ইমরান হোসেন : ঈদের আগে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ বিরাজ করছে। ট্রেডিংয়ের ক্ষেত্রে সূচকের ওঠা-নামা স্বাভাবিক হওয়ায় লাভজনক অবস্থায় রয়েছে ক্যাপিটাল মার্কেট। তবে ঈদ-পরবর্তী বাজারের অবস্থা আরো ভাল হবে- এমনটাই মনে করছেন ট্রেডার ও বিনিয়োগকারীরা।

লংকাবাংলা সিকিউরিটিজের বিনিয়োগকারী আবদুল্লাহ বলেন, কয়েকটি কারণে ঈদের পর বাজারে বিনিয়োগ আরো বাড়তে পারে। প্রথমতঃ সূচকের ভাল অবস্থায় আছে, দ্বিতীয়তঃ রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা রয়েছে, তৃতীয়তঃ নতুন অর্থবছরের শুরু ,সূদের হার এক ডিজিটে এবং সঞ্চয় পত্রের সূদের হার ঈদের পর কমান হবে বলে পত্র-পত্রিকায় খবর প্রকাশিত হয়েছে। বর্তমানে এসব কারণে অধিকাংশ ক্ষেত্রে বিনিয়োগকারীরা লাভের মুখ দেখছে এবং লেনদেন বৃদ্ধি পাচ্ছে ।

রাজধানীর কারওয়ানবাজারে হ্যাক সিকিউরিটিজের অথোরাইজড রিপ্রেজেন্টেটিভ সুমন বলেন, প্রত্যাশা অনেক বেশি হলেও ঈদের আগে বাজারে লেনদেনের অবস্থা বেশ ভাল। ঈদের পর মার্কেট আরো ভালোর দিকে যাবে বলে আমার মনে হয়। লেনদেনের চিত্র ভাল। অনেকেই প্রফিট করতে পেরেছে। তবে ঈদের পর লেনদেন আরো বাড়বে বলে তিনি আশা করেন।

বাজার পরিস্থিতি নিয়ে জয়তুন ইর্ন্টান্যাশনাল সিকিউরিটিজের বিনিয়োগকারী মোশাররফ হোসেন বলেন, মার্কেটের সার্বিক অবস্থা ভাল। বাজারে এমন অবস্থা বিরাজ করলে বিনিয়োগকারীদের আস্থা বাড়ে। ফলে লেনদেন বৃদ্ধি পায় এবং মার্কেটের সার্বিক অবস্থা আরও ভাল হয়।

তিনি বলেন, ঈদের পর বাজারে বিনিয়োগ আরো বাড়বে। কারণ, বিনিয়োগকারীরা এখন ঘরমুখো; ঈদের কেনা-কাটায় ব্যস্ত। ঈদ-খরচার জন্য ক্যাপিটাল মার্কেট থেকে টাকা  ‍তুলে নিয়েছে অনেক বিনিয়োগকারী। ঈদের পর তারা আবার ফিরে আসবে বিনিয়োগে।

নতুন বিনিয়োগকারীদের উদ্দেশ্যে সিনিয়র ট্রেডার ও বিনিয়োগকারীরা বলেন, গুজব, পত্রিকার খবর বা দর ওঠা-নামা দেখে বিনিয়োগ করা উচিৎ নয়। তারা বলেন, প্রত্যেক ব্যবসাতেই অভিজ্ঞতার প্রয়োজন। তাই বিনিয়োগের ক্ষেত্রে অভিজ্ঞ বিনিয়োগকারীদের পরামর্শ নেয়া, কোম্পানির সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করাসহ এ্যানালাইসেসের ভিত্তিতে বিনিয়োগ করা ভাল। এ ক্ষেত্রে ভাল কোন প্রতিষ্ঠানে প্রশিক্ষণ নেয়া যেতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here