ইউনিক হোটেলের আসছে ‘হানসা’, ভাসছে সম্ভাবনার জোয়ারে

0
2555

সিনিয়র রিপোর্টার : চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে রাজধানীর উত্তরায় ইউনিক হোটেল এ্যান্ড রিসোর্টসের নতুন হোটেল ‘হানসা’ চালু করা হচ্ছে। একই সঙ্গে চলতি বছরের মধ্যে বৃহৎ প্রকল্প ‘শেরাটন ঢাকা-বনানী’ নামে আরো একটি পাঁচ তারকা হোটেলের কার্যক্রম শুরু হবে। এসব কথা জানিয়েছেন কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মোহাম্মদ নূর আলী।

গুলশানের হলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলার পর দেশের হোটেল ব্যবসায় মন্দাবস্থা দেখা যায়। ইতোমধ্যে তা অনেকটা ভালোর দিকে এগিয়েছে বলেন নূর আলী। তিনি বলেন, কোম্পানির বর্তমান শেয়ার দর সম্পদ মূল্যের নিচে রয়েছে। কিন্তু এই দর সামনে এমন থাকবে না, আরো দর বাড়বে।

কারণ হিসেবে তিনি বলেন কোম্পানির উন্নয়নে কর্মকর্তারা নিরলসভাবে কাজ করছেন। কোম্পানিগুলোর মধ্যে ইউনিক হোটেলের ব্যবস্থাপনা খুব দক্ষ দাবি করে ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরের আর্থিক প্রতিবেদন তুলে ধরেন তিনি।

রাজধানীর গুলশান ক্লাবে কোম্পানির ১৬তম বার্ষিক সাধারণ সভায় (এজিএম) তিনি এসব কথা বলেন।

শেয়ারহোল্ডাররা কোম্পানির ঘোষিত ২০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ নিয়ে এজিএমে বিভিন্ন অভিমত তুলে ধরেন। তারা আগামী বছরগুলোতে এ লভ্যাংশ প্রদানের গতি ধরে রাখার প্রত্যাশা করেন।

কোম্পানির চেয়ারম্যান সেলিনা আলী বলেন, ভবিষ্যতে আরো ভাল লভ্যাংশ দেওয়ার লক্ষে কাজ করবে ইউনিক হোটেল এ্যান্ড রির্সোটস কর্মকর্তারা। একইসঙ্গে প্রতিষ্ঠানের উন্নতির জন্য শেয়ারহোল্ডারদের সহযোগিতা কামনা করে এজেন্ডা পাসের মাধ্যমে এজিএম সমাপ্ত ঘোষণা করেন তিনি।

সভায় উপস্থিত ছিলেন কোম্পানির পরিচালক মো. মহসিন, গাজী মো. শাখাওয়াত হোসাইন, চৌধুরী নাফিজ সারাফাত, স্বতন্ত্র পরিচালক গোলাম মোস্তফা, কোম্পানি সচিব শরিফ হাসান প্রমুখ।

কোম্পানিটির ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরে শেয়ারপ্রতি মুনাফা (ইপিএস) হয়েছে ১.৮০ টাকা। আর ৩০ জুন শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) দাড়িয়েছে ৮৮.৮২ টাকায়। বর্তমানে (৩০ ডিসেম্বর) শেয়ার দর রয়েছে ৫৬.৮০ টাকায়। যা পিই অনুযায়ি ফেরত পেতে ২৮.৪০ বছর সময় লাগবে।

ইউনিক হোটেল এ্যান্ড রির্সোট শেয়ারবাজারে ২০১২ সালে তালিকাভূক্ত হয়। কোম্পানির অনুমোদিত মূলধন ১ হাজার কোটি টাকা এবং পরিশোধিত মূলধন ২৯৪ কোটি ৪০ লাখ টাকা। কোম্পানিটির মোট শেয়ারের মধ্যে ৫২.১৭ শতাংশ শেয়ার ধারণ করছেন উদ্যোক্তা-পরিচালকেরা। বাকী শেয়ার ধারণ করছেন প্রাতিষ্ঠানিক ২৯.৪৩ শতাংশ, বিদেশি ১.৭২ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারী ১৬.৬৮ শতাংশ।

রাজধানীর উত্তরায় শত কোটি টাকা ব্যয়ে প্রস্তুত ফাইভ স্টার হোটেলটি ডিসেম্বর মাসে উদ্বোধনের ঘোষণা করার কথা থাকলেও করা হয়নি। চলতি বছরে হাজার কোটি টাকার আরো তিনটি প্রকল্প চালু করা হবে।

২০১৬ সালের মার্চ মাসে ডিএসই প্রকাশিত তথ্য

সূত্র জানায়, উত্তরায় ১৪ তলা ভবনসহ ৯ কাঠা ৭ ছটাক ৯ বর্গফুটের একটি জমি ২০১৬ সালের ২১ মার্চ কেনার ঘোষণা দেয় ইউনিক হোটেল অ্যান্ড রিসোর্টেস লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ। ২০১৬ সালের ২১ মার্চ জমি ক্রয় বাবদ ৩২ কোটি ৮৭ লাখ ২৪ হাজার ৮৪০ টাকা ব্যয় করা হয়।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, জমি ক্রয়ের আগে ২০১৫ সালের ১০ মার্চ পাঁচ তারকা হোটেল নির্মাণ ও সাজসজ্জার জন্য সাড়ে ৩ কোটি ডলারের বিদেশি ঋণ গ্রহণ করে ইউনিক হোটেল অ্যান্ড রিসোর্সেস লিমিটেড। এ জন্য যুক্তরাজ্য-ভিত্তিক স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয় কোম্পানিটি।

পেছনের খবর : ইউনিক হোটেলের আসছে নতুন হোটেল উদ্বোধনী ঘোষণা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here