ইসলামী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় ঘেরাও

0
1466

স্টাফ রিপোর্টার : ইসলামী ব্যাংক চাইলেই শ্রমিকদের বকেয়া পরিশোধ করে দিতে পারে। শ্রমিকদের বকেয়া বেতন পরিশোধ করে দ্রুত  গার্মেন্টস চালুর উদ্যোগ নিতে পারে। বাংলাদেশ শ্রমিক ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সভাপতি এ্যাডভোকেট মন্টো ঘোষে এসব কথা বলেন।

রাজধানীর দিলকুশায় ইসলামী ব্যাংকের কেন্দ্রীয় অফিস ঘেরাও করে তিনি বলেন, শ্রমিকদের বিরুদ্ধে ইসলামী ব্যংকের দায়ের করা মামলা প্রত্যাহার করে নিতে হবে। তা নাহলে ভবিষ্যতে আরও কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে।

বকেয়া বেতন পরিশোধ করে কারখানা চালু এবং মামলা প্রত্যাহার দাবিতে বৃহস্পতিবার ইসলামী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় ঘেরাও করে সোয়ান গার্মেন্টসের শ্রমিকরা। এরআগে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায় বিক্ষোভ সমাবেশ করেন শ্রমিকরা।

পরে তারা মিছিল নিয়ে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মতিঝিলের দিলকুশায় ইসলামী ব্যাংকের সামনে তারা অবস্থান গ্রহণ করেন।

সোয়ান গার্মেন্টসের শ্রমিকরা জানান, তারা ঈদের আগ থেকে বকেয়া বেতন ও বোনাসের দাবিতে আন্দোলন করে আসছেন। কিন্তু সরকার বা মালিক কর্তৃপক্ষ তাদের দাবিদাওয়া পূরণে কোনো কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়নি।

তারা জানান, সোয়ান গার্মেন্টসের মালিকের ইসলামী ব্যাংকে এ্যাকাউন্ট (হিসাব) আছে। তিনি এই ব্যাংকে গার্মেন্টস মর্টগেজ রেখেছেন। ইসলামী ব্যাংক ইচ্ছা করলেই তাদের বেতন পরিশোধ করে দিতে পারে। এ ছাড়া গত ১৮ জুন ইসলামী ব্যাংক কর্তৃপক্ষ সোয়ান গার্মেন্টেসের গোডাউনের মালামাল লুটের অভিযোগে শ্রমিকদের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন।

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মতিঝিল বিভাগের উপ-কমিশনার আনোয়ার হোসেন জানান, কিছু দাবিদাওয়া নিয়ে সোয়ান গার্মেন্টসের শ্রমিকরা ইসলামী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়েছেন। আমরা তাদের শাস্তিপূর্ণভাবে কর্মসূচি পালন করতে বলেছি।

তিনি আরও বলেন, কোনো রকম বিশৃঙ্খলা বা আইনশৃঙ্খলার অবনতি যাতে না ঘটে সে জন্য ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

ইসলামী ব্যাংকের অ্যাসিসটেন্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট নজরুল ইসলাম শ্রমিকদের আন্দোলন প্রসঙ্গে বলেন, গত এপ্রিলে সোয়ান গ্রুপের মালিক আত্মহত্যা করেন। প্রতিষ্ঠানটি ইসলামী ব্যাংকের কাছে ৪০ কোটি টাকা দেনা। এ টাকা আদায়ের জন্য নিয়ম অনুযায়ী পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। এর মধ্যে সোয়ান গার্মেন্টেসের গুদামে লুটপাট হলে থানায় অজ্ঞাতনামাদের নামে একটি জিডি করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, শ্রমিকদের বেতন তো প্রতিষ্ঠানের মালিক দেবেন। ইসলামী ব্যাংক প্রতিষ্ঠানটিতে বিনিয়োগ করেছিল। ব্যাংকিং নিয়ম অনুযায়ী সেই পাওনা আদায়ের জন্য আমরা চেষ্টা করছি।

এদিকে শ্রমিকরা দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে মিছিল করতে করতে জাতীয় পেস ক্লাবের দিকে ফিরে যান। সেখানে অবস্থান কর্মসূচি পালন করবেন বলে শ্রমিকরা জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here