ইনডেক্সে বুলিশ ক্যান্ডেল, মার্কেটের আপ ট্রেন্ডে যাওয়ার সম্ভাবনা

0
623
স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ইনডেক্স বুধবার, ৩১ মে ভাল বাই পেশার থাকার কারণে বুলিশ ক্যান্ডেল দেখা গেছে। মার্কেট প্রথম থেকেই একটু পজিটিভ ছিল আগের দিনের চেয়ে। দর দামও আস্তে আস্তে বৃদ্ধি পেয়েছিল। ফলে সেই ধারাতেই বাজার প্রায় ৩০ পয়েন্ট উপরে উঠে বুলিশ ক্যান্ডেল তৈরি করেছে।
টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস অনুযায়ী আজকে মার্কেটে বাইয়ার দের ভাল উপস্থিতি ছিল। মার্কেট শুরু থেকেই পজিটিভ ছিল। ধীরে ধীরে আরও বাই পেশার বাড়তে থাকে। সেই কারণে কোম্পানিগুলোর দাম ও সূচক দুটোই বাড়ে। ফলে বুলিশ ক্যান্ডেল দেখা গেছে মার্কেটে। এই বুলিশ অবস্থা বজায় থাকলে মার্কেট আপ ট্রেন্ড লাইন ভেদ করে আরও উপরে চলে যেতে পারে। তবে পরের দিনের বাইয়ার এবং সেলারের উপস্থিতির উপরে অনেক কিছুই নির্ভর করছে।
ডিএসই সাধারন সূচক শুরু থেকেই উপরে ছিল। অপেন প্রাইজের থেকে কয়েক পয়েন্ট উপরে থেকেই দিন শেষ করেছে ইন্ডেক্স। দিন শেষে ইনডেক্স গত দিনের চেয়ে ২৯.৮৬ পয়েন্ট উপরে অবস্থান করছে। ইন্ডেক্স বিগত দিনের ৫৩৭৩.২৫ পয়েন্ট থেকে শুরু করে ৫৪০৩.১২ পয়েন্টে শেষ হয় যা আগের দিনের তুলনায় ০.৫৬% বেশি।
বাজারে সর্বমোট ৩২১টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার লেনদেন হয়েছে যার মধ্যে দাম বৃদ্ধি পেয়েছে ১৫৪ টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার এর, হ্রাস পেয়েছে ১১৩টির আর অপরিবর্তিত ছিল ৫৪টি কোম্পানির শেয়ারের দাম। আজকের মোট লেনদেনের মূল্য দাঁড়িয়েছে ৫০৬.১ কোটি টাকায় আর মোট লেনদেন হয়েছে   ৭৬ হাজার ১০৩টি শেয়ার।
পরিশোধিত মূলধনের দিক থেকে দেখা যায়, বেশিভাগ মানের কোম্পানির ট্রেড আগের চেয়ে বেড়েছে। দেখা যাচ্ছে ২০ থেকে ৫০ কোটি টাকার শেয়ার এবং ১০০ থেকে ৩০০ কোটি মূলধনী প্রতিষ্ঠানের লেনদেন বেড়েছে ৯০.০৮% এবং ১৮.০৬%। সেই সাথে ৩০০ কোটি টাকা কোটি টাকার ওপরে পরিশোধিত মূলধনী প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের লেনদেন আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে ৯৬.৪৩%। আর ৫০ থেকে ১০০ কোটি টাকা পরিশোধিত মূলধনী প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের ট্রেড কমেছে ০.৪১%।
পিই রেশিওর ভিত্তিতে দেখলে দেখা যায় বেশিভাগ মানের শেয়ারের ট্রেড বেড়েছে। দেখা যাচ্ছে ০-২০ পিই রেশিওর শেয়ারের লেনদেন বেড়েছে ৫০.৩%। ২০-৪০ পিই রেশিওর শেয়ারের লেনদেন বেড়েছে ৫৪.০৩% । তবে ৪০ এর বেশী পিই রেশিওর শেয়ারের ট্রেড কমেছে ৩২.৪৭%।
ক্যাটাগরির দিক থেকেও দেখা যায় বেশির ভাগ মানের শেয়ারের লেনদেন বেড়েছে।  এ এবং বি ক্যাটাগরির লেনদেন বেড়েছে  ৪৬.৬৯ শতাংশ এবং  ৩৩.৩৮ শতাংশ। সেই সাথে জেড ক্যাটাগরি বেড়েছে ২২.৩১ শতাংশ। অন্যদিকে এন ক্যাটাগরির লেনদেন কমেছে ৫৬ শতাংশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here