকারীরা। তবে ঈদের আগ মুহূর্তে লেনদেন কিছুটা কমে গেছে। কারণ, বিনিয়োগকারীদের অনেকেই ঈদের ব্যয় নির্বাহের জন্য পুঁজিবাজার থেকে কিছু টাকা তুলে নিয়েছে। ঈদের পর তারা আবার লেনদেনে ফিরে আসবে। তখন লেনদেন আরো বাড়বে বলে মনে করেন তিনি।

DSC02652

নতুন বিনিয়োগকারীদের উদ্দেশ্যে সিনিয়র ট্রেডার ও বিনিয়োগকারীরা বলেন, গুজব, পত্রিকার খবর বা দর ওঠা-নামা দেখে বিনিয়োগ করা উচিৎ নয়। তারা বলেন, প্রত্যেক ব্যবসাতেই অভিজ্ঞতার প্রয়োজন। তাই বিনিয়োগের ক্ষেত্রে অভিজ্ঞ বিনিয়োগকারীদের পরামর্শ নেয়া, কোম্পানির সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করাসহ এ্যানালাইসেসের ভিত্তিতে বিনিয়োগ করা ভাল। এ ক্ষেত্রে ভাল কোন প্রতিষ্ঠানে প্রশিক্ষণ নেয়া যেতে পারে।

সকল বিনিয়োগকারীর প্রতি পবিত্র ঈদ-উ-ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়ে তারা বলেন, ঈদের আনন্দ শেষে বিনিয়োগকারীদের ঘরে বসে থাকার সুযোগ নেই। বর্তমানে বাজার পরিস্থিতি ইতিবাচক অর্থাৎ, বিনিয়োগ উপযোগী। তাই ঈদের পর যত দ্রুত সম্ভব সবাইকে বিনিয়োগে মনোনিবেশের আহ্বান জানান তারা।

 

1 COMMENT

Shahadat শীর্ষক প্রকাশনায় মন্তব্য করুন Cancel reply

Please enter your comment!
Please enter your name here